ব্রেকিং:
নোয়াখালীর কবিরহাটে ৩৬ দিন পর লাশ উত্তোলন বসুরহাটের বাজেট ঘোষণা করলেন মেয়র কাদের মির্জা প্রেমিকের সঙ্গে বিয়েতে বাবা-মা রাজি না হওয়ায় আত্মহত্যা নানা সংকটে হুমকিতে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ বিসিক শিল্পনগরী নোয়াখালীতে পানিতে ডুবে দুই বোনের মৃত্যু মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর নামে পাচার হয়েছে ৩৫শ’ কোটি টাকা নেত্রকোণায় কাঁচা ঘাস খেয়ে ২৬ গরুর মৃত্যু প্রত্যেকটা গ্রামকে আমরা নাগরিক সুবিধায় নিয়ে আসব ফেনীর সোনাগাজীতে চাঁদা আদায়কালে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার ৮ ফেনীর সোনাগাজীর চরাঞ্চলে বজ্রপাতে প্রাণ গেলো ১২ গবাদিপশুর ফেনীর সোনাগাজীতে আযান দেওয়ার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ফেনীর ফুলগাজীতে ফুটপাত মুক্ত করতে নির্দেশনা নতুন সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান নোয়াখালীর সুবর্ণচরের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন নোয়াখালীর চাটখিলে চেম্বারে রোগীকে ধর্ষণের অভিযোগ কাদের মির্জার প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট হয়ে পদ হারাল ছাত্রদল নেতা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটিতে হেলথ প্রোভাইডার মসজিদ থেকে জুতা চুরি করায় প্রবাসীকে ফেরত পাঠাচ্ছে কুয়েত! ভদ্র স্বভাবের বিগ বসের অপর নাম ‘শিক্ষিত গরু’, দাম ৫ লাখ রাজার পছন্দের খাবার আপেল-মাল্টা-পেয়ারা, ওজন ১১ মণ
  • শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪৩১

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সেই জাফরসহ ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ২০০ পরিবার পেল অর্থ সহায়তা

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২৪  

ঘূর্ণিঝড় রেমালে সব হারিয়ে নিঃস্ব নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার চানন্দীর জাফরসহ ২০০ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার পেল অর্থ সহায়তা। 
গতকাল বিকেলে চানন্দী ইউনিয়নের দরবেশ বাজারে জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান নগদ ১২ লাখ ১৪ হাজার টাকা তুলে দেন ক্ষতিগ্রস্তদের হাতে। 

ঘূর্ণিঝড় রেমালে হাতিয়া উপজেলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করে দিয়ে যায়। গৃহ হারিয়ে বহু পরিবার খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। রেমালের ধ্বংসযজ্ঞ নিয়ে গত ২৮ মে ঢাকা পোস্টে ‘সব হারিয়ে নিঃস্ব চানন্দীর জাফর’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। জাফর হাতিয়া ইউনিয়নের চানন্দী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের থানারহাট এলাকার বাসিন্দা। 

গতকাল সেই জাফরসহ ২০০ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে পার্টিসেপেটারি রিসার্চ এন্ড একশন নেটওয়ার্ক ও একশন এইডের উদ্যোগে স্টার্ট বাংলাদেশের সহায়তায় নগদ ১২ লাখ ১৪ হাজার টাকা তুলে দেন জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান।

আব্দুল করিম জাফর ঢাকা পোস্টকে বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের সময় আমি আশ্রয় কেন্দ্রে ছিলাম। ঘূর্ণিঝড় শেষে বাড়ি এসে দেখি আমার সব ঝড়ে উড়ে গেছে। আমি নিঃস্ব হয়ে গেছি। তবে বর্তমানে আমার বাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এমন অসংখ্য মানুষ আজ ভিটেমাটি হারা। আমরা সরকারের কাছে নদী ভাঙন রোধে দ্রুত ব্যবস্থা চাই। 

পার্টিসেপেটারি রিসার্চ এন্ড একশন নেটওয়ার্কের প্রধান নির্বাহী নুরুল আলম মাসুদ  বলেন, ঢাকা পোস্টে নিউজটা দেখে আমরা জাফরের বাড়িতে গিয়েছি। তাকে তালিকাভুক্ত করে আমরা নগদ অর্থ সহায়তা তুলে দিয়েছি। আজ আমরা ২০০ জনকে ৬ হাজার টাকা করে এবং ঘরে প্রতিবন্ধী আছে এমন ৭ জনকে দুই হাজার মোট ১২ লাখ ১৪ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে আগামীতেও এমন সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। সব মিলিয়ে ৭১৩টি পরিবারে ৪৪ লাখ টাকা বিতরণ করবো। 

জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান  বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে উপকূলীয় এলাকা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তার মধ্যে নিঝুমদ্বীপ ইউনিয়নসহ নিম্নাঞ্চল এবং চানন্দী ইউনিয়নের মানুষ ঘরবাড়ি হারিয়ে কষ্টে জীবনযাপন করছেন। আমরা সহায়তা অব্যাহত রাখছি। আজ মানুষের সাথে কথা বললাম ও নদী ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করলাম। ভাঙন রোধে চানন্দী ইউনিয়নের পাঁচ কিলোমিটার ব্লক বাধ হবে। সবার সহযোগিতায় আমরা সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত রাখবো।

এসময় জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মো. শাহাদাত হোসেন, একশন এইডের প্রোগ্রাম অফিসার মো. হামিদুল ইসলাম, জিহান সোহানা নাবি, চানন্দী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আজহার উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হম বাদল, নোয়াখালী প্রেসক্লাবেরর সাধারণ সম্পাদক আবু নাছের মঞ্জু ও চানন্দী ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।