ব্রেকিং:
আরব আমিরাত ও যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন রাষ্ট্রপতি গার্ডেন থিয়েটার কুমিল্লার একক নাট্য প্রদর্শনী ১০ রাষ্ট্রদূতকে দেশে ফেরার নির্দেশ ইঞ্জিন বিকল, উত্তরবঙ্গের সঙ্গে ঢাকার রেল যোগাযোগ বন্ধ রোজায় কমলো অফিসের সময়সূচি গাড়ি তৈরি করবে প্রগতি ইন্ডাস্ট্রিজ: শিল্পমন্ত্রী পরিবেশ রক্ষায় চুক্তি স্বাক্ষরে সম্মত বাংলাদেশ ও সৌদি আরব রোজায় বড় ইফতার পার্টি না করার নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর রমজানে লোডশেডিং নিয়ে সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী শিল্প-পণ্য মেলা বন্ধ চেয়ে ডিসিকে ব্যবসায়ীদের চিঠি ‘বউ-শাশুড়ি বইঘর’ গড়তে ২০০ বই নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে নববধূ পুলিশের দুই মামলায় জামিন পেলেন লক্ষ্মীপুর বিএনপির সদস্য সচিব শখের মোটরসাইকেলেই প্রাণ গেল কলেজছাত্র মাহিনের সেনবাগে বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩ রমজানে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ বুধবার এসএসসি পরীক্ষায় নকল দিতে গিয়ে ৩ যুবকের ২ বছর করে কারাদণ্ড ‘হামলা’ ও হেনস্থার বিচার দাবি কুবি শিক্ষক সমিতির প্রচারণায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ বিনা টিকিটে ভ্রমণ, ট্রেনের ভাড়া পরিশোধ করলেন প্রবাসী
  • মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪৩০

  • || ২২ শা'বান ১৪৪৫

আইনজীবী সমিতি নির্বাচন - সব পদে আওয়ামীপন্থিদের নিরঙ্কুশ জয়

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৭ মার্চ ২০২৩  

পাল্টাপাল্টি মিছিল, হাতাহাতি, উত্তেজনা ও হট্টগোলের মধ্য দিয়ে শেষ হওয়া সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের সবকটি পদে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে আওয়ামীপন্থি সাদা প্যানেল। ভোটের প্রাথমিক ফলাফলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ১৪টি পদের সবগুলোতে সরকার সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের (সাদা প্যানেল) প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। সাদা প্যানেলে সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি সিনিয়র অ্যাডভোকেট মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির ও সম্পাদক পদে বর্তমান সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুন নুর দুলাল পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) দিনগত রাতে সমিতির মোমতাজ উদ্দিন ফকির ও আব্দুন নুর দুলাল উভয়েই নিজেদের বিজয়ী হওয়ার তথ্য জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন। তারা বলেন, ভোট গণনা শেষ হয়েছে। সবকটি পদে আমরা বিজয়ী হয়েছি।

তবে রাতে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণার কার্যক্রম চলছিল।

পূর্বঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের দুদিনব্যাপী (১৫ ও ১৬ মার্চ) ভোটগ্রহণের প্রথম দিন ছিল বুধবার। ভোটের আগের দিন মঙ্গলবার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান বিচারপতি মো. মনসুরুল হক চৌধুরী পদত্যাগ করলে আওয়ামী ও বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ওইদিন রাত ৮টার দিকে আইনজীবী সমিতির তৃতীয় তলায় সেমিনার কক্ষে বক্সে রাখা ব্যালট পেপার ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের বিরুদ্ধে।

এরপর নির্বাচন পরিচালনার জন্য আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেল আইনজীবী শাহ খসরুজ্জামানকে আহ্বায়ক করে সাত সদস্যের উপ–কমিটি এবং বিএনপি সমর্থিত প্যানেল থেকে আইনজীবী এ জেড এম ফরিদুজ্জামানকে আহ্বায়ক করে সাত সদস্যের পৃথক উপ-কমিটি ঘোষণা করা হয়।

সুপ্রিম কোর্ট বারের ২০২৩-২৪ মেয়াদের কার্যকরী কমিটির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেলে সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি সিনিয়র অ্যাডভোকেট মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির ও সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বর্তমান সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুন নুর দুলাল।

সাদা প্যানেলের অন্য প্রার্থীরা হলেন—সহ-সভাপতি পদে মোহাম্মদ আলী আজম ও জেসমিন সুলতানা, ট্রেজারার পদে মাসুদ আলম চৌধুরী, সহ-সম্পাদক পদে নুরে আলম উজ্জ্বল ও হারুনুর রশিদ।

এছাড়া কার্যনির্বাহী সদস্য পদে মনোনীত সাত প্রার্থী হলেন—মো. সাফায়েত হোসেন সজীব, মহিউদ্দিন রুদ্রু, শফিক রায়হান শাওন, সুভাষ চন্দ্র দাস, নাজমুল হোসেন স্বপন, মো. দেলোয়ার হোসেন, মনিরুজ্জামান রানা।

অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেলের সভাপতি পদে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন ও সম্পাদক পদে ব্যারিস্টার মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

নীল প্যানেলের অন্য প্রার্থীরা হলেন—সহ-সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির মঞ্জু, সরকার তাহমিনা সন্ধ্যা, সহ-সম্পাদক পদে ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন, অ্যাডভোকেট মো. আব্দুল করিম ও কোষাধ্যক্ষ পদে রেজাউল করিম।

এই প্যানেলের কার্যনির্বাহী সদস্য পদে অ্যাডভোকেট আশিকুজ্জামান নজরুল, ফাতিমা আক্তার, ফজলে এলাহি অভি, ব্যারিস্টার ফয়সাল দস্তগীর, অ্যাডভোকেট শফিকুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান আহাদ ও রাসেল আহমেদ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০২৩-২০২৪ সেশনের কার্যকরী কমিটির নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়।

কার্যকরী কমিটির সভাপতি পদে একটি, সহ-সভাপতি পদে দুটি, সম্পাদক পদে একটি, কোষাধ্যক্ষ পদে একটি, সহ-সম্পাদক পদে দুটি এবং কার্যকরী কমিটির সদস্য পদে সাতটি পদ-সহ সর্বমোট ১৪টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবারের নির্বাচনে ১৪ পদের বিপরীতে ২৯ জন প্রার্থী ছিলেন। মোট ভোটার ছিলেন আট হাজার ৬০২ জন।

এদিকে বুধবার (১৫ মার্চ) সকাল ১০টায় প্রথম দিনের ভোটগ্রহণ শুরু হলেও বিএনপিপন্থি নীল প্যানেলের প্রার্থী ও সমর্থকদের বাধার মুখে কিছুক্ষণের মধ্যে ভোট বন্ধ হয়ে যায়। এসময় আওয়ামীপন্থি সাদা প্যানেলের প্রার্থী-সমর্থকদের সঙ্গে বিএনপিপন্থিদের ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে। এতে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

এসময় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে পুলিশের বেপরোয়া হামলার শিকার হন সাংবাদিকরা। এতে বেশ কয়েকজন সাংবাদিক ও আইনজীবী আহত হন। পরে তাদের অনেককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

সাংবাদিকদের ওপর পুলিশি হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে এবং এর প্রতিকার চেয়ে ওইদিনই প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর সঙ্গে দেখা করেন ল’ রিপোর্টার্স ফোরাম (এলআরএফ) নেতারা।