ব্রেকিং:
কেন মানুষ প্রথম প্রেম ভুলতে পারে না বৃষ্টিপাত নিয়ে আজ যে দুঃসংবাদ জানালো আবহাওয়া অফিস আমরা এক দেশপ্রেমিক জননেতাকে হারালাম : প্রধানমন্ত্রী স্কুলে কোরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করলো পাকিস্তান ধারণার চেয়েও ভয়ঙ্কর করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি আশপাশের শ্রমিকদের দিয়েই চলবে কারখানা হেলেনার বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় আরেক মামলা সিনহা হত্যার এক বছর: ‘প্রদীপের’ নিচেই ছিল অন্ধকার বিশ্বব্যাপী করোনায় মুত্যু কমলেও বেড়েছে আক্রান্ত চালু হতে না হতেই রোগীদের দখলে দুই হাসপাতালের ১৪ আইসিইউ বিশ্বের সাইবার সিকিউরিটির জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি যুক্তরাষ্ট্র: চী বিষ দিয়ে যুবককে হত্যা করলেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে বাফুফের তামাশা, শুরুর এক ঘণ্টা আগে স্থগিত জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকা ব্যক্তিরা টিকা পাবেন বিশেষ প্রক্রিয়ায় দর্শকশূন্য ব্যতিক্রমধর্মী ‘ইত্যাদি’ আজ বাংলাদেশে বিনিয়োগে সর্বোচ্চ মুনাফা কৃষিতে ২৮ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে ব্যাংকগুলো মাঠ পর্যায় থেকেই ভূমির ভুল রেকর্ড সংশোধনের নির্দেশ সামাজিক মাধ্যমে অপরাধ দমনে সাইবার পেট্রোলিং টিম
  • শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮

  • || ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

কুমিল্লায় এক সপ্তাহে মৃত্যু ৭০

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২০ জুলাই ২০২১  

করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ফেরিয়েন্ট বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে কুমিল্লায়ও বেড়েছে মৃত্যু ও সংক্রামিত রোগীর সংখ্যা। গত এক সপ্তাহে কুমিল্লায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ৭০জনের মৃত্যু ঘটেছে। সংক্রামিত হয়েছে আরও ৩ হাজার ৪২৯ জন।


জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে প্রাপ্ততথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়- করোনা মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত কুমিল্লায় ৬০৮ জনের মৃত্যু ঘটেছে। এর মধ্যে শুধুমাত্র গত এক সপ্তাহে ১৩ জুলাই থেকে ১৯ জুলাই পর্যন্ত কুমিল্লায় ৭০জনের মৃত্যু ঘটেছে! যা অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে বেশি। গত এক সপ্তাহের মধ্যে ১৪ জুলাই সর্বোচ্চ ১৬ জনের এবং ১৮ জুলাই ১৩জনের মৃত্যু ঘটেছে। সর্বশেষ ১৯ জুলাই সর্ব শেষে ২৪ ঘন্টায় ৮জনের মৃত্যু নিশ্চিত করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।


এদিকে, গত ১ জুলাই থেকে টাকা ১৪ দিনের ‘কঠোর লকডাউন’ শেষে মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজাহা উপলক্ষে সাত দিনের জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবকিছু উন্মুক্তের সিদ্ধান্ত আসে সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে। কিন্তু কোরবানীর পশুর হাট থেকে শুরু করে কোথাও স্বাস্থ্য বিধি মানার তোয়াক্কা না থাকায় পবিত্র ঈদুল আজাহার পর সারা দেশের সাথে ভারতীয় সীমান্তবর্তী জেলা কুমিল্লাতেও করোনা সংক্রামণ বৃদ্ধির আশঙ্কা রয়েছে বলে মনে করেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।


কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সাবেক পরিচালক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মুজিবুর রাহমান জানান-  ঈদের দুই সপ্তাহ পর কুমিল্লাসহ সারা দেশে করোনার তৃতীয় ঢেউ শুরু হবে। এতে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাও ভেঙ্গে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ যারা স্বাস্থ্য বিধি মানে না এবং যারা টিকা গ্রহণ করে নাই, তারা মূলত করোনা ভাইরাস সংক্রামণের কারাখানা। সরকার এক সপ্তাহের জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে লকডাউন শিথিল করায় হাট-বাজারে স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষা করে মানুষের অবাধ বিচরণ দেখে মনে হয় যেন, করোনা দেশ থেকে চলে গেছে। ধর্মীয় উৎসবে স্বাস্থ্য বিধিমেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলার পরামর্শ দেন ওই চিকিৎসক।


এ ব্যাপারে কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মীর মোবারক হোসেন জানান- সাধারণ মানুষের মনে এখনও সচেতনতা সৃষ্টি হয়নি। শতভাগ মাস্ক পড়াও নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে না। হাট-বাজারে মানুষের অবাধ বিচরণের ফল ভোগ করতে হতে পারে ঈদের পরবর্তী সময়ে। সেক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মানার বিকল্প নেই।