ব্রেকিং:
‘স্মার্ট দেশ’ গড়তে নৌকায় ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী রাজশাহীবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর ‘উপহার’ ২৬ প্রকল্প রাজশাহীতে ১০ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছি আওয়ামী লীগ কখনো পালায় না - রাজশাহীর জনসভায় প্রধানমন্ত্রী রাজশাহী এখন দেশের সবচেয়ে সুন্দর শহর: তথ্যমন্ত্রী বিএনপি আমাদের লাল কার্ড দেখায়, তারা এখন কই: ওবায়দুল কাদের ২৬ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ১৪ বছরে বদলে গেছে রাজশাহী উৎপাদনে ফিরছে ॥ রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রতিদিন গড়ে ৬ কোটি ৩৭ লাখ ডলার রেমিট্যান্স আসছে দেশের শান্তি রক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করছে পুলিশ: প্রধানমন্ত্রী দেবীদ্বারে আ’লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি, জানেন না উপজেলা সম্পাদক কুমিল্লায় ৬ মাসের সাজা নিয়ে পলাতক দশ বছর,অবশেষে আটক পূর্ব শাহতলীতে ওয়াজ ও দোয়ার মাহফিল সম্পন্ন চাঁদপুর সদর ও পৌর আওয়ামী লীগের মতবিনিময় চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আলোচনা চাঁদপুরে খেলাফত যুব মজলিশের বিক্ষোভ মিছিল চাঁদপুরে সুবিধাবঞ্চিত শিশু শিক্ষার্থীরা পেল হ্যান্ডওয়াশ টেন্ডারকৃত রাস্তায় কাজ না করিয়ে অন্যস্থানে করায় মানববন্ধন চাঁদপুর ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে ব্র্যাক শিক্ষা তরীর উদ্বোধন
  • সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৭ ১৪২৯

  • || ০৭ রজব ১৪৪৪

ফেনীতে প্রথমদিনে বিতরণ হয়েছে ৬০ শতাংশ বই

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২ জানুয়ারি ২০২৩  

ফেনী: বছরের প্রথম দিনেই নতুন বই হাতে পেয়েছে ফেনীর কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। ঝকঝকে নতুন বইয়ের পাতার ঘ্রাণে রীতিমতো বই উৎসবে মতোয়ারা তারা।

তবে এই উৎসবের ভিড়ে অনেকের মুখ মলিন। কারণ, সহপাঠীদের মতো তাদের হাতে পৌঁছায়নি নতুন বই।

এর কারণ হিসেবে জেলা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস বলছে,  ছাপায় জটিলতা ও নতুন কারিকুলামের কারণে বছরের প্রথম দিনে চাহিদার ৬০ শতাংশ বই বিতরণ হয়েছে। শিগগিরই বাকি ৪০ শতাংশও পূরণ হয়ে যাবে।  

শহরের সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় গিয়ে দেখা যায় অন্য ক্লাসের শিক্ষার্থীদের বই এলেও ক্লাস সেভেনের বই এখনও আসেনি।  

শিশু নিকেতন স্কুলে গিয়ে দেখা যায় নতুন বই জোটেনি ৩য় শ্রেণির শিক্ষার্থীদের।  

জেলার সোনাগাজী উপজেলার কয়েকটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা জানান, তাদের স্কুলের ৬ষ্ঠ, ৭ম এবং প্রাথমিকের ২য় ও ৩য় শ্রেণির অনেক শিক্ষার্থী নতুন বই পায়নি।  

শোয়েব নামের ফেনী পাইলট হাইস্কুলে শিক্ষার্থী শোয়েব বলেন, নতুন বই পাব বলে এসেছিলাম। অনুষ্ঠান হয়েছে কিন্তু বই পাইনি। স্যাররা বই দেয়নি। না পেয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে। শিক্ষকরা বলছেন পরে। কবে দেবে জানি না।  

ফেনী সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী শোয়াইব ইবনে মোস্তফা বলেন, বই নিতে বিদ্যালয়ে আসলেও অনুষ্ঠানে কয়েকজনকে বই দিয়ে আর কাউকে বই দেওয়া হয়নি।  

আব্দুল্লাহ্ আল মাসুদ নামে আরেক শিক্ষার্থী বলেন, বছরের প্রথমদিনে বই দেবে বলার পর আমরা বিদ্যালয়ে এসেছি। কিন্তু বই না পেয়েই ফিরে যাচ্ছি।

রেজোয়ান হায়দার নামে এক অভিভাবক বলেন, আমার সন্তান ৯ম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছে। বিদ্যালয়ে নতুন বইয়ের জন্য আসলেও শিক্ষকরা কাল আসতে বলেছেন। এখন খালি হাতেই ফিরতে হচ্ছে।  

এর কারণ জানাতে শিক্ষা অফিস বলছে, ১ম, ২য়, ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে নতুন কারিকুলামে বই হবে। সেজন্য বই হাতে আসেনি। বছরের প্রথম দিন না পেলেও অল্প কিছুদিনের মধ্যেই ওইসব শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে বই পৌঁছে যাবে। তবে কয়েকটি স্কুলের শিক্ষকরা বলেন, খুব শিগগিরই বললেও ধারণা করা হচ্ছে বাকি বইগুলো পেতে বছরের মার্চ মাস হয়ে যাবে।  

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শফি উল্ল্যাহ বলেন, চলতি বছর জেলায় ২৬ লাখ ৬৬ হাজার ৫২৭ বইয়ের চাহিদা রয়েছে। বিপরীতে ১৬ লাখ ৬৪ হাজার ২১০ কপি বই এসেছে। যা শতকরা হিসেবে ৬০ শতাংশ। এছাড়া সদর উপজেলা ছাড়া ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণির বই এখনও অন্য উপজেলায় পৌঁছেনি।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, জেলার ১ লাখ ২৬ হাজার শিক্ষার্থীর হাতে এবার নতুন বই উঠবে। তম্মধ্যে প্রাক প্রাথমিকে সব বই এসেছে। ১ম ও ২য় শ্রেণির বই কম পেয়েছি। ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণির ৫০ শতাংশ বই পেয়েছি। বাকি বই দুয়েকদিনের মধ্যেই চলে আসবে।

আজ বই উৎসবে ছিলেন ফেনী জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ-উল হাসান। সকাল সাড়ে ৯টায় শিশু নিকেতন কালেক্টরেট স্কুল আয়োজিত বই উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন তিনি।

ফেনী জেলা প্রশাসক বলেন, যারা পড়াশোনা করে তারাই ভালো থাকে। তারা জীবনকে উপভোগ করতে পারে। বাবা-মা শেষদিন পর্যন্ত সহায় হবে। তারপর সারাজীবন সহায়তা করবে পড়াশোনা। যত বেশি পড়াশোনা করবে, জীবন তত বেশি এগিয়ে যাবে। পড়াশোনা করে দেশের মান রক্ষা করবে।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও শিশু নিকেতন কালেক্টরেট স্কুলের সভাপতি মোমেনা আক্তারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন প্রধান শিক্ষক শফিউল আলম।  এসময় সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাসুদ রানা প্রমূখ।

ফেনী পাইলট হাই স্কুল, প্রাইমারি স্কুল, ফেনী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, গার্লস ক্যাডেট কলেজসহ জেলার সবকটি স্কুলে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।