ব্রেকিং:
রাইসির মৃত্যুতে বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা শান্তিপূর্ণ সমাজ বিনির্মাণে বুদ্ধের শিক্ষা অনুসরণ করা প্রয়োজন ফেনীর একরাম হত্যাকাণ্ড ১ দশক পরও মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১৭ আসামী পলাতক মেয়রের সামনেই কাউন্সিলরকে জুতাপেটা করলেন আলোচিত সেই চামেলী আজ ঢাকায় আসছেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা রাইসির মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক নোয়াখালীতে মাথাসহ হরিণের ৩০ কেজি মাংস উদ্ধার হাসপাতাল নয় যেন গারদখানা সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে রাইসির হেলিকপ্টার, কোনো আরোহী বেঁচে নেই রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষের ছবি-ভিডিও প্রকাশ্যে আজ থেকে ৬৫ দিন সামুদ্রিক জলসীমায় মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ নোয়াখালীতে শতকোটি টাকার জমি উদ্ধারের পর প্রকৌশলী বদলি লক্ষ্মীপুরে বিজয়ের ব্যাপারে আশাবাদি অধ্যক্ষ মামুনুর রশীদ কাঁচা মরিচের কেজি ছাড়াল ২০০ টাকা এক জালে মিলল ৫৫০০ পিস ইলিশ, ১৭ লাখে বিক্রি ছোট ভাইকে ‘কুলাঙ্গার’ বললেন মির্জা কাদের শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন বাংলাদেশের পুনর্জন্ম ফেনীতে কিশোর গ্যাং পিএনএফের প্রধানসহ গ্রেফতার ৫ সরকারি সফরে যুক্তরাষ্ট্র গেলেন সেনাপ্রধান
  • বুধবার ২২ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৮ ১৪৩১

  • || ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪৫

বাবার ফাঁসি চেয়ে সন্তানদের মানববন্ধন

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৬ জুন ২০২৩  

লক্ষ্মীপুরে পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় সেলিনা আক্তারকে (৪২) বিষ খাইয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামী জসিম উদ্দিনের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। সোমবার (৫ জুন) দুপুরে সদর উপজেলার জকসিন বাজারে নিহতের ছেলে-মেয়ে ও এলাকাবাসীর ব্যানারে ঘণ্টাব্যাপী এ আয়োজন করা হয়। এতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন। 

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নিহত সেলিনার চার সন্তান রোজিনা আক্তার, আসমা আক্তার, লাভলী আক্তার ও আবদুল আজিজ সৌরভ। এছাড়া স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ফিরোজ মাহমুদ বাকী, বেলায়েত হোসেন, জকসিন বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুল আজিম শাকিল, নিহত সেলিনার ভাই মুক্তার হোসেন ও নুর হোসেন মানববন্ধনে অংশ নেন ও বক্তব্য রাখেন। তারা হত্যার ঘটনায় জসিমকে অভিযুক্ত করে ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন।

নিহতের সন্তান রোজিনা ও আসমা জানান, লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড বাঞ্চানগর এলাকায় তাদের নিজস্ব বাসভবন রয়েছে। সেখানেই বাবা-মায়ের সঙ্গে তারা বসবাস করত। তাদের বাবা জসিম এক নারীর সঙ্গে পরকীয়ায় লিপ্ত ছিল। এ নিয়ে বাধা দেওয়ায় তাদের মা সেলিনাকে জসিম বিভিন্নভাবে নির্যাতন করতেন। ৬ মাস আগে শাহীন আক্তার নামে ওই নারীকে বিয়ে করে। এতে তাদের মায়ের সঙ্গে জসিমের দাম্পত্য কলহ বেড়ে যায়। এরমধ্যেই বাঞ্চানগর এলাকার বাসভবনসহ জমি জসিমের নামে লিখে দেওয়ার জন্য স্ত্রী সেলিনাকে চাপ দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় সেলিনার ওপর নির্যাতন আরও বেড়ে যায়।  

২৭ মে বিকেলে জসিম তার প্রথম স্ত্রী সেলিনাকে বাঞ্চানগর এলাকার বাসা থেকে গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার বাঙ্গাখাঁ ইউনিয়নের কাঁচারিবাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে জসিম ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী শাহিন পরিকল্পিতভাবে সেলিনাকে মারধর করে। একপর্যায়ে জসিম সেলিনার মুখে বিষ ঢেলে দেয়। এতে ওই বাড়ির অন্যান্যরাও সহযোগিতা করেছে। পরে সেলিনাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। পরে মরদেহ ফেলে রেখে জসিম পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ৩১ মে নিহত সেলিনার ভাই মুক্তার হোসেন বাদী হয়ে জসিম ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী শাহিনসহ ৫ জনের নাম উল্লেখ করে অভিযোগ দেন। কিন্তু থানা পুলিশ অভিযোগটি নথিভুক্ত করেননি। এতে ৪ জুন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী অঞ্চল (সদর) আদালতে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি নিয়ে থানায় অপমৃত্যু মামলা রয়েছে। এজন্য পরবর্তী মামলাটি গ্রহণ করা হয়নি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন শেষে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। তখন পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।