ব্রেকিং:
কেন মানুষ প্রথম প্রেম ভুলতে পারে না বৃষ্টিপাত নিয়ে আজ যে দুঃসংবাদ জানালো আবহাওয়া অফিস আমরা এক দেশপ্রেমিক জননেতাকে হারালাম : প্রধানমন্ত্রী স্কুলে কোরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করলো পাকিস্তান ধারণার চেয়েও ভয়ঙ্কর করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি আশপাশের শ্রমিকদের দিয়েই চলবে কারখানা হেলেনার বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় আরেক মামলা সিনহা হত্যার এক বছর: ‘প্রদীপের’ নিচেই ছিল অন্ধকার বিশ্বব্যাপী করোনায় মুত্যু কমলেও বেড়েছে আক্রান্ত চালু হতে না হতেই রোগীদের দখলে দুই হাসপাতালের ১৪ আইসিইউ বিশ্বের সাইবার সিকিউরিটির জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি যুক্তরাষ্ট্র: চী বিষ দিয়ে যুবককে হত্যা করলেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে বাফুফের তামাশা, শুরুর এক ঘণ্টা আগে স্থগিত জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকা ব্যক্তিরা টিকা পাবেন বিশেষ প্রক্রিয়ায় দর্শকশূন্য ব্যতিক্রমধর্মী ‘ইত্যাদি’ আজ বাংলাদেশে বিনিয়োগে সর্বোচ্চ মুনাফা কৃষিতে ২৮ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে ব্যাংকগুলো মাঠ পর্যায় থেকেই ভূমির ভুল রেকর্ড সংশোধনের নির্দেশ সামাজিক মাধ্যমে অপরাধ দমনে সাইবার পেট্রোলিং টিম
  • শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮

  • || ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

টিকটক-লাইকি সিন্ডিকেটের ৪০ গ্রুপ শনাক্ত, হচ্ছে সাঁড়াশি অভিযান

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২১  

অশ্লীল ভিডিও তৈরিত জড়িত লাইকি ও টিকটকার সিন্ডিকেটের কমপক্ষে ৪০টি গ্রুপের সন্ধান পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তাদের বিরুদ্ধে শিগগির সাঁড়াশি অভিযান শুরু হচ্ছে।

লাইকি ও টিকটকের এসব অশ্লীল ভিডিও দেখে তরুণ-তরুণীসহ শিশুরা বিপথে যাচ্ছে। এ অবস্থায় ওই সব টিকটক ও লাইকি নির্মাণকারী এবং এসব প্ল্যাটফর্মে অভিনয়কারীদের শনাক্ত করতে মাঠে নেমেছে পুলিশ ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,  তরুণ-তরুণীরা মিলে অশ্লীল ও উদ্ভট ভঙ্গিমার দৃশ্য ধারণ করে বানানো হচ্ছে টিকটক-লাইকির কনটেন্ট। পরে অ্যাপ ব্যবহার করে এসব প্রচার করা হচ্ছে। এসব লাইকি ও টিকটক তৈরির ক্ষেত্রে প্রতিটি গ্রুপের একজন অ্যাডমিন থাকে। সেই অ্যাডমিনের প্রতিটি গ্রুপে ১০ থেকে ১৫ জন তরুণ-তরুণী কাজ করে। এ পর্যন্ত ৪০টি গ্রুপের সন্ধান পাওয়া গেছে। আর তাতে পাঁচ শতাধিক তরুণ-তরুণী জড়িত।

এ প্রসঙ্গে র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, টিকটক-লাইকিসহ বিতর্কিত অ্যাপগুলো নিষিদ্ধ করার সময় এসেছে। 

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের রাজনৈতিক ও আইসিটি বিভাগের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, টিকটক নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করছে। টিকটক অ্যাপ বন্ধের কাজটা করবে আইসিটি মন্ত্রণালয়। তবে আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে তা বন্ধ করতে কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি। এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তও হয়নি। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে যাদের চিহ্নিত করা গেছে, তাদের আইনের আওতায় আনার কাজ চলছে।

তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, লাইকি, টিকটক, ইমো, মাইস্পেস, ফেসবুক, ইউটিউব, স্ট্রিমকার, হাইফাইভ, বাদু ইত্যাদি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কী ধরনের অপরাধ হচ্ছে, তা নজরদারি করা হচ্ছে। 

এক কর্মকর্তা বলেন, টিকটক অ্যাপ ব্যবহার করে তৈরি হচ্ছে টিকটক হৃদয়, অপু, সজীব, নয়ন বন্ড, সুজন ফাইটারের মতো অপরাধীরা। এসব কিশোর গ্যাং যৌন হয়রানি, যৌন নিপীড়ন, চাঁদাবাজি, ছিনতাই-রাহাজানি থেকে শুরু করে হত্যাকাণ্ডের মতো বড় অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। অনলাইনভিত্তিক এসব গ্যাং কালচার রোধে সাইবার নজরদারি করা হচ্ছে। পৃথিবীর কোন কোন দেশে টিকটক-লাইকির মতো অ্যাপ বন্ধ করেছে এবং করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে, সেগুলো পর্যালোচনা করা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে আগামী সপ্তাহে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি বৈঠক রয়েছে। সেই বৈঠকে এসব বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, ভারতে গ্রেফতার হওয়া টিকটক হৃদয় একটি গ্রুপের অ্যাডমিন। গত বছরের শেষের দিকে সেই গ্রুপের মাধ্যমে গাজীপুরের একটি রিসোর্টে ৭০০ থেকে ৮০০ তরুণ-তরুণী পুল পার্টিতে অংশ নেয়। তরুণ-তরুণীরা পরস্পরের সঙ্গে পরিচিত হয়ে মূলত টিকটক ভিডিও তৈরি করতে গিয়ে একটি ফেসবুক গ্রুপে সংযুক্ত হয়। এরপর তাদের ভারতে পাচারও করে তারা। সম্প্রতি এক তরুণী ভারতের বন্দিদশা থেকে মুক্ত হয়ে দেশে ফিরে হাতিরঝিল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। সেই মামলায় এ পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, লাইকি-টিকটক সুস্থ কোনো বিনোদন হতে পারে না। এগুলো বন্ধ করার সময় এসেছে। যারা এগুলো চালাচ্ছে, তাদের আমরা খুঁজে বের করছি। আমরা তদন্তে নেমে এরই মধ্যে পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছি।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের প্রধান খন্দকার আল মঈন বলেন, টিকটক-লাইকির নামে যারা অশ্লীল ভিডিও তৈরি করছে, তাদের বিষয়ে তথ্য নেয়ার জন্য দেশের সব ব্যাটালিয়নকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এসবের সঙ্গে জড়িতদের তালিকা করা হচ্ছে। জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, আপনারা তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন। তথ্যদাতাদের নাম-পরিচয় গোপন রাখা হবে।

যেভাবে তৈরি হয় টিকটক : টিকটক অপু (ইয়াসিন আরাফাত অপু) গত বছরের ২ আগস্ট ঢাকার উত্তরায় কয়েক বন্ধুসহ সড়ক বন্ধ করে দিয়ে টিকটক তৈরির জন্য ভিডিও করছিলেন। সেখানে একজনের গাড়ি আটকে যায়। পরে তার সঙ্গে অপুর মারামারির ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে উত্তরা পূর্ব থানায় সেই গাড়িচালকের করা মামলায় গ্রেফতার হন অপু। তার তৈরি করা সেই টিকটক ভিডিওতে দেখা যায় রঙিন চুল ঝাঁকিয়ে অপু বলছেন—‘নামটা শুধু মনে রেখো, অপু বাই...।’ এটুকু বলে আরেকটা হাসি দেন। এভাবেই ছোট্ট ভিডিওর মাধ্যমে তৈরি হয়ে যায় টিকটক আইটেম। 

ভারতের কেরালায় সম্প্রতি বাংলাদেশি এক তরুণী নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ওই ভিডিওতে থাকা তরুণদের গ্রেফতারের পর জানা যায় যে এ ঘটনার হোতা হৃদয়। তিনি ‘টিকটক হৃদয়’ নামে পরিচিত। তাকে গ্রেফতারের পর নতুন করে আলোচনায় আসে টিকটক নামের অ্যাপটি। দেশে মূলত তরুণদের মধ্যে এ দুটি অ্যাপের ব্যবহারকারীর পরিধি ক্রমেই বাড়ছে। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজধানী ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জেই লাইকি ও টিকটক গ্রুপের সংখ্যা বেশি। সম্প্রতি তা প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলেও ছড়িয়ে পড়েছে। গাজীপুরে টিকটক-লাইকি বানানোর জন্য একদল তরুণী ভাড়ায় পাওয়া যায়। তারা নিয়মিত এসব অশ্লীল ভিডিওতে কাজ করে। প্রতিটি কনটেন্টের জন্য তারা এক থেকে দুই হাজার টাকা নিয়ে থাকে। 

টিকটক ভিডিও নির্মাতাদের একজন রোহান আলম বলেন, টিকটক-লাইকি তৈরির জন্য তরুণীদের আলাদা গ্রুপ রয়েছে। অল্প টাকা দিয়ে তাদের অভিনয় করানো যায়।