ব্রেকিং:
অসাধু আইপিটিভি: সাংবাদিকতার নামে চাঁদাবাজি! রাস্তা থেকে মাদ্রাসার ছাত্রী অপহরণ, ৯দিন পর উদ্ধার! আড়াই হাজার ইয়াবাসহ পুলিশ সদস্য আটক একবার সুযোগ দিন ১০ বছরের উন্নয়ন ৫ বছরে করবোঃ চেয়ারম্যান প্রার্থী কক্সবাজারের রিসোর্টে চান্দিনার এক নারীর মরদেহ ‘লিঙ্গ ভিত্তিক নির্যাতন প্রতিরোধ’ নিয়ে কর্মশালা কুমিল্লায় একই লাইনে দুই ট্রেন নিয়োগ প্রক্রিয়া কালিমাযুক্ত করতে দেয়া হবে না শেকলবন্দী কলেজছাত্র আগুনে দাহ কু.বি বাস স্টাফের সাথে এ্যাম্বুলেন্স চালকদের সংঘর্ষ নতুন করে ৮৯ লাখ ডোজ টিকার বরাদ্দ পেল বাংলাদেশ নারী নেতৃত্বের নেটওয়ার্ক গঠনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর শাহজালালে করোনার পরীক্ষামূলক পরীক্ষা শুরু ভারতে ছুটছে মিয়ানমারের হাজার হাজার মানুষ মানবকল্যাণের প্রকল্পে সরকার নিজস্ব অর্থায়ন করবে: এলজিআরডিমন্ত্রী মৎস্যজীবীদের স্বার্থেই ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী চিতা বিড়ালের ‘বিরল প্রসব’ ফেনীতে লাইসেন্স ছাড়াই চলছে ১৯ হাজার মোটরসাইকেল অপপ্রচার-অপরাজনীতি সত্ত্বেও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সফল হয়েছি অপহৃত দশম শ্রেণির ছাত্রী ৯ দিন পর উদ্ধার, গ্রেফতার ১
  • বৃহস্পতিবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৮ ১৪২৮

  • || ১৪ সফর ১৪৪৩

কিশোরীকে প্রলোভন দেখিয়ে পতিতালয়ে বিক্রি, স্বামী-স্ত্রীসহ আটক ৩

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২ সেপ্টেম্বর ২০২১  

চাঁদপুরের এক কিশোরীকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে ঢাকায় নিয়ে পতিতালয়ে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। এরপর তাকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। নিখোঁজের তিনদিন পর ঢাকা থেকে ভুক্তভোগী কিশোরীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই ঘটনায় স্বামী-স্ত্রীসহ তিন মানবপাচারকারীকে আটক করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো- চাঁদপুর সদর উপজেলার রঘুনাথপুর আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকার কাদির মাঝীর মেয়ে হীরা বেগম, তার ছোট বোন সোহাগী বেগম ও তার স্বামী আনোয়ার হোসেন। তাদের মধ্যে হীরা বেগম মামলার আসামী না হওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই রাশেদুজ্জামান তাদের আটক করেন। বুধবার এ ঘটনায় মামলা হয়। পরে আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, গণধর্ষণের শিকার কিশোরী মঙ্গলবার রাতে অসুস্থ হয়ে পড়লে পুলিশের পাহারায় তাকে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

রঘুনাথপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পের এক বিধবা জানান,  শনিবার (২৮ আগস্ট) সকালে ওই কিশোরীকে পারিবারিক বিষয় নিয়ে তার মা শাসন করেন। এতে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে ওই কিশোরী। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে একই এলাকার সোহাগী বেগম ও তার স্বামী আনোয়ার হোসেন ওই কিশোরীকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে লঞ্চে করে ঢাকায় নিয়ে একটি পতিতালয়ে বিক্রি করে দেয়।

তিনি আরো জানান, ঢাকায় নেয়ার পথে একই এলাকার আলী হোসেন নামে এক যুবক তাদের লঞ্চে দেখতে পান। পরবর্তীতে তিনি বিষয়টি ওই কিশোরীর পরিবারকে জানালে তারা সোহাগী বেগমের কাছে মেয়ের খোঁজ জানতে চান। কিন্তু সোহাগী বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করলে ওই কিশোরীর মা সোমবার (৩০ আগস্ট) সোমবার চাঁদপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ ওই কিশোরীকে উদ্ধার ও আসামিদেরকে আটক করে। পরে আসামিদের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা করা হয়।

ভুক্তভোগী কিশোরী জানান, সোহাগী বেগম তাকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ঢাকায় নিয়ে যান। এরপর আনোয়ার হোসেন তাকে একটি প্রাইভেটকারে তুলে ধর্ষণ করেন এবং তাদের চক্রের আরো পাঁচজন সদস্যের হাতে তুলে দেন। পরে ওই পাঁচজনও তাকে নির্জন স্থানে নিয়ে পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে।

চাঁদপুর মডেল থানার এসআই রাশেদুজ্জামান জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধার ও পাচারকারীদের আটক করা হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। বর্তমানে ওই কিশোরী পুলিশের পাহারায় চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মামলার তদন্ত ও পাচারকারী চক্রের বাকি সদস্যদের ধরতে অভিযান চলমান রয়েছে।