ব্রেকিং:
বেকারত্ব দূরীকরণে চালু হলো ‘নোয়াখালী ট্রিবিউন’ প্রেসক্লাব কোম্পানীগঞ্জের আনন্দ ভ্রমন ২০২০ অনুষ্ঠিত নোয়াখালীতে মার্কেটে আগুন, ১৫ দোকান ছাই চাটখিলে ফ্রেন্ড’স ফরইভার স্যোসাল হেল্প ক্লাবের মহৎ উদ্যোগ কোম্পানীগঞ্জে দুলাভাইয়ের ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা শ্যালিকা সোনাইমুড়ীতে ১নং জয়াগকে মাদকমুক্ত করার লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা শেখ হাসিনার আমলে উন্নয়নের জোয়ার বইছে – এমপি ইব্রাহিম সোনাইমুড়ীতে আবদুল মতিন মেম্বার ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্ভোদন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রে নরমাল ডেলিভারী সেন্টার উদ্ভোদন বেগমগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সোনার বাংলা বাস্তবায়নের পথে বাংলাদেশ বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ ঝুঁকি সূচকে বাংলাদেশের ৬ ধাপ উন্নতি বিল দাখিলের ৩ দিনের মধ্যে পেনশন ৪ শহীদ এখনো পায়নি রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি বাসদ নোয়াখালী জেলা কমিটি পুনর্গঠন সুবর্ণচরে মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উদযাপিত আসছে স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা, সঙ্গে ২০০ টাকার নোট ‘মা, ছুরি দাও আমি নিজেকে মেরে ফেলতে চাই’ নিজের বিয়ের দাওয়াত কার্ড নিয়ে যাওয়ার পথে মৃত্যু জীবনের নতুন ইনিংসের প্রথম চুম্বনে পর্দা লাগালো করোনা!
  • সোমবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১১ ১৪২৬

  • || ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
২৮

সঙ্গীর একাধিক প্রেম আছে? বুঝে নিন এসব লক্ষণে

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

দিন বদলের সঙ্গে সঙ্গে বলদে গেছে অনুভূতি, বিশ্বাস আর আস্থা। আগের মতো এখন আর লাইলি-মজনু ধরনের প্রেমে কেউ বিশ্বাসী নয়। তারপরও প্রেম রয়ে গেছে।
তবে এখনকার প্রেম শুধু একজনের সঙ্গে চলে না, সঙ্গে থাকে আরো বেশ কয়েকজনও। এক কথায়, একসঙ্গে একাধিক প্রেমিক-প্রেমিকা থাকে একজনেরই। তাইতো দিন দিন প্রেমের প্রতি বিশ্বাস হারাচ্ছে মানুষ।  

বলা হয়ে থাকে- ভালোবাসার মধ্যে সব থেকে বড় শক্তি হচ্ছে বিশ্বাস। পারস্পরিক বিশ্বাসের উপরই টিকে থাকে ভালোবাসার ভিত। কিন্তু আপনার সঙ্গী যদি দ্বিতীয়-তৃতীয় কারো সঙ্গে সম্পর্ক রাখে তাহলেই বিপদ। ভাবছেন কী করে বুঝবেন? হ্যাঁ, অন্য কারো সঙ্গে তার সম্পর্ক আছে কিনা সেটি বুঝার জন্য রয়েছে কিছু উপায়। চলুন জেনে নেয়া যাক কী সেই উপায়গুলো-

> সঙ্গী আপনাকে ঠিকমতো সময় দিতে পারেন না। অনেক সময়েই দেখা যাবে, আপনি দেখা করতে চাইলে তিনি এড়িয়ে যাচ্ছেন।

> আপনার সঙ্গে দেখা করার বদলে অন্য কিছু করছেন তিনি, কী করছেন সেটা আপনাকে জানাচ্ছেন না! জিজ্ঞেস করলে এড়িয়ে যাচ্ছেন, জানার জন্য চাপাচাপি করলে দায়সারা কোনো একটা জবাব দিয়ে দিচ্ছেন।

> যেকোনো পরিকল্পনা যখন তখন বাদ দিয়ে দেন। দেখা যায় আপনার সঙ্গে দেখা করার কথা। কিন্তু তিনি হুট করেই কোনো বাহানা দিয়ে তা বাদ দিয়ে দেন। আর যে বাহানা দেখান তা মোটেও বড় কোনো সমস্যার মধ্যে পড়ে না।

> শুধু যে বাহানা দেখায় তা নয়, অনেক সময়ে তিনি হুট করে আপনার সঙ্গে দেখা করতে চাইতে পারেন। ভাবছেন এটা কীসের লক্ষণ? হয়তো তার অন্য কোনো প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল। সে না আসতে পারায় আপনার সঙ্গে দেখা করতে চাচ্ছেন তিনি।

> আপনার সঙ্গীর ফোন সব সময় ‘ডেড’ থাকে। আপনি তাকে ফোন করে পান না। আবার তিনি যখন আপনার সঙ্গে আছেন, তখনো তার ফোন অফ। তিনি দাবি করেন চার্জ দিতে ভুলে গেছেন। এমনটা একবার দুবার হতে পারে, বারবার নয়। হয়তো আপনার সামনে অন্য প্রেমিক বা প্রেমিকার ফোন বা মেসেজ চেক করতে চান না। তাই তিনি ফোন অফ করে রাখেন।

> তিনি আপনাদের সম্পর্ককে কোনো নাম দিতে চান না। সম্পর্কের প্রথম দিকে এ বিষয়টি স্বাভাবিক। কিন্তু সম্পর্ক বেশ কিছুদূর অগ্রসর হবার পরেও তিনি যদি দাবি করেন আপনারা ‘শুধুই বন্ধু’, তিনি সম্পর্কটাকে ‘জটিল’ করতে চান না, বা আপনাকে ‘স্বাধীনতা’ দিতে চাচ্ছেন। যদি এমনটা হয়, তাহলে হয়তো তার আরো সম্পর্ক রয়েছে। তাই তিনি শুধু আপনার সঙ্গে জড়িয়ে যেতে চান না।

> আপনার প্রেমিক যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় তেমন সক্রিয় না থাকেন, তাহলে একটু লক্ষ্য রাখুন। অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন না তেমন। তবে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম থাকার পরেও তিনি তেমন একটা পোস্ট করেন না। যাতে প্রেমিক বা প্রেমিকারা তাদের সঙ্গে তোলা সেলফি পোস্ট করতে চাপাচাপি করতে না পারে। সে কারণেই হয়ত তিনি পোস্ট কম করেন।

> তিনি চাইবেন আপনি তার বাসায় বা অফিসে আসেন। কারণ আপনি সেখানে উপস্থিত হলে দেখা যাবে পরিবারের কেউ, অথবা সহকর্মী তার অন্য সম্পর্কের কথা বলে দিয়েছে। এমনকি দুইজন হয়তো একসঙ্গে সেখানে উপস্থিত হতে পারে। এ কারণে তিনি খুব শক্তভাবে তার বাসায় বা অফিসে যোগাযোগ করতে নিষেধ করে দেন।

> ঘণ্টার পর ঘণ্টা খুঁজেও তাকে পাচ্ছেন না। তিনি হয়তো সারা সপ্তাহ আপনার সঙ্গে টেক্সট চালাচালি করে যাচ্ছেন। অথচ শুক্র-শনিবারে তাকে খুঁজেই পাওয়া যায় না। কোনোভাবেই যোগাযোগ করা যায় না। আবার রবিবার থেকে তিনি আগের মতোই কথা বলে যাচ্ছেন। এমনটা হলে খটকা লাগাই স্বাভাবিক।

> নিজের অনুভূতিকে প্রাধান্য দিন। আপনার কি মনে হচ্ছে তার কোনো একটা সমস্যা আছে? তিনি আপনার সঙ্গে বিশ্বস্ত নন? এমন মনে হলে তার সঙ্গে খোলাখুলি কথা বলুন। তাকে জানান, আপনি এমন খেলো একটা সম্পর্কে থাকতে রাজি নন।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
লাইফস্টাইল বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর