ব্রেকিং:
কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে পাসে এগিয়ে ফেনী, জিপিএ-৫ এ কুমিল্লা কুমিল্লা বোর্ডে জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতে সেরা পাঁচ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কুমিল্লা বোর্ডে এসএসসিতে পাশের হার ৮৫.২২ ভাগ, বেড়েছে জিপিএ-৫ কুমিল্লা বোর্ডে পাশের হারে ছেলেরা এগিয়ে , জিপিএ ৫-এ মেয়েরা স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মাঠে থাকছে ভ্রাম্যমাণ আদালত করোনা রোধে জনপ্রতিনিধিদের আরও যুক্ত করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর মুজিববর্ষ উপলক্ষে জাতিসংঘের স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত দোকান খালে হেলে পড়েছে চাটখিলে সৌদি কারাগারে বন্দি শিশুসন্তানসহ নোয়াখালীর মেয়ে জেসমিন কোম্পানীগঞ্জে কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতির ওপর হামলা পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় শিশু সন্তানসহ গৃহবধূকে হত্যা নোয়াখালীতে একদিনে রেকর্ড আক্রান্ত ফেনীতে বজ্রপাতে যুবকের মৃত্যু বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবাষির্কী উপলক্ষে জাতিসংঘের স্মারক ডাকটিকিট ‘সেনাবাহিনী দোকান ঘর তুলে না দিলে পথে বসতে হতো’ দেশে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১৭৬৪, মৃত্যু ২৮ উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে বিপর্যয় ঠেকানোর উদ্যোগ বাজেটে এবারও কালো টাকা সাদা করার সুযোগ মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে বাংলাদেশকে সহায়তা দিতে আগ্রহী মিশর বাংলাদেশকে আরো করোনা চিকিৎসা সরঞ্জাম দিল যুক্তরাষ্ট্র
  • রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

৩৮

যুবলীগ নেতার ডিজিটাল আইনের মামলায় বিএনপির নেতা কারাগারে

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২০  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি করায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় জেলা বিএনপির নেতা আলী আজম চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত সোমবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাঁকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আলী আজম চৌধুরী জেলার নাসিরনগরের বাসিন্দা। তিনি জেলা বিএনপির গণ বিষয়ক সম্পাদক ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জজ আদালতের জাতীয়তাবাদী আইনজীবী পরিষদের সদস্য।

সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আলী আজম বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পাঁচ-ছয় দিন আগে জেলা বিএনপির গণ বিষয়ক সম্পাদক আলী আজম চৌধুরী ইলেকট্রনিকস ডিভাইস ব্যবহার করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্য লিখেছেন। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখতে পেয়ে সংক্ষুব্ধ হয়ে সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আলী আজম ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় পুলিশ সোমবার সকালে আলী আজম চৌধুরীকে জেলা শহরের পশ্চিম পাইকপাড়া থেকে গ্রেপ্তার করে। সোমবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাঁকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

আলী আজম চৌধুরীর পরিবারের দাবি, আলী আজম চৌধুরী ফেসবুকে আপত্তিকর কিছু লিখেননি। তিনি আইন পেশায় জড়িত ও উচ্চ আদালতের একজন নিবন্ধিত আইনজীবী। তিনি জাতির জনক ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে আপত্তিকর কিছু লেখার মানসিকতা লালন করেন না।

জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা প্রথম আলোকে বলেন, ‘গত কয়েক দিন আগে কারও একটি পোস্ট আলী আজম ফেসবুকে শেয়ার দিয়েছিলেন। কিন্তু সেটি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে আপত্তিকর কিছু ছিল না বলে জানতে পেরেছি। এর বাইরে আমি বেশি কিছু জানি না।’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) ধর্মজিৎ সিনহা প্রথম আলোকে বলেন, ফেসবুকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য ও ইসলামিক একটি অডিওর শব্দ পরিবর্তন করে বিএনপির নেতা আলী আজম চৌধুরী পোস্ট করেছিলেন। সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতির ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় বিএনপি নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর