ব্রেকিং:
কোটাবিরোধীতায় অশুভ শক্তি নেমেছে : ওবায়দুল কাদের প্রান্তিক মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে সব করব : সামন্ত লাল চোরাই মোবাইলের স্বর্গরাজ্য চট্টগ্রামের রিয়াজউদ্দিন বাজার বৃষ্টির পানিতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ২ ফার্নিচার কর্মচারীর মৃত্যু ২২ কেজির কোরাল বিক্রি হলো ২৬ হাজার টাকায় আন্দোলনরত শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকে ওবায়দুল কাদের প্রতিবন্ধী তরুণকে কুকুর লেলিয়ে হত্যা করল ইসরায়েলি সেনারা ফেনী বন্যাদুর্গত ৭০০ পরিবার পেলো ত্রাণ সামগ্রী এক সপ্তাহে ৭৪১১ কোটি টাকা বাজার মূলধন হারালো ডিএসই রাজধানীতে পিতার ১ কোটি ৬৬ লাখ টাকা চুরি করলেন মেয়ে নৈশ প্রহরীকে বেঁধে বাজারে দুর্ধর্ষ ডাকাতি পচা কাঠের পোকা, দাম ৭৫ লাখ! জানেন কেন? দেশে ফিরেছেন ৬৭৯৭৪ হাজি সারাদেশে ইন্টারনেটে ধীরগতি আন্দোলনকারীরা বক্তব্য দিতে চাইলে আপিল বিভাগ বিবেচনায় নেবেন সচেতনতার অভাবে অনেক মানুষ বিভিন্ন দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে : ডিএমপি গমের উৎপাদন বাড়াতে সিমিট ও মেক্সিকোর সহযোগিতা জনদুর্ভোগ সৃষ্টি থেকে বিরত থাকুন : আরাফাত বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে সমাজসেবা অধিদপ্তরের পরিচালকের শ্রদ্ধা
  • রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

তেঁতুল ও কচুর লতি নিয়ে গবেষণার আহ্বান

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০২৩  

রোগ প্রতিরোধে পুরোনো ও প্রচলিত বিষয়গুলোর ওপর গবেষণায় গুরুত্বারোপ করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এক সময় শোনা যেত তেঁতুল খেলে ডায়াবেটিস কমে এবং কচুর লতি খেলে শরীরে আয়রণের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। এ রকম অনেক কথা প্রচলিত রয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে থিসিস করা যেতে পারে এবং গবেষণা করা যেতে পারে।

বৃহস্পতিবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) পরিদর্শনের সময় চিকিৎসকদের উদ্দেশে তিনি এ কথা বলেন।

শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, তেঁতুল ও কচুর লতিসহ এসব নিয়ে গবেষণা থেকে প্রাপ্ত জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে ভালো কিছু আবিষ্কার করা যেতে পারে। এর মাধ্যমে মানুষকে মূল্যবান পরামর্শ দেওয়া যেতে পারে। এভাবে পুরোনো ও প্রচলিত বিষয়ে গবেষণা করে প্রাপ্ত ফলকে কাজে লাগিয়ে মানুষের স্বাস্থ্য রক্ষায় ও রোগ প্রতিরোধে অবদান রাখা যেতে পারে।

তিনি বলেন, বিএসএমএমইউয়ে ভালো থিসিস ও গবেষণার জন্য পুরস্কারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দেশের বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ ও ইনস্টিটিউটগুলোতেও অনুরূপ ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে।

উপাচার্য বলেন, যেসব বিষয়ে বেশি সংখ্যক বিশেষজ্ঞ প্রয়োজন সেসব বিষয়ে বেশি সংখ্যক বিশেষজ্ঞ তৈরি করা এবং কোর্সের সংখ্যা বৃদ্ধি করার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের যথাযথ কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এসময় বিএসএমএমইউয়ের প্রক্টর রেনাল ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জন ইউরোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুর রহমান দুলাল, ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. শাহ আলম ও সহকারী প্রক্টর মো. ফারুক হোসেনসহ ঢামেকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।