ব্রেকিং:
আন্দোলনকারীরা বক্তব্য দিতে চাইলে আপিল বিভাগ বিবেচনায় নেবেন সচেতনতার অভাবে অনেক মানুষ বিভিন্ন দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে : ডিএমপি গমের উৎপাদন বাড়াতে সিমিট ও মেক্সিকোর সহযোগিতা জনদুর্ভোগ সৃষ্টি থেকে বিরত থাকুন : আরাফাত বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে সমাজসেবা অধিদপ্তরের পরিচালকের শ্রদ্ধা মোদির সাথে বিমসটেক পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাক্ষাত গাজায় শান্তি রক্ষা করবে আরব যৌথ বাহিনী: বাইডেন কোটা আন্দোলন প্রশ্নে আইনমন্ত্রী কি বললেন? ‘পুলিশের গুলিতে কোনো শিক্ষার্থী মারা যায় নি" ভারত থেকে আমদানি হলো ১১টি বুলেটপ্রুফ সামরিক যান সৌদি আরবে হামলার হুমকি, স্পর্শকাতর স্থানের ভিডিও প্রকাশ পরকীয়া করতে গিয়ে ধরা, সেই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বহিষ্কার বাংলাদেশ-চীনের মধ্যে ২১ চুক্তি ও সাত ঘোষণাপত্র সই লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে প্রযুক্তি বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা ঝিনুকে তৈরি মুক্তার গহনা প্রধানমন্ত্রীর হাতে লক্ষ্মীপুরে হাত-পা বেঁধে প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যার পর ডাকাতি নোয়াখালীতে প্রকৌশলীসহ সেই চার শিক্ষক কারাগারে নোয়াখালীতে পরীক্ষা হলে হট্টগোল-খোশগল্প চট্টগ্রামে এডিসি কামরুল ও তার স্ত্রীর সম্পদ ক্রোকের আদেশ
  • শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

  • || ০৫ মুহররম ১৪৪৬

বিড়ালের উপদ্রবে অতিষ্ঠ নোবিপ্রবির বঙ্গমাতা হলের ছাত্রীরা

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০২৪  

বিড়ালের আক্রমণ ও উপদ্রবে আতঙ্কিত হয়ে দিন পার করছে বলে অভিযোগ নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সম্প্রতি হলের একাধিক শিক্ষার্থী বিড়ালের কামড়ের শিকার হয়েছেন। বিড়াল গুলো ভ্যাকসিনেটেড না হওয়ায় টিকা নিতে হয়েছে কামড় ও আছড়ের শিকার হওয়া শিক্ষার্থীদের। বিড়াল রেবিস ভাইরাসের বাহক হওয়ার সম্ভাবনা থাকাই বাকি শিক্ষার্থীরাও আতঙ্কে দিন পার করছেন।

শিক্ষার্থীরা জানায়, পোষা প্রাণীর মধ্যে বিড়াল অন্যতম। বিড়ালের বন্ধুসুলভ আচরণ ও বিভিন্ন উপকারিতার কারণে অনেকেই বিড়াল পোষেন শিক্ষার্থীরা। আবার অনেকে শখ করে আদর-যত্ন দিয়ে বিড়াল লালন-পালন করেন। তবে নোবিপ্রবির বঙ্গমাতা হলে বিড়ালের উৎপাতে নানান যন্ত্রণা পোহাতে হচ্ছে বলে জানান শিক্ষার্থীরা।

খোঁজ নিয়ে আরও জানা যায়, গত দু-সপ্তাহ ধরে বিড়ালের অত্যাচার অসহনীয় হয়ে উঠেছে। কোন সময় খাবারে মুখ দিয়ে খাবার নষ্ট করে আবার কোন সময় বিছানার ওপর মলমূত্র ত্যাগ করে। এছাড়াও গায়ের ওপর দিয়ে চলে যাওয়া, বাজার-তরকারি নষ্ট করা, প্রার্থনা কক্ষ নোংরা করা সহ আরও নানান সমস্যার সৃষ্টি করেছে। যা নিয়ে হলের শিক্ষার্থীদের মাঝে চরম অসন্তোষ কাজ করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী তাদের এই অসন্তোষের কথা জানিয়েছে। হলটির এক শিক্ষার্থী বলেন, রাতে আমি ঘুমাচ্ছিলাম। গরমের কারণে জানালা একটু খোলা ছিল। হঠাৎ ঘুম ভেঙে দেখি বিড়াল ঠিক আমার গায়ের উপরে। যেহেতু আমি ঘুমে ছিলাম আমি ভয় পেয়ে হাত নাড়া দেই। তাতে বিড়াল আমাকে আঁচড় ও কামড় দিয়ে চলে যায়। এখন ভ্যাক্সিন দিতে হবে। বিড়ালের কামড়ে ৬টা ভ্যাক্সিন নিতে হয়। এক সপ্তাহ আগে রুমমেট আপুর বিড়ালের কামড়ে ভ্যাক্সিন নিতে হয়েছে। আমারা আরও কিছু ফ্রেন্ড এই হলেরই ক-দিনের মধ্যেই এই বিড়ালের কারণে ভ্যাক্সিন নিয়েছে। একটার পর একটা ল্যাব, সিটি দিতে হচ্ছে। যেহেতু সেমিস্টারের আগের মাস। এর মধ্যে বিড়ালের কামড়ের জন্য এখন আমাকে ভুগতে হচ্ছে।

বিড়ালের এই ভোগান্তি থেকে বাঁচতে তারা হল প্রশাসনের নিকট অনুরোধ করেছেন। শিক্ষার্থীরা জানায় দ্রুত এই সমস্যার সমাধান না হলে বিড়ালগুলো আরও বেশি ক্ষতি করতে পারে। তাই বিড়ালগুলোকে হল থেকে অন্যত্র স্থানান্তরের দাবি জানান তারা।

এ বিষয়ে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট ড. মোহাম্মদ মহিনুজ্জামান বলেন, বিড়াল আগে আমাদের হলের অনেক মেয়েরা পালতো, বিষয়টি জানার পর আমি নোটিশ দিয়েছিলাম কেউ পোষা কোনো প্রাণী পালতে পারবে না। এরপরও কেউ কেউ পালতো। তবে সম্প্রতি ঘটনাগুলোর কারণে আমি ইতোমধ্যে নোটিশ দিয়েছি। কারও কাছে কোনো পোষা প্রাণী যদি পাওয়া যায় আমরা তার বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেব। যেহেতু আগের বিড়ালগুলো অনেকগুলো বাচ্চা দিয়েছে তাই আমি স্টাফদের বলেছি বিড়ালগুলো ধরে নিয়ে গিয়ে অনেকদূরে কোথাও রেখে আসতে। সেটার অভিযান শুরু হয়েছে। আশা করছি আমাকে কয়েকদিন সময় দিলে আমরা বিড়ালগুলোকে হল থেকে বের করতে পারবো।