ব্রেকিং:
আজ থেকে বিপিএলে থাকছে ‘বিকল্প ডিআরএস’ কমিউনিটি ক্লিনিকে আরো বিনিয়োগ প্রয়োজন: পরিকল্পনামন্ত্রী এবার আইপিএলের সব খেলা এক শহরে! মৌসুমী ঝড়ে আফ্রিকার তিনদেশে নিহত ৭০ জুমার দিনে যে আমল করলে ৮০ বছরের গুনাহ মাফ হবে কুমিল্লায় জনপ্রিয় হচ্ছে সমলয় পদ্ধতিতে ধান চাষ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে কাদের মির্জার ৯ প্রার্থীর অভিযোগ বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল সাড়ে ৫৬ লাখ, শনাক্ত সাড়ে ৩৬ কোটি লক্ষ্যমাত্রার ৭ ভাগ আমন সংগ্রহ হয়েছে ফেনীতে নৌকা ঠেকাতে আনারসে ভোট চাইলেন এমপি একরামুল মসজিদের ৭ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্লাস্টিকের লেমিনেশন ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা চিলির মাঠে মেসিহীন আর্জেন্টিনার দাপুটে জয় কোম্পানীগঞ্জে এক বস্তা দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার প্রাথমিকে অনলাইনে ক্লাসসহ ৬ নির্দেশনা সরকারি ব্যাংকের সব নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত চাঁবিপ্রবির জমি অধিগ্রহণে অনিয়মের খবর ভিত্তিহীন: শিক্ষামন্ত্রী ১৫ বছরের গোপন সম্পর্ক, কথা না রাখায় দেবরের ঘরে অনশনে ভাবি পার্কে প্রেমিককে জুতাপেটা, আটক করে টাকা নিলেন মেম্বার আখাউড়ায় পাঁচ মাদক সেবনকারীর কারাদণ্ড
  • শুক্রবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৫ ১৪২৮

  • || ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ডলারের দাম খুব বেশি বাড়বে না ॥ অর্থমন্ত্রী

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০২২  

চড়া বাজারে দাম উঠানামা করলেও ডলারের দাম খুব বেশি বাড়ার সম্ভাবনা দেখছেন না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।বুধবার সরকারি ক্রয় এবং অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি একথা বলেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে এক ডলারের বিনিময় হার ৮৬ টাকা। তবে খোলাবাজারে সর্বোচ্চ ৯০ টাকাতেও লেনদেন হচ্ছে ডলার।

চাহিদা বেশি থাকায় বেশ কিছু দিন থেকে ডলারের দাম চড়া। গত কয়েক মাসে ডলারের দাম এক নাগাড়ে বেড়েই যাচ্ছে বলে গণমাধ্যমে খবর এসেছে। এক বছরের বেশি সময় ধরে একটু একটু করে দর বাড়ছে।

২০২০ সালের ২৭ অক্টোবর আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে ডলার বিক্রি হয়েছিল ৮৪ টাকা ৮০ পয়সায়। ২০২১ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর তা লেনদেন হয় ৮৫ টাকা ৩৫ পয়সায়। এক মাসের ব্যবধানে ২৭ অক্টোবর তা আরও বেড়ে ৮৫ টাকা ৬৫ পয়সা হয়। এখন তা ৮৬ টাকায় পৌঁছেছে।

বরাবরই আন্তঃব্যাংক বাজারের চেয়ে খোলাবাজারে ডলারের দাম বেশি থাকে।ডলারের বাজার চড়া থাকার বিষয়ে বুধবার অর্থমন্ত্রী বলেন, কার্ব মার্কেটের সঙ্গে আমাদের ডলারের দামে কিছুটা পার্থক্য আছে সেটা স্বীকার করছি।

“মূল্যস্ফীতির পরিমাণ অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যখন আমরা বাইরে থেকে মালামাল কিনি দরের কারণে সেই মালামালের দামটা বাড়ে। যেহেতু রপ্তানি বাড়ছে, রপ্তানি করতে গিয়ে আমদানিও বাড়ছে। এসব কারণে কার্ব মার্কেট ও অফিসিয়াল মার্কেটে দামটা উঠানামা করছে।“

এটা সারা বছরই হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, এটা কোনো সমস্যা নয়। আমরা তো এটা ক্যাপিং করে দেইনি। এটা ফ্লেক্সিবল থাকবে। কিন্তু সেটা অনেক বেশি পার্থক্য আমরা দেখতে পাব না। এটা অনেক বেশি উঠানামা করবে না।

“আমাদের মুদ্রানীতি এবং বার্ষিক আর্থিক নীতি অনেক বেশি এলায়েন। সেকারণে আমাদের এখানে বেশি একটা বাড়ার কোনো রকম সম্ভাবনা নেই।’’