ব্রেকিং:
আন্দোলনকারীরা বক্তব্য দিতে চাইলে আপিল বিভাগ বিবেচনায় নেবেন সচেতনতার অভাবে অনেক মানুষ বিভিন্ন দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে : ডিএমপি গমের উৎপাদন বাড়াতে সিমিট ও মেক্সিকোর সহযোগিতা জনদুর্ভোগ সৃষ্টি থেকে বিরত থাকুন : আরাফাত বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে সমাজসেবা অধিদপ্তরের পরিচালকের শ্রদ্ধা মোদির সাথে বিমসটেক পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাক্ষাত গাজায় শান্তি রক্ষা করবে আরব যৌথ বাহিনী: বাইডেন কোটা আন্দোলন প্রশ্নে আইনমন্ত্রী কি বললেন? ‘পুলিশের গুলিতে কোনো শিক্ষার্থী মারা যায় নি" ভারত থেকে আমদানি হলো ১১টি বুলেটপ্রুফ সামরিক যান সৌদি আরবে হামলার হুমকি, স্পর্শকাতর স্থানের ভিডিও প্রকাশ পরকীয়া করতে গিয়ে ধরা, সেই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বহিষ্কার বাংলাদেশ-চীনের মধ্যে ২১ চুক্তি ও সাত ঘোষণাপত্র সই লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে প্রযুক্তি বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা ঝিনুকে তৈরি মুক্তার গহনা প্রধানমন্ত্রীর হাতে লক্ষ্মীপুরে হাত-পা বেঁধে প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যার পর ডাকাতি নোয়াখালীতে প্রকৌশলীসহ সেই চার শিক্ষক কারাগারে নোয়াখালীতে পরীক্ষা হলে হট্টগোল-খোশগল্প চট্টগ্রামে এডিসি কামরুল ও তার স্ত্রীর সম্পদ ক্রোকের আদেশ
  • শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৮ ১৪৩১

  • || ০৫ মুহররম ১৪৪৬

কুমিল্লায় ছুরিকাঘাতে যুবক খুন

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৫ জুলাই ২০২৩  

কুমিল্লা সদর উপজেলার মাঝিগাছা এলাকায় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে সহিদুল ইসলাম কাউছার (২২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৪ জুলাই) বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে মাঝিগাছা সিঙ্গাপুর গলির রাস্তার মাথা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত কাউছার কুমিল্লা নগরীর মুন্সেফ কোয়ার্টার এলাকার নোয়াব আলী মুন্সি বাড়ির শওকত হোসেনের পুত্র। তারা কালিয়াজুড়ি এলাকায় ভাড়া থাকতো বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র বলছে, টাকা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে শুক্রবার বিকেল তিনটার দিকে ১০/১২ জন যুবক কাউসারকে ব্যাপক মারধর ও ছুরিকাঘাত করে। মারাত্মক আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

যদিও অপর একটি সূত্র বলছে, মাদক ও জুয়ার টাকা ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরেই এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। যদিও পুলিশ এ বিষয়টি নিশ্চিত করেনি। পুলিশ বলছে, কি কারণে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছেÑ তারা খোঁজে বের করা হবে। জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) কামরান হোসেন বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম কাজ করছে। কাউসারের মরদেহ কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

তিনি বলেন, শুনেছি আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু কিসের আধিপত্য তা এখনো আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। আমাদের তদন্ত চলছে, কেন এই হত্যাকাণ্ডÑতা বের করে জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে।

নিহত কাউসারের মা পান্না বেগম জানান, বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে হৃদয় নামে একজন ফোন করে কাউসারকে নিয়ে যায়। এরপর বিকাল চারটার দিকে পাখি নামে অপর একজন কাউসারের বড়ভাই কাজলকে ফোন করে জানায় কারা যেনো কাউসারকে মারধর করেছে এবং তাকে কুচাইতলী (কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল) নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরপর আমরা হাসপাতালে গিয়ে দেখি কাউসারের লাশ পড়ে আছে।
তিন্নি কান্না জড়িত কণ্ঠে সন্তান হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।