ব্রেকিং:
ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য নিকলীর বিকল্প বিজয়নগর বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গোৎসব সম্পন্ন প্রশংসায় ভাসছেন নোয়াখালী এসপি দল থেকে বিদায় নেওয়ার জন্য আমি প্রস্তুত : শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিকেলে কুমিল্লায় চেয়ারম্যানের গাড়িতে গুলি আফ্রিকায় শান্তিরক্ষা মিশনে প্রাণ গেল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জসিমের নভেম্বরের শেষের দিকে জাপান সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী টিকার বুস্টার ডোজ পেলেন সাড়ে ৫ কোটির বেশি মানুষ সন্ধ্যার মধ্যে ন্যাশনাল গ্রিড চালু করার চেষ্টা করছি সরকারি সফরে সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন সেনাবাহিনী প্রধান ঢাকায় আসছেন ব্রুনাইয়ের সুলতান মোবাইলের লক খুলতে গিয়েই ধরা পড়ল ডাকাত প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন সুবর্ণচরে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বসতভিটা দখলের অভিযোগ দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৩ মাস বাড়বে না ভোজ্যতেলের দাম টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ টার্মিনাল ছাড়া মহাসড়কে টোল আদায় করা যাবে না যৌনপল্লী চালান বিজেপি নেতা!
  • শনিবার   ০৮ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২৩ ১৪২৯

  • || ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

এক ট্রলারে ১৩০ মণ ইলিশ নিয়ে ফিরলেন জেলেরা, ২৫ লাখে বিক্রি

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২  

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ ও পূর্ণিমার জোয়ারে উত্তাল সাগরেও মাছ ধরতে নেমেছেন জেলেরা। মাত্র পাঁচ দিনে মা আয়েশা-২ নামে একটি ট্রলারের ২১ জন জেলে পেয়েছেন ১৩০ মণ ইলিশ। একসঙ্গে এত মাছ পেয়ে খুশিতে আত্মহারা সবাই। এসব মাছ নিলামে বিক্রি হয়েছে ২৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা। 

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত নোয়াখলীর হাতিয়ার চেয়ারম্যান ঘাটে এসব ইলিশ বিক্রি করা হয়।

জানা যায়, ভোলার মনপুরা উপজেলার মো. জহির উদ্দিন মা আয়েশা-২ ট্রলারের প্রধান মাঝি। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ ও পূর্ণিমার জোয়ারের মধ্যেই ২১ জন মিলে উত্তাল সাগরে মাছ ধরেছেন। মাত্র পাঁচ দিনে মিলেছে ১৩০ মণ ইলিশ। ভালো দাম পেয়ে উচ্ছ্বসিত জেলেরা।

dhakapost

জেলে গিয়াস উদ্দিন পাটওয়ারী ঢাকা পোস্টকে বলেন, বৈরী আবহাওয়ায় সাহস করে মাছ ধরেছি। বাতাস কম ছিল তাই জাল ফেলতে পেরেছি। প্রচুর মাছ পেয়েছি। এতে আমরা আনন্দিত। 

 মো. শাহীন নামে আরেক জেলে ঢাকা পোস্টকে বলেন, ৩ নম্বর সংকেতের কথা শুনে অনেক ট্রলার কূলে এসে গেছে। কিন্তু আমরা উঠে আসিনি। বাতাস কম থাকায় আমরা সাগরেই ছিলাম। প্রথম জাল ফেলার পর মাছ পেয়েছি কম। পরের বার প্রচুর মাছ পেয়েছি। এভাবে ৪-৫ দিন মাছ ধরে কূলে এসেছি। 

আব্দুল মালেক নামে আরেক মাঝি ঢাকা পোস্টকে বলেন, বিভিন্ন সাইজের মাছ ধরা পড়েছে। এক কেজি সাইজের মাছের মণ ৩০ হাজার টাকা করে পাই। আধাকেজির থেকে কম ওজনের মাছ আমরা ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা পাই। 

dhakapost

প্রধান মাঝি মো. জহির উদ্দিন ঢাকা পোস্টকে বলেন, ইলিশ ধরার নিষেধাজ্ঞা গত বছর থেকে ১০ দিন এগিয়ে দিয়েছে সরকার। আমরা প্রথম সিজনে কোনো মাছ পাইনি। এখন যা কিছু মাছ পাচ্ছি তা দিয়ে ধার দেনা দিব। কিন্তু সরকার নিষেধাজ্ঞা এগিয়ে দিয়ে আমাদের ক্ষতি করল। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিসহ বেশ কয়েকজন বলেছেন নিষেধাজ্ঞা পিছিয়ে দিতে। কিন্তু সরকার তা শোনেনি। সরকার গরিবের দিকে তাকায় না।

মেঘনা ফিশিংয়ের ম্যানেজার মো. হাবিব ভূঁইয়া ঢাকা পোস্টকে বলেন, মাঝি জহির উদ্দিন ১৩০ মণ মাছ পেয়েছেন। যার নিলামে দাম গড়ে ১৯ হাজার টাকা করে ২৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা। মাছগুলো সব বড় বড় এবং দেখতে সুন্দর। সারা দেশে এত বড় মাছ উঠেছে কিনা আমার জানা নেই। তবে চেয়ারম্যান ঘাটে প্রচুর মাছ উঠছে। জেলেরাও ভালো দাম পাচ্ছেন। এখানে সকাল ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মাছ বিক্রি হয়।