ব্রেকিং:
অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী আর্জেন্টিনার এমন অসহায় আত্মসমর্পণ কেন? ২১ দিন বন্ধের পর সুপ্রিম কোর্ট খুলছে আজ মুর্তজার মৃত্যুদণ্ড বাতিল করল সৌদি আরব ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি’ আজ বিশ্ব বাবা দিবস বিয়ের প্রলোভনে মাদ্রাসা শিক্ষিকাকে ধর্ষন হাতকড়াসহ আসামির পলায়ন পাদুকা শিল্পে উৎসাহিত করতে বিশেষ সুবিধা মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ২ হাজার টাকা বৃদ্ধি গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ ৫০ কোটি টাকা পদ্মা সেতুসহ ১০ মেগা প্রকল্পে বরাদ্দ ৩৯ হাজার কোটি টাকা শিশুদের জন্য ৮০ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট কৃষি যান্ত্রিকীকরণে ভর্তুকি বাড়বে একশটি অর্থনৈতিক অঞ্চলের মাধ্যমে ১ কোটি কর্মসংস্থান নারী উন্নয়নে বরাদ্দ বেড়েছে ২৩ হাজার ৫০৫ কোটি টাকা শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে মোট বাজেটের ১৫ দশমিক ২ শতাংশ ঢাকার পূর্বাচলে ৬০ হাজার ফ্ল্যাট তৈরির পরিকল্পনা প্রতিবন্ধীদের নিয়োগ দিলেই কর রেয়াত রেলপথ মন্ত্রণালয়ে ১৬ হাজার ৩৫৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব

রোববার   ১৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৩ ১৪২৬   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

সর্বশেষ:
শেয়ারবাজারের লেনদেন শুরু হচ্ছে আজ অফিস-আদালতে ঈদের আমেজ হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রফতানি শুরু আলজেরিয়ায় কোরআন মুখস্থ করলে জেল থেকে মুক্তি হাইভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি ভারত-অস্ট্রেলিয়া পাসওয়ার্ড: ‘বিশ্বমানের’ সিনেমা কি এমন হয়?
১১

১০ বছর পর কামালকে ফিরে পেল পরিবার

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯  

মাথায় জটলা চুল, গায়ে মোটা দুইটি কাঁথা জড়ানো আর পরনে ছেড়া লুঙ্গি। মানসিক ভারসাম্যহীন একটি পাগলের সঙ্গে বেশ পরিচিত নেত্রকোনার দুর্গাপুরে বাসিন্দরা। নাম কি, কোথায় থাকে বা কোথা থেকে দুর্গাপুর এসেছে তার কোনো কিছুই জানে না কেউ। অনেকের কাছেই সে মামা নামে পরিচিত।
প্রায় সময় পৌর শহরের কালী বাড়ি মোড়, নাজিরপুর মোড়সহ বিভিন্ন এলাকায় মানুষের থেকে ‘এ মামা দশ টাকা দিয়ে জান’ বলে টাকা নিতেও দেখা যায় তাকে। রাত হলেই উপজেলার সদর ইউপির ফারাংপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মেঝেতে থাকেন তিনি। ওই এলাকার মানুষরাও যেনো তার কাছের মানুষ হয়ে গেছেন। সকাল বা রাতে শহরের যে কেউই খাবার খেতে দেয় তাকে।

গত শনিবার (৮ জুন) দুপুরে গাজীপুরের শ্রীপুর এলাকার জাহিদ হাসান নামে এক যুবক এই পাগলকে দেখে গ্রামে হারিয়ে এক ব্যক্তির সঙ্গে মিল পান। এসময় ছবি তুলে ওই ব্যক্তির পরিবারের সদস্যদের কাছে পাঠানো হয়। পরে সোমবার দুর্গাপুর এসে হাতের কাটা আঙ্গুল দেখে পাগলের নাম কামাল মিয়া বলে শনাক্ত করে তার ভাই ডা. মো. মাহবুব আলম। 

পবিবার সূত্র বলছে, গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার সাংগুড় নানদিয়া গ্রামের শামসুর ইসলাম ফকিরের ছেলে কামাল মিয়া। ২০০৯ সালে বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরে যায়নি কামাল। চার ভাই, এক বোন আর মাকে নিয়ে তার পরিবার। পরিবারের দ্বিতীয় সন্তান কামাল। ছোট থেকে পড়াশুনা অনেক ভালো থাকলেও বাবা মারা যাওয়ার পর পরিবার এলোমেলো হয়ে যায়।

আর তখনই হঠাৎ পাড়ার খারাপ ছেলেদের সঙ্গে মাদক সেবন ও বিভিন্ন মাজার যেতে শুরু করে কামাল। একদিন দুইদিন করে বাড়তে শুরু করে তার বাহিরে থাকার প্রবনতা। সঙ্গে হারিয়ে ফেলে মানসিক ভারসাম্যতা। সেসময় একদিন বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরেনি কামাল। বিভিন্ন এলাকায় খোঁজাখুজি করেও তারা কোনা খবর পায়নি পরিবারের সদস্যরা। সবাই যেনো কামালের ফিরে আশা একেবারেই ছেড়ে দিয়েছিল। 

এর মাঝে গত শনিবার পরিবারের সদস্যরা আবারো জানতে পারে হারিয়ে যাওয়া কামাল এখনো বেঁচে আছে। পাগল হয়ে ঘুরছে দুর্গাপুরের অলিগলিতে। বিষয়টি জেনে আবারো আশায় বুক বাধতে শুরু করে ছেলে হারা মা রাবেয়া খাতুন।

বড় ভাইকে ফিরিয়ে নিতে দুর্গাপুর আসেন ছোট ভাই ডা. মো. মাহববু আলমসহ বন্ধুরা। সোমবার দুপুর থেকে দুর্গাপুরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তেরি বাজার ঘাটে দেখা পায় তার। দেখেই ছোট ভাইকে চিনতে পারে কামাল। স্থানীয় পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলার বাদল মিয়ার সহযোগিতায় পাগল ভাইকে দুর্গাপুর থানায় নেয় মাহবুব। সেখানে গিয়ে সব তথ্য দেয়ার পর কামালের পরিচয় নিশ্চিত করে পরিবারের সদস্যরা।

মাহবুর আলম জানান, প্রায় ১০ বছর আগে বাড়ি থেকে হারিয়ে যায় আমার ভাই। আমরা বিভিন্ন স্থানে তার খোঁজ করেও কোনা খবর পাইনি তার। সবশেষে আমরা আমাদের ভাইকে খুঁজে পেয়ে অনেক খুশি। আবারো তাকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আনার জন্য সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা করবো।

দুর্গাপুর থানার ওসি মিজানুর রহমান জানায়, প্রায় ১০ আগে হারিয়ে যান কামাল। বিভিন্ন জায়গা ঘুরে সবশেষে দুর্গাপুরে এসে থেকে যান কামাল। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে এখানেই ছিলেন তিনি। পরিবারের দেয়া তথ্যের ভিত্তি গাজীপুরের শ্রীপুর থানা, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ এলাকার বিভিন্ন ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে কামাল তাদেই পরিবারের সদস্য। আর তাদের দেয়া আবেদনের প্রেক্ষিতে পরিবারের সদস্যদের ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। 

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর