ব্রেকিং:
অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী আর্জেন্টিনার এমন অসহায় আত্মসমর্পণ কেন? ২১ দিন বন্ধের পর সুপ্রিম কোর্ট খুলছে আজ মুর্তজার মৃত্যুদণ্ড বাতিল করল সৌদি আরব ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি’ আজ বিশ্ব বাবা দিবস বিয়ের প্রলোভনে মাদ্রাসা শিক্ষিকাকে ধর্ষন হাতকড়াসহ আসামির পলায়ন পাদুকা শিল্পে উৎসাহিত করতে বিশেষ সুবিধা মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ২ হাজার টাকা বৃদ্ধি গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ ৫০ কোটি টাকা পদ্মা সেতুসহ ১০ মেগা প্রকল্পে বরাদ্দ ৩৯ হাজার কোটি টাকা শিশুদের জন্য ৮০ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট কৃষি যান্ত্রিকীকরণে ভর্তুকি বাড়বে একশটি অর্থনৈতিক অঞ্চলের মাধ্যমে ১ কোটি কর্মসংস্থান নারী উন্নয়নে বরাদ্দ বেড়েছে ২৩ হাজার ৫০৫ কোটি টাকা শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে মোট বাজেটের ১৫ দশমিক ২ শতাংশ ঢাকার পূর্বাচলে ৬০ হাজার ফ্ল্যাট তৈরির পরিকল্পনা প্রতিবন্ধীদের নিয়োগ দিলেই কর রেয়াত রেলপথ মন্ত্রণালয়ে ১৬ হাজার ৩৫৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব

রোববার   ১৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৩ ১৪২৬   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

সর্বশেষ:
শেয়ারবাজারের লেনদেন শুরু হচ্ছে আজ অফিস-আদালতে ঈদের আমেজ হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রফতানি শুরু আলজেরিয়ায় কোরআন মুখস্থ করলে জেল থেকে মুক্তি হাইভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি ভারত-অস্ট্রেলিয়া পাসওয়ার্ড: ‘বিশ্বমানের’ সিনেমা কি এমন হয়?
১১

মিয়ানমারের ওপর চাপ বৃদ্ধি করুন

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯  

মিয়ানমারের ওপর চাপ বৃদ্ধি করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ। যাতে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টি করে।
বুধবার সকালে ঢাকায় বিদেশি কূটনীতিকদের ব্রিফিংয়ের পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেন, এ ব্যাপারে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করেছে বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, তারা (বিদেশি কূটনীতিক) বলেছেন, তারা আমাদের সঙ্গে আছেন। আমরা তাদেরকে বলেছি, মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগ বৃদ্ধি করুন, যাতে তারা সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টি করে এবং প্রায় সবাই এ ব্যাপারে একমত হয়েছেন।

এর আগে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় কূটনীতিকদের ব্রিফিংয়ে মোমেন অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে দ্বিপাক্ষিক অঙ্গীকার অনুসারে রাখাইন রাজ্যে নিরাপদ ও সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টি করতে ব্যর্থ হয়েছে মিয়ানমার।

বাংলাদেশ বর্তমানে ১২ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিচ্ছে। যাদের মধ্যে বেশিরভাগই মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর নির্যাতনে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।

রোহিঙ্গাদের ওপর হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগসহ বিভিন্ন অপরাধের জন্য মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী ও তাদের স্থানীয় সহযোগীদের দায়ী করে আসছে শরণার্থী ও মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো।

এদিকে আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে ঢাকা ও নেপিডো একটি চুক্তি স্বাক্ষর করলেও মিয়ানমারের পক্ষ থেকে সে ব্যাপারে কোনো অগ্রগতি নেই।

মিয়ানমার তাদের জনগণকে (রোহিঙ্গা) ফেরত নিতে চায় না, যা রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের প্রধান বাধা বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত রোববার গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘সমস্যা রয়েছে মিয়ানমারে। তারা রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে চায় না, এটাই (বড়) সমস্যা।’

বুধবারের ব্রিফিংয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন মিয়নমারের ওপর অব্যাহতভাবে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত জনগণকে নিরাপদে ও মর্যাদার সঙ্গে সেখানে (মিয়ানমারে) প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ব্যাপক সম্পৃক্ততা ও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে সহায়তা চান।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর