ব্রেকিং:
৪ মে থেকে বাড়ছে ট্রেনের ভাড়া মেট্রোরেলের আগারগাঁও-মতিঝিল অংশের উদ্বোধন ৪ নভেম্বর দুর্গাপূজা: দেশজুড়ে মণ্ডপের নিরাপত্তায় ২ লক্ষাধিক আনসার-ভিডিপি ১৫ বছরে ধানের ৮০ নতুন জাত ঢাকা-না’গঞ্জ লিঙ্ক রোড ছয় লেন হচ্ছে চাপে থাকা অর্থনীতিতে স্বস্তির আভাস ফিলিস্তিনের জন্য বাংলাদেশে আজ রাষ্ট্রীয় শোক আশুলিয়া এক্সপ্রেসওয়ে দৃশ্যমান হচ্ছে আজ বার কাউন্সিলের নতুন ভবন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী হামানকর্দ্দির কামাল গাজীকে আসামী করে সদর মডেল থানায় মামলা টিকটকে প্রেমের পর বিয়ে, ৩ বছরের মাথায় তরুণীর আত্মহত্যা লক্ষ্মীপুর-৩ আসনে উপনির্বাচন : প্রতীক পেলেন প্রার্থীরা ২১ বছর ধরে ভেঙে পড়ে আছে সেতু, ভোগান্তিতে লক্ষাধিক মানুষ শিক্ষামন্ত্রীর উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন উপলক্ষে মতবিনিময় সভা মোহনপুরে নৌ-পুলিশের অভিযানে ১৩ জেলে আটক ১০০ পিস ইয়াবাসহ আটক ২ পূজা নিয়ে এমপি বাহারের বক্তব্য ব্যক্তিগত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এমপি বাহারের বক্তব্য প্রধানমন্ত্রী দেখছেন গভীর উদ্বেগের সঙ্গে মেঘনায় মিলল নিখোঁজ জেলের মরদেহ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রেডক্রিসেন্টের অ্যাডহক কমিটি গঠন
  • বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ১১ ১৪৩১

  • || ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জামিনে বিদেশ পাঠাতে পরিবারের আবেদন

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

দেশের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিনা শর্তে স্থায়ী জামিন দিয়ে বিদেশে পাঠাতে সরকারের কাছে আবারও আবেদন করেছে তার পরিবার। এক চিঠিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে এ আবেদন করেন খালেদা জিয়ার ভাই শামীম ইস্কান্দার।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, দুদিন আগে খালেদা জিয়ার জীবন রক্ষার্থে জরুরি ভিত্তিতে তাকে বিদেশে অ্যাডভান্স সেন্টারে চিকিৎসার সুযোগ দিতে সরকারের কাছে চিঠি দেওয়া হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে কোনও উত্তর দেওয়া হয়নি।

সরকারের একটি সূত্র জানিয়েছে, খালেদা জিয়া ভাই শামীম ইস্কান্দারের দেওয়া চিঠিতে বলা হয়, বেগম জিয়ার জীবন রক্ষার্থে ও তার শারীরিক সক্ষমতা ফিরিয়ে আনার জন্য জরুরি ভিত্তিতে উন্নতমানের ফিজিওথেরাপিসহ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে দেশের বাইরে অ্যাডভান্স মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা গ্রহণ করা জরুরি। তাই সব শর্ত শিথিল করে তাকে স্থায়ীভাবে মুক্তি ও বিদেশে পাঠানোর অনুমতি দিতে সরকার কাছে আবেদন জানানো হয়। 

এদিকে চিঠির বিষয়ে জানতে খালেদা জিয়া ভাই শামীম ইস্কান্দারকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি।

এদিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থায় কোনও উন্নতি হয়নি বলে জানা গেছে। আগের মতো তাকে হাসপাতালে কেবিনে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাতে খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে যান দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম। রাত পৌনে ১২ টার দিকে তিনি হাসপাতালে থেকে বেরিয়ে যান। 

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা.রফিকুল ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বলেন, ‘ম্যাডামের শারীরিক অবস্থার কোনও পরিবর্তন নেই। আগের মতো আছেন। যার কারণে চিকিৎসকরা উদ্বিগ্ন। আসলে ম্যাডাম অনেকগুলো রোগে আক্রান্ত। ফলে, আজ একটা সমস্যা দেখা দিচ্ছে তো কাল আরেকটার সমস্যা দেখা দিচ্ছে। যার কারণে চিকিৎসকরা বারবার তাকে বিদেশে অ্যাডভান্স সেন্টারে চিকিৎসা দেওয়ার কথা বলছেন।’ 

মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা একাধিকবার সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছেন- খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, লিভার ও হৃদ্‌রোগে ভুগছেন। তার পরিপাকতন্ত্রে রক্তক্ষরণের পাশাপাশি তিনি লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত। এছাড়া গত বছরের জুনে খালেদা জিয়ার অ্যানজিওগ্রাম করা হলে তার হৃদ্‌যন্ত্রে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। তার একটিতে রিং পরানো হয়।