ব্রেকিং:
৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া সেই শিক্ষকের জামিন শাহরাস্তিতে স্বামী হত্যা মামলায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন চাঁদপুরে ইলিশ রক্ষার ২২দিনে ৩৭৩ অভিযান-মোবাইল কোর্ট সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে চাঁদপুরে চিকিৎসকদের মানববন্ধন কেন কুমিল্লা নামেই বিভাগ হওয়া উচিত হুইল চেয়ারে স্বপ্ন জয়ের পথে কুমিল্লার শাহানাজ কেন্দ্রের নাম ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা’, ভুল নাকি জালিয়াতি! পুকুরে নয়, মাজারের পাশের বাড়ি থেকে হনুমানের সেই গদা উদ্ধার কুমিল্লা মুরাদনগরে পুলিশের হাতে চারজন পতিতা ব্যবসায়ী আটক সাসপেন্সে ভরপুর ‘মিশন এক্সট্রিম’র ট্রেলার (ভিডিও) কোথায় খালেদার সেই আপোষহীনতা? শামিকে পাকিস্তানের চর বললো ভারতীয় উগ্র সমর্থকরা ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেলেন কঙ্গনা ‘আমি পোলার্ড-রাসেল নই’ বললেন মুশফিক নোয়াখালীতে বিএনপি-জামায়াতের পাঁচ নেতা-সমর্থকসহ গ্রেফতার ১১ রিজেন্টের সাহেদকে জামিন দিতে হাইকোর্টের রুল পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া সুপারিশ ও ডিও লেটার ৩ কোটি টাকা দিতে হবে! রিক্সাচালককে নোটিশ পাঠাল আয়কর বিভাগ বিয়েবাড়িতে মাংস বেশি চাওয়ায় বরপক্ষকে পেটাল কনেপক্ষ মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা ‘ক্রিকেটার’ বীথির সাফল্যের পেছনের গল্প
  • সোমবার   ২৫ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ১০ ১৪২৮

  • || ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

কান্নার উপকারিতা জানলে অবাক হবেন

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১২ অক্টোবর ২০২১  

কান্না মন ও শরীর দুইয়ের জন্যই ভালো, এমনটাই জানাচ্ছেন মনোবিদরা। তাই কান্না পেলে তা আটকানোর প্রয়োজন নেই বরং কেঁদে নেয়াই ভালো। বন্ধু বা পরিবারের কাছে ছিঁচকাঁদুনে হিসেবে পরিচিত হলেও সমস্যা কি, বরং এটা আপনার জন্যই ভালো!

চলুন এবার কান্না করার উপকারিতা দেখে নেয়া যাক-

চোখ পরিষ্কার থাকে

কাঁদার সময় যে পানি বের হয় তা আমাদের চোখের মণি আর চোখের পাতা ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করে দেয়। এটি আমাদের চোখকে শুষ্ক হয়ে যাওয়া থেকেও বাঁচায়। ফলে এটি চোখ পরিষ্কার রাখতে আর দৃষ্টি পরিষ্কার করতে সাহায্য করে।

ঘুম ভালো হয়

২০১৫ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে হওয়া একটি গবেষণায় দেখা গেছে, কাঁদার সময় আমাদের শরীরের ভেতরে এমন কিছু হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে যায়, যার প্রভাবে তাড়াতাড়ি ও প্রশান্তির ঘুম আসে।

মন ভালো রাখে

মনের মধ্যে চেপে রাখা কষ্ট যদি কান্নার মাধ্যমে বেরিয়ে আসে, তাহলে মন হালকা হয়। তাই মনোবিদরা বলেন মন খারাপ হলে, কান্না পেলে নিজেকে না আটকাতে। বরং সমীক্ষায় দেখা গেছে, যারা সহজেই চোখের জল ফেলতে পারেন, তারা অবসাদের সঙ্গে খুব ভালো মোকাবিলা করতে পারেন।

ব্যাক্টেরিয়া ও জীবাণু শেষ হয়

চোখের জলে থাকা অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল উপাদান চোখে থাকা ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস দূর করে। রাস্তা-ঘাটে, বাসে-ট্রামের ধুলো-বালি থেকে সারা দিনে চোখের ভেতর কত ময়লাই না জমা হয়। এগুলো থেকে নানা জীবাণু আমাদের চোখের ভিতরে বাসা বাঁধতে পারে। কিন্তু চোখের জল সেসব জীবাণু ধ্বংস করতে খুবই কার্যকরী। চোখের জলে থাকা আইসোজাইম মাত্র ৫-১০ মিনিটে চোখে বাসা বঁধা ৯০-৯৫ শতাংশ ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলতে পারে।

চাপ কমে

কাঁদলে অতিরিক্ত এটিসিএইচ হরমোন বের হয়ে যায় এবং কর্টিসোলের পরিমাণ কমে যায়। ফলে মনের ভেতরে থাকা চাপ কমে যায়। আমাদের শরীরে থাকা চাপ নিবারক আরেকটি উপাদান হচ্ছে লিউসিন এনকেফালিন। কান্নার ফলে এটি নিঃসৃত হয়। এটি ব্যথা কমায় এবং মন ভালো করে দেয় নিমেষে।