ব্রেকিং:
সবজির পাশাপাশি আলু-পেঁয়াজেও মিলছে স্বস্তি হাম-রুবেলার টিকাদানে অংশ না নিলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা ক্রিকেটে ৯৯ দেশকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ দেশে একদিনে মৃত্যু ২৪, আক্রান্ত ২ হাজারের বেশি ভাসানচরে পৌঁছাল ১৬৪২ রোহিঙ্গা চক্রান্ত রুখতে কঠোর অবস্থান গেজেটভুক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা: যাচাই হবে ৫৫ হাজার সনদ করোনার অজুহাতে অফিসে অনুপস্থিত থাকা যাবে না ১০ জেলায় করোনার অ্যান্টিজেন পরীক্ষা বগুড়ায় রেকর্ড পরিমাণ আলু উৎপাদনের সম্ভাবনা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে বদলাবে চট্টগ্রাম মৌলবাদী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে একাট্টা দেশ অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন পাকিস্তানের ১৯৭১ সালের নৃশংসতা অমার্জনীয় : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বিশ্বে একদিনে আক্রান্ত ৬ লাখ ৭৯ হাজার আট জাহাজে চড়ে ভাসানচরের পথে রোহিঙ্গারা কঠোর নির্দেশনার আওতায় আসছেন প্রাথমিকের ২৫০ শিক্ষক দুর্ঘটনা এড়াতে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতি চালু করছে রেলওয়ে যেকোনো হুমকি মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ সেনাপ্রধানের
  • শুক্রবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৭

  • || ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

১৬৬

হাসপাতালের মর্গে মৃত নারীদের ধর্ষণ করতো বিকৃত মস্তিষ্কধারী মুন্না

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২০  

মামার সঙ্গে সহযোগী হিসেবে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে কাজ করতো মুন্না ভগত। তার বয়স ২০ বছর। কিন্তু জঘন্যতম একটি অপরাধের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি। 

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ—মর্গে থাকা মৃত নারীদের ধর্ষণ করতো মুন্না। সিআইডি কর্মকর্তারা জানান, বিভিন্ন স্থান থেকে যেসব মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে নেয়া হতো, সেসব লাশের মধ্য থেকে মৃত নারীদের ধর্ষণ করতো মুন্না।

সিআইডির অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক সৈয়দ রেজাউল হায়দার বলেন, ঘটনাটি খুবই ন্যক্কারজনক। শুক্রবার (২০ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

সিআইডি ও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গ্রেফতার হওয়া মুন্না ভগত সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে ডোম জতন কুমার লালের সহযোগী হিসেবে কাজ করতো। দুই-তিন বছর ধরে সে মর্গে থাকা মৃত নারীদের ধর্ষণ করে আসছিল। সম্প্রতি এ রকম একটি অভিযোগ পেয়ে মুন্নার বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করে সিআইডি। প্রাথমিক অনুসন্ধানে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় মুন্নাকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মুন্না মৃত নারীদের ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

সিআইডির এক কর্মকর্তা জানান, মৃত নারীদের ধর্ষণ করা পৃথিবীর জঘন্যতম একটি কাজ। সুস্থ ও স্বাভাবিক কেউ এমন জঘন্যতম কাজ করতে পারে না। গ্রেফতার হওয়া মুন্না বিকৃত মানসিকতার। তা না হলে এমন কাজ তার করার কথা নয়।

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে দায়িত্বরত ডোম ও মুন্নার মামা জতন কুমার লাল জানান, মুন্না গত দুই/তিন বছর ধরে তার সহযোগী হিসেবে মর্গে কাজ করতো। তার বাবার নাম দুলাল ভগত। গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাজারে। সে আরো দুই/তিন জনের সঙ্গে মর্গের পাশে একটি কক্ষেই রাতে থাকতো।

তিনি জানান, মুন্নাকে হঠাৎ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। তার মোবাইল নম্বরও বন্ধ। এ কারণে তারা বৃহস্পতিবার সন্ধ‌্যায় রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (নম্বর- ১২৩৬) দায়ের করেছেন।

মুন্নার বিরুদ্ধে মৃত নারীদের ধর্ষণের অভিযোগ প্রসঙ্গে জতন লাল কুমার বলেন, মুন্না মাঝে মধ্যে গাঁজা বা নেশাটেশা করতো। কিন্তু এ রকম একটি কাজ সে করতে পারে, তা ভাবতেই পারছি না।

অপরাধ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর