ব্রেকিং:
টেলিটকে ফাইভ-জির গতি উঠলো সেকেন্ডে ১৫১২ এমবিপিএস ভোটকেন্দ্রে টাকা দিতে মেয়রের জোরাজুরি, নিল না পুলিশ আগামী দুই অধিবেশনের মধ্যে ইসি গঠনের আইন আসছে: আইনমন্ত্রী স্থায়ী কমিটির ভূমিকায় সন্দিহান বিএনপির কর্মীরা দীঘিনালায় ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে হামলা, ১৬ জন আহত আজও রাস্তায় শিক্ষার্থীরা, চেক করছে ড্রাইভিং লাইসেন্স ওমিক্রন নিয়ে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন: ডব্লিউএইচওর প্রধান বিজ্ঞানী কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে সরকার সচেষ্ট: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী খালেদার চিকিৎসা নিয়ে নেতা-চিকিৎসকদের সমন্বয়হীনতায় ক্ষুব্ধ তারেক বৈদেশিক বিনিয়োগে বাংলাদেশের গুরুত্ব দিন দিন বাড়ছে: প্রধানমন্ত্রী জাল ভোট দিতে এসে ধরা, ছয় মাসের জেল ইয়াবা দেখে ফেলায় সহপাঠীকে নৃশংস হত্যা সমুদ্র দূষণে শাস্তি বাড়িয়ে সংসদে বিল পাস পুরুষশূন্য কেন্দ্রে নারীদের দীর্ঘ সারি বাংলাদেশের নারীরা সারাবিশ্বে নিজেদের যোগ্যতার পরিচয় দিচ্ছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা ১ জানুয়ারি, মিলবে বিআরটিসি বাস সার্ভিস ৮৩ শতাংশ নারীই মনে করেন ‘বউ পেটানো ঠিক’ ঢাকায় বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী দেহব্যবসা করে চালিয়েছেন পড়াশোনা, জিতেছেন সুন্দরী প্রতিযোগিতায় যে কারণে পেছাল আবরার হত্যা মামলার রায়
  • সোমবার   ২৯ নভেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৮

  • || ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

বাদ যাননি বউ-শ্যালিকা, একসঙ্গে বানালেন অন্তঃসত্ত্বা

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০২১  

পরিবারের পছন্দে বিয়ে করলেও কুনজর পড়ে শ্যালিকার ওপর। স্ত্রীর ছোট বোনের রূপ দেখে নিজেকে ঠিক রাখতে পারছিলেন না। দিতেন কুপ্রস্তাব। এর মধ্যেই চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন স্ত্রী। আর এ সুযোগে শ্যালিকাকে অপহরণ করেন দুলাভাই। করেন মেলামেশাও। এখন দুই বোনই অন্তঃসত্ত্বা।

ঘটনাটি ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার। অভিযুক্ত যুবকের নাম আলম মিয়া। ৩০ বছর বয়সী আলম উপজেলার ফুলপুর ইউনিয়নের সদর ইউনিয়নের নগুয়া গ্রামের আহমাদ আলীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন নির্মাণ শ্রমিক।

শুক্রবার বিকেলে আলমকে ময়মনসিংহ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তোলা হয়। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক। এর আগে, বৃহস্পতিবার রাতে নিজ বাড়ি থেকে আলমকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ফুলপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, বড় বোনকে বিয়ের পর থেকেই আলমের কুদৃষ্টি পড়ে শ্যালিকার ওপর। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দিতেন আলম। চার মাস আগে শ্যালিকা প্রাইভেট পড়তে কলেজের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। ওই সময় তাকে অপহরণ করেন দুলাভাই। বিষয়টি জানতে পেরে আলমের মায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেন মেয়ের পরিবার। এরপর শ্যালিকাকে ফেরত দেবেন বলে জানান আলম। কিন্তু চার মাস পার হলেও ফেরত দেননি। শ্যালিকাকে আলম বিয়ে করেছেন বলেও লোকমুখে শোনা যাচ্ছিল। এছাড়া দুই বোনই এখন অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনায় ফুলপুর থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগীর স্বজনরা। পরে আলমকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন আরো বলেন, ভুক্তভোগীকে আদালতে হাজির করলে বাবার হেফাজতে দেন বিচারক। এখন দুই বোনই বাবার হেফাজতে রয়েছেন।