ব্রেকিং:
ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য নিকলীর বিকল্প বিজয়নগর বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গোৎসব সম্পন্ন প্রশংসায় ভাসছেন নোয়াখালী এসপি দল থেকে বিদায় নেওয়ার জন্য আমি প্রস্তুত : শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিকেলে কুমিল্লায় চেয়ারম্যানের গাড়িতে গুলি আফ্রিকায় শান্তিরক্ষা মিশনে প্রাণ গেল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জসিমের নভেম্বরের শেষের দিকে জাপান সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী টিকার বুস্টার ডোজ পেলেন সাড়ে ৫ কোটির বেশি মানুষ সন্ধ্যার মধ্যে ন্যাশনাল গ্রিড চালু করার চেষ্টা করছি সরকারি সফরে সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন সেনাবাহিনী প্রধান ঢাকায় আসছেন ব্রুনাইয়ের সুলতান মোবাইলের লক খুলতে গিয়েই ধরা পড়ল ডাকাত প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন সুবর্ণচরে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বসতভিটা দখলের অভিযোগ দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৩ মাস বাড়বে না ভোজ্যতেলের দাম টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ টার্মিনাল ছাড়া মহাসড়কে টোল আদায় করা যাবে না যৌনপল্লী চালান বিজেপি নেতা!
  • শনিবার   ০৮ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২৩ ১৪২৯

  • || ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিয়ে বাড়িতে হাজির ইউএনও : বর গেলেন জেলে, কাজি পলাতক

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২  

নোয়াখালীর চাটখিলে বাল্যবিবাহ করতে গিয়ে বর শাহাদাত হোসেনকে (২৮) এক মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় একই অপরাধে কনের বাবা মিজানুর রহমানকে (৪০) ৬ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ঘটনার পর স্থানীয় কাজি বিয়ের আসর থেকে পালিয়ে যান।

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) উপজেলার রামনারায়ণপুর ইউনিয়নের বৈকুন্ঠপুর গ্রামের পাটওয়ারী বাড়িতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরানুল হক ভূঁইয়া এ দণ্ডাদেশ দেন।

জানা যায়, নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার রামনারায়ণপুর ইউনিয়নের ১৪ বছরের অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিবাহের আয়োজন চলছিল একই গ্রামের শাহাদাত হোসেনের সঙ্গে। খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সত্যতা পায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। খবর জানতে পেরে পালিয়ে যান স্থানীয় কাজী।

এ সময় আদালত বাল্যবিবাহের আয়োজন বন্ধ করে দেন এবং বর শাহাদাত হোসেনকে এক মাসের ও মেয়ের বাবা মিজানুর রহমানকে ৬ মাসের কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

পাশাপাশি আদালত মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না এবং ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বর ওই কিশোরীকে বিয়ে করবেন না মর্মে মুচলেকা নেওয়া হয়।

চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরানুল হক ভূঁইয়া ঢাকা পোস্টকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, বাল্য বিবাহ হচ্ছে এই তথ্য পেয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। কনের বাবা মেয়ের বাল্যবিবাহ দিচ্ছেন বলে স্বীকার করেন। তারপর ২০০৭ সালের বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে কনের বাবাকে ৬ মাসের এবং বরকে এক মাসের কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করি।

মো. ইমরানুল হক ভূঁইয়া আরও বলেন, অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে বাল্যবিবাহের কুফল ও এর আইনগত ব্যবস্থা সম্পর্কে সচেতন করা হয়েছে। বাল্যবিবাহ বন্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ সময় রামনারায়নপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ বাহার ও স্থানীয় ইউপি সদস্য মিজানুর রহমানসহ চাটখিল থানার পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।