ব্রেকিং:
মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদ তামিমার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার !!! করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আরো ৮ মৃত্যু পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ চা উৎপাদনে বৃহত্তর চট্টগ্রামকে ছাড়িয়ে গেছে পঞ্চগড় আলোর ফেরিওয়ালা পলান সরকারের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ আধুনিক পুলিশ মোতায়েন হবে তিন পার্বত্য জেলায় জট খুলেছে ড্রাইভিং লাইসেন্সের ঋণ নিয়ে নয়ছয় করলে কঠোর শাস্তি আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে অপরাধী শনাক্তে র‌্যাব এনেছে ওয়াইভিএস বেসরকারি ভবে বন্ধ পাটকল চালুর নীতিতে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি জেলাপর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয় করে দিচ্ছে সরকার :প্রধানমন্ত্রী ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের দেয়া সুযোগ-সুবিধায় ওআইসি’র সন্তোষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটির আদেশ জারি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সতর্কতার সঙ্গে কাজ করতে বলেছে সংসদীয় কমিটি আজ থেকে দুই মাস ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ শুরু হলো অগ্নিঝরা মার্চ ২৭ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জয়, বিএনপি একটিতে ৩১ লাখ ছাড়াল দেশে করোনা টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা ই-নামজারি অটোমেশন ও ভূমি উন্নয়ন কর ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা
  • মঙ্গলবার   ০২ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৮ ১৪২৭

  • || ১৭ রজব ১৪৪২

হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় ডিমের সাদা অংশ

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

সহজ ও পুষ্টিকর খাবার হিসেবে অনেকেই বেছে নেন ডিম। এটি তৈরি করা সহজ বলেই প্রায় প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ডিম রাখেন অনেকেই। এছাড়া দৈনিক সকালের নাস্তায় অনেকে ডিম ছাড়া কিছু ভাবতেই পারেন না। ডিম স্বাস্থ্যের জন্যও খুব উপকারী

নানা ভাবেই ডিম রান্না করে খাওয়া যায়। যেমন- ডিম ওমলেট, রান্না, সিদ্ধ, পোচ ইত্যাদি। অনেকেই আবার ডিমের কোরমা কিংবা কারি খেতেও ভালোবাসেন। এক কথায় সবভাবেই ডিম খাওয়া যায়। তবে ডিমের কুসুমের চেয়ে সাদা অংশ খাওয়ার রয়েছে অনেক উপকারিতা।

>> ডিমে থাকা পটাশিয়াম রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা কমায় এবং উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটির তথ্য অনুযায়ী, ডিমের সাদা অংশে পেপটাইড নামে একটি উপাদান থাকে যা উচ্চ রত্তচাপের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। এছাড়া এটি হৃদরোগের ঝুঁকিও কমায়।

>> ডিমের সাদা অংশে প্রয়োজনীয় ভিটামিন এ, বি-১২ এবং ডি থাকে। এছাড়া এতে থাকা ভিটামিন বি২ বার্ধক্যজনিত নানা ধরনের ক্ষয়রোধ, চোখের ছানি পড়া এবং মাইগ্রেনজনিত মাথাব্যথা রোধ করে।

 

ডিমের সাদা অংশের ওমলেট

ডিমের সাদা অংশের ওমলেট

>> গবেষণায় দেখা গিয়েছে, পুরো ডিম খাওয়ার চেয়ে শুধুমাত্র ডিমের সাদা অংশতে ক্যালরি ও চর্বি কম থাকে। তাই চেষ্টা করুন ডিমের কুসুম কম খাওয়ার।

>> ডিমের সাদা অংশে কোনো কোলেস্টেরল থাকে না। যাদের রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি তারা নির্দ্বিধায় ডিমের সাদা অংশ খেতে পারেন। এতে হৃদরোগ কিংবা কোলেষ্টেরলের মাত্রা বাড়ার ঝুঁকি কম থাকে।

> পুরো আস্ত ডিম প্রোটিনে ভরপুর থাকে। কিন্তু ডিমের সাদা অংশে খুব কম পরিমাণে প্রোটিন থাকে যা শরীরের জন্য খুব উপকারী। তবে উচ্চ প্রোটিন সম্পন্ন খাবার আমাদের মাংসপেশী গঠনে সহায়তা করে।

>> ওজন কমাতে চাইলে গোটা ডিমের বদলে ডিমের সাদা অংশ খান। কারণ ডিমে খুব বেশি ক্যালরি থাকে না। আর কুসুম না থাকলে তাতে ক্যালরির পরিমাণ আরো কমে যায়। তাই অজন কমাতে এটি সহায়ক।