ব্রেকিং:
২৪ ঘণ্টায় অজ্ঞান পার্টির ৬৫ সদস্যকে গ্রেফতার প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার নতুন সূচি আজ অফিস করবেন ওবায়দুল কাদের অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন স্কট মরিসন দক্ষ ডাক্তার-নার্সের অভাব রয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ১০ হাজার ৮৫ শিক্ষক ধানে আগুন: খারাপ চোখে না দেখার আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর ভয়েস কলের দিন প্রায় শেষ: মোস্তাফা জব্বার মৌসুমী অপরাধী ধরতে তৎপর ডিবি পুলিশ লোকসভার শেষ ধাপের ভোটগ্রহণ চলছে জুলাই থেকে ১০ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট যুবলীগ নেতাকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা নোয়াখালীতে ঘুর্ণিঝড়ে লন্ডভন্ড অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি বিআরটিসির ঈদ টিকিট বিক্রি শুরু ২০ মে রোববার থেকে অফিস করবেন ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগ শুধু রাজনৈতিক দল নয়, প্রতিষ্ঠানও বটে: প্রধানমন্ত্রী ইফতার শেষে ঢাকায় কালবৈশাখী, নিহত ৪ অবশেষে অধরার দেখা মিলল ডাবলিনে ঐতিহাসিক জয়ে টাইগারদের রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন চালু হলো কেবল ছাড়া টিভি দেখার প্রযুক্তি

রোববার   ১৯ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৬   ১৪ রমজান ১৪৪০

সর্বশেষ:
আজ ১৭ মে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ১৯৮১ সালের এই দিনে প্রায় ছয় বছরের নির্বাসিত জীবন শেষে দেশে ফিরে আসেন তিনি। শেখ হাসিনার মতো রাষ্ট্রনায়ক পেয়ে আমরা ভাগ্যবান: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন প্রয়োজনে ভর্তুকি দিয়ে বেশি দামে ধান কিনে হলেও কৃষককে ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে অর্থমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। ফিরছে ফেসবুকে বন্ধ হয়ে যাওয়া গ্রুপগুলো ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালের আগে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ও সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজাকে ফোন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
১২৫

হেলেপড়া ভবনসহ আরো ১৫ বাড়ি ভাঙার অভিযোগ

প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

কামরাঙ্গীরচরের খলিফাঘাটের কাজীর পাড়ার হেলে পড়া পাঁচতলা ভবন ভেঙে ফেলার সময় নিরাপদ দুরুত্বে থাকা আরো প্রায় ১২ থেকে ১৫টি বাড়ি ভাঙার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে লাখ লাখ টাকার ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন বলে দাবি ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর।

এসব বাড়ি গুলি ছিল আধা-পাকা দ্বিতল ভবন ও টিনসেডের। যেখানে প্রায় শতাধিক ঘর ছিল। এসব বাড়িতে জুতার, ডাস্টার, পুতুল তৈরির কারাখানাসহ বিভিন্ন কারখানা ও অনেক নিম্ন আয়ের মানুষ বসবাস করতেন। বাড়িগুলো ভেকু দিয়ে একেবারে গুড়িয়ে দেয়ায় শতশত পরিবার এখন নিঃস্ব।  

বুধবার দুপুরে সরেজমিন প্রতিবেদনে গেলে বাড়ির মালিক ও ভুক্তভোগিরা এই অভিযোগ করেন।

মো. আকবর হোসেন ও মো. হোসেন নামে দুই ভাই জানান, এখানে তাদের একটি দ্বিতল আধা-পাকা বাড়ি ছিল। বাড়িতে ১৪টি ঘর ছিল। সেখানে নিম্ন আয়ের লোকজন ভাড়া থাকতো। বাড়িটি হেলেপড়া ভবন থেকে নিরাপদ দুরুত্বেই ছিল। মঙ্গলবার রাত ৮টার সময় হঠাৎ তারদের বাড়িটি ভেকু দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হয়। বাড়ির ভেতরে মানুষের আসবাবপত্র ফ্রিজ, টিভি, আলমারি, কাঠের ফার্নিচারসহ প্রয়োজনীয় কাপড়র-চোপড় কিছুই বের করতে পারেনি। এক কথায় মানুষজন শুধু তাদের পরনের কাপড় পরেই বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। তারা এখন নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। প্রশাসন তাদেরকে না জানিয়েই এবং কোনো সময় না দিয়েই তাদের বাড়ি ভেঙে ফেলছে। এতে তারা কয়েক লাখ টাকার ক্ষতির সন্মুখিন হয়েছে। আমরা সরকারে কাছে এ ব্যাপারে ক্ষতিপূরন দাবি করছি।

 

 

মো. আহাদ জানান, তাদের এখানে দ্বিতল আধা-পাকা একটি বাড়ি ছিল। সেখানে ২৬টি ঘর ছিল। এই বাড়িতে কয়েকটি জুতার কারখানা ও নিম্ন আয়ের মানুষ ভাড়ায় বসবাস করতো। তাদের বাড়ি ভেঙে ফেলার জন্য কোনো সময়ও দেয়া হয়নি এবং বাড়ি ভাঙার আগে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো নোটিশ বা সতর্কবানী দেয়া হয়নি। হঠাৎ করেই তাদের বাড়িটি ভেঙে ফেলায় মানুষজন তাদের ঘর থেকে কোন জিনিসপত্র বের করতে পারেনি। বাড়ি ভেঙে ফেলায় আমার প্রায় ১৫ থেকে ২০ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। আমরা সরকারের কাছে এ ব্যাপারে ক্ষতিপূরণ দাবি করছি।

আলতাফ হোসেন নামে জুতার কারখানার এক ম্যানেজার জানান, এখানে ১০ থেকে ১২টি জুতার কারখানা ছিল। কারখানাগুলোতে প্রায় ১২ থেকে১৫ লাখ টাকার মালামাল, নগদ টাকা ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছিল। কাউকে না জানিয়ে হঠাৎ কারখানাগুলো ভেঙে ফেলায় তারা সেখান থেকে কিছুই বের করতে পারেননি। এতে সব কিছু হারিয়ে তারা এখন পথে বসেছে। 

আধা-পাকা টিনসেড বাড়ির মালিক মো. অপু মিয়া জানান, তার বাড়িতেই একটি জুতার কারখানা ছিল। আমার আয়ের একমাত্র উৎস ছিল এটি। এখানে ৫ লাখ টাকার মালামাল ছিল। মাত্র কয়েক মিনিট সময় দিলে আমরা সব মালামাল বের করতে পারতাম। কিন্তু কোনো সময় না দিয়েই আমার বাড়িটি ভেঙে ফেলে সবকিছু ধ্বংস করে ফেলা হয়েছে। 

তিনি আরো জানান, হেলেপড়া ভবনটি যেখানে ২৩ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময়ের মধ্যে তাদের সরে যেতে বলা হলে তারা দ্রুত অন্যত্র সরে যেতে পারতো। কিন্তু প্রশাসন তাদেরকে কিছুই বলেনি। 

মনোয়ার বেগম নামে এক পুতুল কারখানার মালিক কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, এখানে তার একটি কারখানা ছিল। সেখানে ৫টি সেলাই মেশিন ও পুতুল তৈরির মালামাল ছিল। সব মিলিয়ে সেখানে ৫ থেকে ৬ লাখ টাকার মালপত্র ছিল। একমাত্র তাদের আয়ের উৎস ছিল এটি। কিন্তু মুহুর্থের মধ্যে তার কারখানা ভেকুদিয়ে গুড়িয়ে দেয়। তার দুই ছেলে মেশিন ও মালপত্রগুলো বের করার কন্য একটু সময় চাইলে তাকে উল্টো হুমকি দেয়া হয়।

 

 

এ ব্যাপারে ৫৬ নং ওয়ার্ড কমিশনার মোহাম্মদ হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নিরাপত্তার জন্য হেলে পড়া ভবনের আশেপাশের বাড়ির গুলোর মানুষজনকে দ্রুত অন্যত্র সরে যেতে বলা হয়েছে। ঘিঞ্চি জায়গায় হেলেপড়া ভবনটিকে ভেঙে ফেলার জন্য ভেকু ও প্রয়োজনীয় গাড়ি ভেতরে প্রবেশের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কিছু বাড়িঘর ভাঙা পড়েছে। 

ঘটনাস্থলে দ্বায়িত্বরত কামরাঙ্গীরচর থানার এএসআই মো. রবিউল হোসেন জানান, হেলেপড়া ভবনটিকে ভেঙে ফেলার জন্য ভেতরে প্রয়োজনীয় গাড়ি প্রবেশের জন্য হয়তো কিছু বাড়িঘর ভাঙা পড়েছে। 

উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার রাতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন, রাজউক ও বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে হেলেপড়া ভবনটি ভেঙে ফেলা হয়েছে।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর