ব্রেকিং:
মিয়ানমার সীমান্তের পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ রাখাইনে বড় সংঘাতের আশঙ্কা, বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার নির্দেশ একদিনে পদ্মাসেতুর আয় পৌনে ৫ কোটি টাকা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল হাসপাতাল পরিদর্শনে শেখ হাসিনা ‘গ্লোবাল কোয়ালিশন ফর সোশ্যাল জাস্টিসে’ যোগ দিলো বাংলাদেশ রেলস্টশন-বাস টার্মিনালে ঘরমুখো মানুষের ঢল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্র ও গুলিসহ আরসা সন্ত্রাসী গ্রেফতার ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু চালু হচ্ছে সেপ্টেম্বরে নোয়াখালীর কবিরহাটে ৩৬ দিন পর লাশ উত্তোলন বসুরহাটের বাজেট ঘোষণা করলেন মেয়র কাদের মির্জা প্রেমিকের সঙ্গে বিয়েতে বাবা-মা রাজি না হওয়ায় আত্মহত্যা নানা সংকটে হুমকিতে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ বিসিক শিল্পনগরী নোয়াখালীতে পানিতে ডুবে দুই বোনের মৃত্যু মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর নামে পাচার হয়েছে ৩৫শ’ কোটি টাকা নেত্রকোণায় কাঁচা ঘাস খেয়ে ২৬ গরুর মৃত্যু প্রত্যেকটা গ্রামকে আমরা নাগরিক সুবিধায় নিয়ে আসব ফেনীর সোনাগাজীতে চাঁদা আদায়কালে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার ৮ ফেনীর সোনাগাজীর চরাঞ্চলে বজ্রপাতে প্রাণ গেলো ১২ গবাদিপশুর ফেনীর সোনাগাজীতে আযান দেওয়ার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ফেনীর ফুলগাজীতে ফুটপাত মুক্ত করতে নির্দেশনা
  • রোববার ১৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২ ১৪৩১

  • || ০৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

হাতিয়ায় ৯ মণ সামুদ্রিক মাছসহ ৩০ জেলে আটক

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৩০ মে ২০২৩  

নোয়াখালীর হাতিয়ায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মেঘনা নদীতে মাছ ধরায় ৩০ জেলেকে আটক করেছে কোস্টগার্ড ও উপজেলা মৎস্য বিভাগ। এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা ২টি ট্রলার ও ৩৬০ কেজি (৯ মণ) সামুদ্রিক মাছ জব্দ করা হয়।

সোমবার বাংলাদেশ কোস্টগার্ড ও উপজেলা মৎস্য বিভাগের যৌথ অভিযানে হাতিয়ার তমরদ্দি ঘাট এলাকা সংলগ্ন মেঘনা নদী থেকে তাদের আটক করা হয়।

অভিযান সূত্রে জানা যায়, মৎস্য সম্পদ রক্ষায় প্রজনন মৌসুমে গত ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত মোট ৬৫ দিন দেশের সামুদ্রিক জলসীমায় যেকোনো প্রজাতির মাছ শিকার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরার অভিযোগে মেঘনা নদীতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় তমরদ্দি এলাকা থেকে অভিযানে ২টি ট্রলার, ৩০ জন জেলে ও ৩৬০ কেজি সামুদ্রিক মাছ জব্দ করা হয়। পরে আটক জেলেদের থেকে সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মানস মণ্ডল ৫৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন এবং জব্দকৃত মাছ স্থানীয় এতিমখানা ও গরিব দুস্থদের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মানস মণ্ডল বলেন, সামুদ্রিক জলসীমায় ৬৫ দিন মৎস্য আহরণ বন্ধ রাখলে সামুদ্রিক মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। সমুদ্রে মাছ বড় হলে মৎস্যজীবীরাই লাভবান হবেন। সমুদ্রগামী জেলেরাই এ মাছ আহরণ করবেন। নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে এ অভিযান পরিচালনা করা হয় এবং সামুদ্রিক মাছ গুলো এতিমদের মাঝে বিতরণ করা হয়।

 

কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লে. কে এম শাফিউল কিঞ্জল বলেন, কোস্টগার্ডের আওতাভুক্ত এলাকাসমূহে আইনশৃঙ্খলা, জননিরাপত্তা, জলদস্যুতা, বন-দস্যুতা ও ডাকাতি দমন ও মাদক নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি মৎস্য সম্পদ রক্ষয় কোস্টগার্ডের এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে।