ব্রেকিং:
কেন মানুষ প্রথম প্রেম ভুলতে পারে না বৃষ্টিপাত নিয়ে আজ যে দুঃসংবাদ জানালো আবহাওয়া অফিস আমরা এক দেশপ্রেমিক জননেতাকে হারালাম : প্রধানমন্ত্রী স্কুলে কোরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করলো পাকিস্তান ধারণার চেয়েও ভয়ঙ্কর করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি আশপাশের শ্রমিকদের দিয়েই চলবে কারখানা হেলেনার বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় আরেক মামলা সিনহা হত্যার এক বছর: ‘প্রদীপের’ নিচেই ছিল অন্ধকার বিশ্বব্যাপী করোনায় মুত্যু কমলেও বেড়েছে আক্রান্ত চালু হতে না হতেই রোগীদের দখলে দুই হাসপাতালের ১৪ আইসিইউ বিশ্বের সাইবার সিকিউরিটির জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি যুক্তরাষ্ট্র: চী বিষ দিয়ে যুবককে হত্যা করলেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে বাফুফের তামাশা, শুরুর এক ঘণ্টা আগে স্থগিত জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকা ব্যক্তিরা টিকা পাবেন বিশেষ প্রক্রিয়ায় দর্শকশূন্য ব্যতিক্রমধর্মী ‘ইত্যাদি’ আজ বাংলাদেশে বিনিয়োগে সর্বোচ্চ মুনাফা কৃষিতে ২৮ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে ব্যাংকগুলো মাঠ পর্যায় থেকেই ভূমির ভুল রেকর্ড সংশোধনের নির্দেশ সামাজিক মাধ্যমে অপরাধ দমনে সাইবার পেট্রোলিং টিম
  • শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮

  • || ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

ইভ্যালি-আলিশা মার্টদের নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৮ জুলাই ২০২১  

দেশে ব্যবসা পরিচালনাকারী ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানদের নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যেসব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান বর্তমানে ব্যবসা করছে এবং আগামীতে ব্যবসা করতে আসবে তাদের অবশ্যই বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধন নিতে হবে। 

রোববার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ই-কমার্স ব্যবসার উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে অনুষ্ঠিত এক জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ  সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধনের পর প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানের একটি বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (বিআইএন) থাকবে, যা বিটিআরসিকে জানাতে হবে। প্রয়োজন হলে বিটিআরসি তাদের ওয়েবসাইট, ফেসবুক পেজ বন্ধ করতে পারে।

বাণিজ্য সচিব বলেন, ই-কমার্স ব্যবসার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় যে নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে সংশ্নিষ্ট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো তা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করছে কিনা তা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। কোনো প্রতিষ্ঠান নির্দেশিকা না মানলে বা বাস্তবায়ন করতে না পারলে প্রথমে সেইসব প্রতিষ্ঠানকে কারণ দর্শানোর (শোকজ) নোটিশ দেওয়া হবে। প্রতিষ্ঠানগুলোর জবাব সন্তোষজনক না হলে তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

বাণিজ্য সচিব আরো বলেন, একই সঙ্গে নির্দেশিকা বাস্তবায়নে ব্যর্থ প্রতিষ্ঠানের ব্যবসা পরিকল্পনা বা পদ্ধতিও দেখা হবে। কোনো প্রতিষ্ঠানের ব্যবসা পদ্ধতি দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী বৈধ না হলে সেগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে। আগামী ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যে নির্দেশিকা অমান্যকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে নোটিশ দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ব্যাংক, আইসিটি বিভাগ, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, যৌথ মুলধনী কোম্পানি ও ফার্মসমুহের অধিদফতরের প্রতিনিধিরা।