ব্রেকিং:
অকালেই শেষ হয়ে যাবে চাটখিলের রাকিবের সব স্বপ্ন? সাহায্যের আকুতি.. ইটের ভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে দেড় হাজার শির্ক্ষাথী পরিচয় যাই হোক পাপিয়ার বিচার হবে: কাদের মাদকমুক্ত পরিচ্ছন্ন বসুরহাট গড়ায় মেয়র আবদুল কাদের মির্জা সংবর্ধিত সেনবাগে স্বামী হত্যায় ব্যর্থ স্ত্রী পালাল ছেলে নিয়ে ময়লা আবর্জনায় ভাসছে মাইজদী শহর পবিত্র শবে মেরাজ ২২ মার্চ ইনিংস পরাজয়ের শঙ্কায় ধুঁকছে জিম্বাবুয়ে জুতা পালিশ থেকে সানির ইন্ডিয়ান আইডল জয় তারেকের হাত ধরেই অন্ধকার জগতে পা রাখেন পাপিয়া! পুরান ঢাকায় ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান, ২০ কোটি টাকা উদ্ধার বাংলাদেশি পরিবারকে ১০ হাজার ডলার দিচ্ছে সিঙ্গাপুর নিজ ড্রাইভারের নামে মামলা করলেন এসপি বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ফাঁসির আদেশ দেয়া হয় যে রায়ে পিলখানা হত্যা দিবস আজ গর্ভবতী হয়েও সাপের মুখ থেকে মালিককে বাঁচাতে পিছুপা হয়নি সে ৭৬ বছর পর সন্ধান মিলল বিধ্বস্ত হওয়া ৩ বিমানের মদ খেলে চলবে না যে সাইকেল দলীয় নেতাকর্মীদের আঘাতে আহত হন রিজভী বেগমগঞ্জে অ্যাম্বুলেন্সে এসএসসি পরীক্ষা!
  • বুধবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪২৬

  • || ০২ রজব ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৫৯৮

যেভাবে খুন হলেন নোয়াখালীর সেই ব্যবসায়ী

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

নোয়াখালীর চাটখিলের মোহাম্মদপুর ইউপির কুলশ্রী গ্রামে চা ব্যবসায়ী হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত এক প্রবাসীর স্ত্রী ও তার ছেলেকে আটক করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে এসপি আলমগীর হোসেন এক সংবাদ সম্মেলনে হত্যার রহস্য উদঘাটনের তথ্য জানান।

তিনি জানান, চা ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার করার আগের রাতে মোবাইলে একাধিক কল আসে। সেই তথ্য পুলিশকে জানান নিহতের মেয়ে। এর সূত্র ধরে পুলিশ তথ্য ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে নিহত শাহ আলমের কল লিস্ট বের করে। কল লিস্টে কালশ্রী গ্রামের কুয়েত প্রবাসী শাহ আলমের স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তারের নম্বর পাওয়া যায়। এর ভিত্তিতে বুধবার রাতে তাকে বাবার বাড়ি থেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে হত্যার রহস্য উদঘাটন হয়। এরপর তার ছেলে শান্তসহ হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত লাঠিটি উদ্ধার করা হয়। 

তিনি আরো জানান, বৃহস্পতিবার ইয়াছমিন ও শান্ত নোয়াখালীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শোয়েব উদ্দিন খান ও মুশফিকুল হকের আদালতে স্বীকারোক্তি দেন। ইয়াছমিনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী, নিহত শাহ আলম প্রায় গভীর রাতে মোবাইলে ইয়াছমিনকে বিরক্ত ও রাতে ঘরের দরজা-জানালায় টোকা দিত। এ বিষয়ে ইয়াছমিনের ছেলে শান্ত মুঠোফোনে শাহ আলমকে শাসান। এরপরও সে ইয়াছমিনকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। তাই ছেলের সঙ্গে আলাপ করে শাহ আলমকে শিক্ষা দেয়ার পরিকল্পনা করেন ইয়াছমিন। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ৪ সেপ্টেম্বর রাতে শাহ আলমকে ডাকেন ইয়াছমিন। ইয়াছমিনের ফোন পেয়ে শাহ আলম ঘরের দরজা বন্ধ করে ইয়াছমিনের বাড়ির দিকে রওনা হন।  তিনি কুলশ্রী গ্রামের আবুল কালামের দোকানের সামনে এলে শান্ত ও তার সহযোগী শাহ আলমকে আটক করে দোকানের পিছে নিয়ে যান। পরে তার ঘাড়ে কাঠের লাঠি দিয়ে আঘাত করেন শান্ত। পরে শাহ আলমকে উপুড় করে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। 

এসপি আরো জানান, ১২ ঘণ্টার মধ্যে চা ব্যবসায়ী হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন সম্ভব হয়েছে।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর