ব্রেকিং:
হলি আর্টিজানে নিহতদের প্রতি রাষ্ট্রদূতদের ফুলেল শ্রদ্ধা হলি আর্টিজান হামলা, পরের ৬ বছরে গ্রেফতার ২৪১০ জঙ্গি হলি আর্টিজান হামলা: রক্তের দাগ, বুলেটের ক্ষত রয়েছে স্মৃতিপটে হলি আর্টিজান মামলার অগ্রগতি কতদূর হলি আর্টিজান হামলা ও এদেশের জঙ্গিবাদ হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার বিভীষিকাময় দিন হলি আর্টিজান মামলা: হাই কোর্টে এখনও শুনানির অপেক্ষা রাস্তার পাশে পড়েছিল কাপড়ে মোড়ানো নবজাতকের মরদেহ বাল্যবিয়ে বন্ধ, খাবার গেলো এতিমখানায় যমজ সন্তান জন্ম দিয়ে বিপাকে রুমা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পরিবর্তে ‘বি-বাড়িয়া’ না লিখার নির্দেশ যেসব পশু কোরবানি করা যাবে ও যাবে না নোয়াখালীতে গৃহপরিচারিকার লাশ উদ্ধার ঈদযাত্রার অগ্রিম ট্রেনের টিকিট পেতে কাউন্টারে ভিড় ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়েতে টোল আদায় শুরু বিশ্বে একদিনে করোনায় ১৩৮০ জনের মৃত্যু ঈদযাত্রার অগ্রিম ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু বুয়েটের মেধা তালিকায় এবার আবরার ফাহাদের ছোট ভাই ফাইয়াজ কোরবানির হাটে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা ঢাকাসহ যে ৫ জেলার বাইরে যেতে পারবে না রাইডশেয়ারিং মোটরসাইকেল
  • শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৭ ১৪২৯

  • || ৩০ জ্বিলকদ ১৪৪৩

নাসিরনগরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, ২৫ প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২১ জুন ২০২২  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। প্রতিদিনই প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। উপজেলার ১৫০০ পরিবারের প্রায় ৭ হাজার মানুষ পানিবিন্দি হয়ে পড়েছে। 

পানিতে তলিয়ে গেছে উপজেলার প্রায় ৩০ কিলোমিটার আধাপাকা-পাকা সড়ক। পানির তোড়ে উপজেলার বুড়িশ্বর ইউপির একটি ব্রিজ ভেঙে গেছে। পানিতে ভেসে গেছে উপজেলার প্রায় ৭০০ পুকুরের মাছ। সাড়ে ৪ হাজার রোপা আমন ধানের জমি পানিতে তলিয়ে গেছে। 

উপজেলার ১২৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৭০টি বিদ্যালয়ের চারপাশে পানি উঠেছে। কিছু বিদ্যালয়ের ভেতরেও পানি ঢুকেছে। উপজেলার ২৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বানভাসী মানুষের জন্য ২৮টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। 

উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, পানি বাড়তে থাকায় প্রতিদিন বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হচ্ছে। ৩০ কিলোমিটার আধাপাকা-পাকা সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে। পানির তোড়ে উপজেলার বুড়িশ্বর ইউপির একটি ব্রিজ ভেঙে যাওয়ায় কয়েকটি এলাকার বাসিন্দা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। উপজেলার বেশ কিছু কমিউনিটি ক্লিনিকও প্লাবিত হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার চাতলপাড়, ভলাকুট, গোয়ালনগর, বুড়িশ্বর, কুন্ডা, পূর্বভাগ, ধরমন্ডল, গোকর্ণ ও চাপরতলা ইউপির বেশির ভাগ এলাকাই প্লাবিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৮টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এছাড়া উপজেলার বুড়িশ্বর ইউপির শ্রীঘর এসএসডিপি উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। সোমবার বিকেল পর্যন্ত ওই সব আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে ৬৬টি পরিবার আশ্রয় নিয়েছে।

উপজেলার বুড়িশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইকবাল চৌধুরী বলেন, বন্যা কবলিত এলাকা প্রতিনিয়ত পরিদর্শন করছি। সবার খোঁজ-খবর রাখছি। সরকারি সহযোগিতা পেলে সবাই পাবেন।

উপজেলার গোয়ালনগর ইউপি চেয়ারম্যান আজহারুল হক বলেন, আমার ইউনিয়নটি হাওরের মধ্যে। চারদিকে পানি আর পানি। হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি। পানি না কমলে মানুষের দুর্ভোগ আরো বাড়বে। এলাকার সব স্কুল আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করার কথা বলা হয়েছে।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. ইকবাল মিয়া বলেন, উপজেলার ১২৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৭০টি বিদ্যালয়ের চারপাশে পানি উঠেছে। পানি বাড়তে থাকায় ২৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা, বিদ্যালয়ের আঙ্গিনা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ২৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে। উপজেলার গোয়ালনগর ইউপির ১২টি ও চাতলপাড় ইউপির ১০টি বিদ্যালয়ে যে কোনো সময় পানি ঢুকতে পারে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু সাঈদ তারেক বলেন, বন্যায় উপজেলার প্রায় সাড়ে চার হাজার হেক্টর বোনা আমন ধানি জমির ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা শুভ্র সরকার জানান, উপজেলায় এই পর্যন্ত প্রায় ৭০০ পুকুরের মাছ  ভেসে গেছে। 

নাসিরনগরের ইউএনও মোনাব্বর হোসেন মঙ্গলবার বিকেলে জানান, বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। আমরা প্রতিদিন বন্যা কবলিত এলাকায় যাচ্ছি। ১৫০০ পরিবারের ৭ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে গেছে। আমরা মানুষের পাশে আছি। মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে ৬৬টি পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। আশ্রয় নেয়া পরিবারগুলোকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৫ কেজি করে চাল দেয়া হয়েছে।