ব্রেকিং:
অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী আর্জেন্টিনার এমন অসহায় আত্মসমর্পণ কেন? ২১ দিন বন্ধের পর সুপ্রিম কোর্ট খুলছে আজ মুর্তজার মৃত্যুদণ্ড বাতিল করল সৌদি আরব ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি’ আজ বিশ্ব বাবা দিবস বিয়ের প্রলোভনে মাদ্রাসা শিক্ষিকাকে ধর্ষন হাতকড়াসহ আসামির পলায়ন পাদুকা শিল্পে উৎসাহিত করতে বিশেষ সুবিধা মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ২ হাজার টাকা বৃদ্ধি গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ ৫০ কোটি টাকা পদ্মা সেতুসহ ১০ মেগা প্রকল্পে বরাদ্দ ৩৯ হাজার কোটি টাকা শিশুদের জন্য ৮০ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট কৃষি যান্ত্রিকীকরণে ভর্তুকি বাড়বে একশটি অর্থনৈতিক অঞ্চলের মাধ্যমে ১ কোটি কর্মসংস্থান নারী উন্নয়নে বরাদ্দ বেড়েছে ২৩ হাজার ৫০৫ কোটি টাকা শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে মোট বাজেটের ১৫ দশমিক ২ শতাংশ ঢাকার পূর্বাচলে ৬০ হাজার ফ্ল্যাট তৈরির পরিকল্পনা প্রতিবন্ধীদের নিয়োগ দিলেই কর রেয়াত রেলপথ মন্ত্রণালয়ে ১৬ হাজার ৩৫৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব

রোববার   ১৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৩ ১৪২৬   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

সর্বশেষ:
শেয়ারবাজারের লেনদেন শুরু হচ্ছে আজ অফিস-আদালতে ঈদের আমেজ হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রফতানি শুরু আলজেরিয়ায় কোরআন মুখস্থ করলে জেল থেকে মুক্তি হাইভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি ভারত-অস্ট্রেলিয়া পাসওয়ার্ড: ‘বিশ্বমানের’ সিনেমা কি এমন হয়?
১১

‘মাদক ধ্বংসে বিশেষ চশমা দেয়া হবে’

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯  

৪৮ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আহমেদ ইউসুফ জামিল বলেছেন, মাদকদ্রব্য উদ্ধার অভিযান ও ধ্বংস দুটোই ঝুঁকিপূর্ণ। তাই যারা মাদকদ্রব্য ধ্বংসের কাজ করবে তাদের জন্য বিশেষ চশমা ব্যবস্থা করা হবে। যাতে মাদক নষ্ট করতে বিজিবি সদস্যদের কোনো ধরনের ক্ষতি না হয়।
বুধবার ব্যাটালিয়নের প্রধান কার্যালয়ের বাস্কেটবল মাঠে সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা মূল্যের মাদকদ্রব্য ধ্বংস অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, মাদকদ্রব্য চোরাচালান ও সেবন রোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এককভাবে কাজ করলে হবে না। বিভিন্ন স্তরের নাগরিকদের অংশগ্রহণ থাকলে মাদক থাকবে না। এজন্য সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।


 
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার মিজ সুনন্দা রায়, কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের যুগ্ম কমিশনার মোহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন পাহলোয়ান, জেলা বিশেষ শাখার এএসপি মো. আনিছুর রহমান খান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের উপ-পরিদর্শক মো. হুমায়ন কবির ও পরিবশে অধিদফতরের ইন্সপেক্টর হারুনুর রশিদ পাঠানসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তারা।

এর আগে ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে ১ জুন পর্যন্ত পাঁচ কোটি ছয় লাখ ৬৩ হাজার ২শ টাকা মূল্যের মাদক আনুষ্ঠানিকভাবে ধ্বংস করা হয়। এর মধ্যে ছিল ৩৬ হাজার ৮৭ বোতল বিভিন্ন প্রকার ভারতীয় মদ, ১ হাজার ৬৫৯ লিটার বাংলা মদ, ১ হাজার ৮১২ বোতল ভারতীয় বিয়ার, ২ হাজার ২৭২ বোতল ফেনসিডিল, ২৫৭টি ইয়াবা, ১০ কেজি গাঁজা, ৩ লাখ ৮৪ হাজার ভারতীয় সিগারেট।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর