ব্রেকিং:
ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য নিকলীর বিকল্প বিজয়নগর বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গোৎসব সম্পন্ন প্রশংসায় ভাসছেন নোয়াখালী এসপি দল থেকে বিদায় নেওয়ার জন্য আমি প্রস্তুত : শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিকেলে কুমিল্লায় চেয়ারম্যানের গাড়িতে গুলি আফ্রিকায় শান্তিরক্ষা মিশনে প্রাণ গেল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জসিমের নভেম্বরের শেষের দিকে জাপান সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী টিকার বুস্টার ডোজ পেলেন সাড়ে ৫ কোটির বেশি মানুষ সন্ধ্যার মধ্যে ন্যাশনাল গ্রিড চালু করার চেষ্টা করছি সরকারি সফরে সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন সেনাবাহিনী প্রধান ঢাকায় আসছেন ব্রুনাইয়ের সুলতান মোবাইলের লক খুলতে গিয়েই ধরা পড়ল ডাকাত প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন সুবর্ণচরে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বসতভিটা দখলের অভিযোগ দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৩ মাস বাড়বে না ভোজ্যতেলের দাম টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ টার্মিনাল ছাড়া মহাসড়কে টোল আদায় করা যাবে না যৌনপল্লী চালান বিজেপি নেতা!
  • শনিবার   ০৮ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২৩ ১৪২৯

  • || ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফেসবুক অযথা স্ক্রল করতে নিষেধ করলেন জাকারবার্গ

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২  

বেশির ভাগ সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই ব্যয় করেন ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও মার্ক জাকারবার্গ। তিনি বলেন, আমি চাই না মানুষ কোনো কারণ ছাড়াই কম্পিউটারের সামনে বসে অযথা সময় পার করুক। বরং স্ক্রিনে যে সময়টা দিচ্ছে তা যেন অর্থবহ ও সঠিক ব্যবহার হয়।

মার্ক জাকারবার্গ শুধু স্ক্রল করতে করতে সময় অপচয় করেন না তিনি। জাকারবার্গ মনে করেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যখন যোগাযোগের ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়, তখন এটি খুবই ভালো।

সম্প্রতি জো রোগান এক্সপেরিয়েন্স পডকাস্টে এ বিষয়ে কথা বলেন মেটার সিইও। তিনি বলেন, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও টুইটারের মতো প্ল্যাটফর্মগুলো ব্যবহারকারীদের উপকারে আসতে পারে, যদি এসব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্রাথমিকভাবে অন্যদের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনে ব্যবহৃত হয়।

তিনি আরো বলেন, আপনি যদি সেখানে শুধু বসে থাকেন এবং যা দেখেন তাই গ্রহণ করেন তাহলে হবে না। এটা একেবারেই অপ্রয়োজনীয় বলছি না। কিন্তু মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক বা যোগাযোগ গড়ে তুললে অবশ্যই ইতিবাচক সুবিধা পাবেন।

জাকারবার্গ দাবি করেছেন, ফেসবুক ও মেটাভার্স নিয়ে তার লক্ষ্য, মানুষকে ইন্টারনেটে আরো বেশি সময় ব্যয় করতে দেওয়া নয়। বরং তিনি চান ইতিবাচক কোনো কাজে ইন্টারনেটে প্রত্যেকের সময়কে আরো সক্রিয় করে তোলার জন্য।

শুধুমাত্র জাকারবার্গই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অতিরিক্ত ব্যবহারকে নিরুৎসাহিত করেছেন তা নয়। গবেষকরা বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অত্যধিক ব্যবহার কিছু ব্যবহারকারীদের মধ্যে বিষণ্নতা এবং উদ্বেগ সৃষ্টি করতে পারে। তবে বিশেষজ্ঞরা আরো বলেন যে, এটি শুধুমাত্র তখনই সত্য যদি লোকেরা অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ না করে শুধুমাত্র স্ক্রল করার জন্য প্ল্যাটফর্ম হিসেবে ব্যবহার করে।