ব্রেকিং:
নোয়াখালীতে ঢাবির সাবেক শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা নোয়াখালী সদরে মণপ্রতি ১০৪০ টাকা দরে ধান কেনা শুরু গোপনে শেয়ার বিক্রি, তালিকা করবে ডিএসই ঈদকে ঘিরে নতুন টাকা বিনিময় শুরু যদিও চ্যালেঞ্জিং,তবু পারবে বাংলাদেশ গতি বেড়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সুন্দরবনে বেড়েছে বাঘের সংখ্যা জার্মানি পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি ফের শীর্ষ অলরাউন্ডার সাকিব! ধানক্ষেতে আগুনের ঘটনা খতিয়ে দেখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর চাল আমদানি কমাতে শুল্ক বাড়ল দ্বিগুণ স্থগিত ৫ উপজেলায় ভোট ১৮ জুন থেমে গেল খা‌লিদ হো‌সেনের সুর সাধনা নিজের ‘দ্বিতীয় বাবা’ শাহরুখ, জানালেন অভিনেত্রী নিজেই! আর্জেন্টিনার কোপা আমেরিকার দল ঘোষণা জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় সক্ষম হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব কোরআন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের সংবর্ধনা জানাবে ছাত্রলীগ গণতন্ত্র বিকাশে গণমাধ্যম কার্যকর ভূমিকা রাখছে: স্পিকার দেশে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড ‘জাল’ প্রতিরোধে ১০০০ টাকার নতুন নোট

শুক্রবার   ২৪ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৬   ১৯ রমজান ১৪৪০

সর্বশেষ:
আন্ত-অভিযানে স্থলবাহিনীর সক্ষমতা বৃদ্ধি মোদি ম্যাজিকে বাজিমাত বিজেপির সঙ্গীতশিল্পী খালিদ হোসেনের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক ১৬ জনকে আসামি করে নুসরাত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগপত্র প্রস্তুত অনলাইনে পণ্য বিক্রির নামে প্রতারণা চক্রের সাত সদস্য আটক পাঁচ বছরের মধ্যে দেশে শতভাগ ইন্টারনেট: পলক
৫৪২

২০৩০ সালের মধ্যে ভারতের চেয়ে ধনী হবে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০১৯  

আগামী এক দশকে অর্থনীতির সূচকে প্রতিবেশি দেশ ভারতের চেয়ে বাংলাদেশ ধনী হয়ে উঠবে বলে গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডের গবেষণায় বলা হয়েছে, অর্থনীতির বিচারে আগামী দশকে এশিয়ার এবং এই মহাদেশের দেশগুলোর তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান হবে খুবই উল্লেখযোগ্য। দু’হাজার বিশ দশকে এশিয়ার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হবে সাত শতাংশ এবং পুরো দশক ধরে এই ধারা অব্যাহত থাকবে। এশিয়ার এই দেশগুলো হচ্ছে বাংলাদেশ, ভারত, ভিয়েতনাম, মিয়ানমার এবং ফিলিপিন।ব্যাঙ্কের ভারত-ভিত্তিক গবেষণা শাখার প্রধান মাধুর ঝা এবং সারা বিশ্বে ব্যাংকটির প্রধান অর্থনীতিবিদ ডেভিড ম্যান এই গবেষণা পরিচালনা করেছেন।

তারা তাদের গবেষণায় বলেছেন, ২০৩০ সালের মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটবে সবচেয়ে বেশি কারণ এসব দেশের লোকসংখ্যা হবে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার এক পঞ্চমাংশ।

এই বিশাল জনসংখ্যা ভারতের জন্য আশীর্বাদ হয়ে দাঁড়াবে। অন্যদিকে স্বাস্থ্য ও শিক্ষাখাতের বিনিয়োগ থেকে সুফল পেতে শুরু করবে বাংলাদেশ। যা তাদের উৎপাদনশীলতা বাড়াতে সাহায্য করবে।

 

 

গবেষণায় বলা হয়েছে, এশিয়াতে এই পরিবর্তন ঘটতে শুরু করেছে ২০১০ সাল থেকে। তখন থেকেই স্ট্যানডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এশিয়ার এই দেশগুলোর অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির উপর নজর রাখতে শুরু করে।

গবেষণায় আরো বলা হয়েছে, মাথাপিছু আয়ের হিসেবে আগামী এক দশকে ভারতকে ছাড়িয়ে যাবে বাংলাদেশ। তারই এক হিসেব দিতে গিয়ে ব্যাংকটি বলছে, বর্তমানে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় যেখানে ১,৬০০ ডলার সেখানে ২০৩০ সালে এই আয় দাঁড়াবে ৫,৭০০ ডলার।

এই একই সময়ে ভারতে মাথাপিছু আয় হবে ৫,৪০০ ডলার। যদিও বর্তমানে ভারতে মাথাপিছু আয় বাংলাদেশের চেয়েও বেশি। ২০১৮ সালে ভারতে মাথাপিছু আয় ছিল ১,৯০০ ডলার। 

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর