ব্রেকিং:
আমরা এক দেশপ্রেমিক জননেতাকে হারালাম : প্রধানমন্ত্রী স্কুলে কোরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করলো পাকিস্তান ধারণার চেয়েও ভয়ঙ্কর করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি আশপাশের শ্রমিকদের দিয়েই চলবে কারখানা হেলেনার বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় আরেক মামলা সিনহা হত্যার এক বছর: ‘প্রদীপের’ নিচেই ছিল অন্ধকার বিশ্বব্যাপী করোনায় মুত্যু কমলেও বেড়েছে আক্রান্ত চালু হতে না হতেই রোগীদের দখলে দুই হাসপাতালের ১৪ আইসিইউ বিশ্বের সাইবার সিকিউরিটির জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি যুক্তরাষ্ট্র: চী বিষ দিয়ে যুবককে হত্যা করলেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে বাফুফের তামাশা, শুরুর এক ঘণ্টা আগে স্থগিত জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকা ব্যক্তিরা টিকা পাবেন বিশেষ প্রক্রিয়ায় দর্শকশূন্য ব্যতিক্রমধর্মী ‘ইত্যাদি’ আজ বাংলাদেশে বিনিয়োগে সর্বোচ্চ মুনাফা কৃষিতে ২৮ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে ব্যাংকগুলো মাঠ পর্যায় থেকেই ভূমির ভুল রেকর্ড সংশোধনের নির্দেশ সামাজিক মাধ্যমে অপরাধ দমনে সাইবার পেট্রোলিং টিম মাদকের বস্তি উচ্ছেদ করে ১৪০ কোটি টাকার জমি দখলমুক্ত জাতীয় রপ্তানি পদক পাচ্ছে যে ৬৬ প্রতিষ্ঠান
  • শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮

  • || ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি নিয়ে রাজস্ব আদায়ের শীর্ষে কুমিল্লা ভ্যাট কমিশন

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৬ জুলাই ২০২১  

বিদায়ি অর্থবছরের শেষ মাসে ৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি নিয়ে কুমিল্লা ভ্যাট কমিশনারেট রাজস্ব আদায়ে শীর্ষে রয়েছে। এনবিআরের অধীন দেশের ১২টি ভ্যাট কমিশনারেটের কারও গত জুন মাসের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি। গত মে মাসে ভ্যাট অনলাইন রিটার্ন জমায় টানা দশবার সেরা হয় কুমিল্লা। সেপ্টেম্বর ২০২০-এ বছরের সেরা মাসিক ১৫৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধিও কুমিল্লার। করোনা মহামারিতে নিজেদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করে এতসব ব্যতিক্রমী অর্জন- এর পেছনে রয়েছে কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরীর নিবিড়, দক্ষ নেতৃত্ব, সার্বক্ষণিক তদারকির কারণে এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। গতকাল এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

কুমিল্লা ভ্যাট কমিশনারেটের অভাবিত এ সাফল্যের নেপথ্যে রয়েছে দেড় শতাধিক কর্মকর্তার নিরন্তর চেষ্টা, ভ্যাট প্রদানে মানুষকে উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত করা। এরই ধারাবাহিকতায় একজন রাজস্ব কর্মকর্তা জানতে পারেন বকেয়া টাকা দেওয়ার মতো সামর্থ্য জনৈক ইটভাটা মালিকের নেই। তখন রাজস্ব কর্মকর্তা তার পরিচিত একজনের কাছে পরবর্তী সিজনের ইট অগ্রিম বিক্রি করিয়ে দেন। বিক্রীত ৯ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা করান।

আরেক রাজস্ব কর্মকর্তা মৃত ব্যক্তির স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে সন্তানদের বোঝান। মরহুমের রেখে যাওয়া ২৭ বছরের পুরনো বকেয়া সাড়ে ৯ লাখ টাকা আদায় করেন। চাঁদপুর জেলখানার জেলারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ৭ লাখ টাকা বকেয়া আদায়।

এনবিআরের চেয়ারম্যান আবু হেনা রাহমাতুল মুনিম মুজিববর্ষ ও মহামারিতে চ্যালেঞ্জ গ্রহণের জন্য আহ্বান এবং বছরব্যাপী সার্বক্ষণিক তদারকি অব্যাহত রাখেন। এই অর্থবছরেই কুমিল্লা বিগত সব অর্থবছরের রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চ রাজস্ব আদায় করেছে। করোনাকালেও গত অর্থবছরে রাজস্ব আদায় করেছে ৩ হাজার ১৩৪ কোটি টাকা।

এর আগে কুমিল্লা কমিশনারেটের ইতিহাসে এক অর্থবছরে সর্বোচ্চ রাজস্ব আদায় ছিল ২৯৫৪ কোটি টাকা (২০১৮-১৯ অর্থবছর)। চলতি জুন ’২১ মাসে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের জুন নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা ৩৬৯ কোটির বিপরীতে ৫১০ কোটি টাকা আদায়। এ কমিশনারেটের সর্বোচ্চ রাজস্ব আদায় হয় আবুল খায়ের টোব্যাকো কোম্পানি লিমিটেড থেকে। সদর দফতর, কুমিল্লা ও ৬টি বিভাগে (কুমিল্লা, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া) রাজস্ব আদায়ের জন্য পৃথক টাস্কফোর্স গঠন করে রাজস্ব আদায় নিশ্চিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরী বলেন, মহামারিতে আগের বছরের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখা কঠিন। সেখানে আমাদের প্রবৃদ্ধি ৬২ শতাংশ। ভয়কে জয় করে অর্জনকে এ পর্যায়ে নেওয়া সহজ ছিল না। একটি ব্যতিক্রমী পরিশ্রমী কর্মপ্রবণ উদ্যমী দলের পক্ষে এমন অর্জন সম্ভব। অর্থবছরের প্রথম থেকে দেড়শ সদস্যের টিমকে ৪৭টি জুম সভায় প্রশিক্ষিত ও নিবিড় মনিটরিং করা হয়েছে। প্রশিক্ষিত টিমের সদস্যরা নিরন্তর সেবা দিয়ে রাজস্ব আদায় নিশ্চিত করেছে।

সার্কেলগুলোর মধ্যে লাল-হলুদ-সবুজের সুস্থ প্রতিযোগিতার অভূতপূর্ব সাফল্যের অন্যতম কারণ। টিমের সদস্যরা রাত ১১টা পর্যন্ত মাঠে-অফিসে থেকে সাফল্য তালিকার ওপরে আসতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। কমিশনারেটের অধীন ১৬টি সার্কেল ও ৬টি বিভাগের সবাই আন্তরিক ছিল।