ব্রেকিং:
আন্দোলনকারীরা বক্তব্য দিতে চাইলে আপিল বিভাগ বিবেচনায় নেবেন সচেতনতার অভাবে অনেক মানুষ বিভিন্ন দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে : ডিএমপি গমের উৎপাদন বাড়াতে সিমিট ও মেক্সিকোর সহযোগিতা জনদুর্ভোগ সৃষ্টি থেকে বিরত থাকুন : আরাফাত বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে সমাজসেবা অধিদপ্তরের পরিচালকের শ্রদ্ধা মোদির সাথে বিমসটেক পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাক্ষাত গাজায় শান্তি রক্ষা করবে আরব যৌথ বাহিনী: বাইডেন কোটা আন্দোলন প্রশ্নে আইনমন্ত্রী কি বললেন? ‘পুলিশের গুলিতে কোনো শিক্ষার্থী মারা যায় নি" ভারত থেকে আমদানি হলো ১১টি বুলেটপ্রুফ সামরিক যান সৌদি আরবে হামলার হুমকি, স্পর্শকাতর স্থানের ভিডিও প্রকাশ পরকীয়া করতে গিয়ে ধরা, সেই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বহিষ্কার বাংলাদেশ-চীনের মধ্যে ২১ চুক্তি ও সাত ঘোষণাপত্র সই লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে প্রযুক্তি বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা ঝিনুকে তৈরি মুক্তার গহনা প্রধানমন্ত্রীর হাতে লক্ষ্মীপুরে হাত-পা বেঁধে প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যার পর ডাকাতি নোয়াখালীতে প্রকৌশলীসহ সেই চার শিক্ষক কারাগারে নোয়াখালীতে পরীক্ষা হলে হট্টগোল-খোশগল্প চট্টগ্রামে এডিসি কামরুল ও তার স্ত্রীর সম্পদ ক্রোকের আদেশ
  • শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

  • || ০৫ মুহররম ১৪৪৬

অবসরের পর যে কাজে যুক্ত হওয়ার ইঙ্গিত দিলেন সেনাপ্রধান

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৬ জুন ২০২৪  

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ ভালবেসে সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়ে সফলতার সঙ্গে চাকরীজীবন শেষ করার পর শিক্ষকতা করার ইঙ্গিত দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমরা পারিবারিকভাবে শিক্ষাকে ভালবাসি। সুযোগ খুঁজবো, মানুষ গ্রহণ করলে শিক্ষকতার সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করবো।’

শনিবার (১৫ জুন) দুপুরে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার মল্লিকপুর ইউনিয়নে বাবার নির্মিত সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সাথে নিজের বর্ণাঢ্য কর্মজীবন ও অবসরকালীন সময়ের পরিকল্পনা প্রসঙ্গে এসব কথা বলেন তিনি।

জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘১৯৮১ সালে সেনাবাহিনীর পোশাক গায়ে জড়িয়েছি। দীর্ঘ কর্মজীবনে পোশাকটি পরতে পরতে শরীরের চামড়ার মত হয়ে গেছে, খুলতে হবে ভাবলেই মনটা খারাপ হয়! খুশি এই জন্য, ভালবেসে সেনাবাহিনীতে যোগদান করেছিলাম। সফলতার সাথে এত বছর চাকরি করে এবং এই বাহিনীর শীর্ষ পদে অর্পিত দায়িত্ব সুন্দরভাবে পালন করে শেষ করছি।’

অবসর সময়ের পরিকল্পনা প্রসঙ্গে সেনাপ্রধান বলেন, ‘শিক্ষকতা পেশা আমার খুবই পছন্দের। আমার বাবা শিক্ষক ছিলেন, আমার মেয়ে মেডিকেল কলেজে শিক্ষকতা করছেন, আমার ছোট বোনও সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। আমরা পারিবারিকভাবে শিক্ষাকে ভালবাসি। সুযোগ খুঁজবো, মানুষ গ্রহণ করলে শিক্ষকতার সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করবো।’

তিনি আরো বলেন, ‘যে জ্ঞান অর্জন করেছি তার কোন মূল্য থাকবে না যদি অন্যদের মাঝে বিতরণ করতে না পারি।’

দুপুরে হেলিকপ্টার যোগে নড়াইল পৌঁছান সেনাপ্রধান। ট্রাস্ট ব্যাংকের লোহাগড়া শাখার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করে ব্যাংকটি ঘুরে দেখেন তিনি। পরে মধুমতি আর্মি ক্যাম্পে স্থানীয়দের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ শেষে তার বাবা অধ্যাপক শেখ মো. রোকন উদ্দিন আহমেদের নির্মিত সরকারি মল্লিকপুর ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন।

এসময় সেনাবাহিনীর ঊর্ধতন কর্মকর্তাসহ লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ দেশের ১৭তম সেনাপ্রধান হিসেবে তিন বছরের জন্য ২০২১ সালের ২৪ জুন দায়িত্ব গ্রহণ করেন।