ব্রেকিং:
৩ লক্ষ ৭ হাজার ২৩ জন শিশু খাবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মাসুদ রানা বিজিবির হাতে আটক ডাকাতের হামলায় বৃদ্ধা নিহতের ঘটনায় গ্রেপ্তার প্রধান ফেনী সদরের ১১ ইউনিয়নে ছাত্রলীগের সম্মেলন এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার রুটিন আগামী সপ্তাহে: শিক্ষামন্ত্রী খাগড়াছড়িতে ধর্ষণ রোধে পদক্ষেপ জানতে চেয়ে ডিসিকে আইনি নোটিশ করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩২ মৃত্যু, শনাক্ত ১৪৩৬ একে একে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জালে আট ধর্ষক রিফাত হত্যায় স্ত্রী মিন্নিসহ ছয়জনের মৃত্যুদণ্ড বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার অভিযুক্ত সবাই খালাস বিদেশী প্রযুক্তির টেকসই প্রকল্পে বন্ধ হবে নদী ভাঙ্গন চালের দাম নির্ধারণ করে দিলো সরকার সৌরবিদ্যুৎ খাতে কর্মসংস্থানে বাংলাদেশ বিশ্বে পঞ্চম সারাদেশে কলেজগুলোতে বহিরাগত প্রবেশ নিষেধ বিদ্যুতের পাশাপাশি গ্যাসেও স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ার পথে দেশ সীমান্ত হত্যা শূন্যে নামাতে সম্মত বাংলাদেশ-ভারত বিকল্প দেশ থেকে পেঁয়াজ আসা শুরু প্রকল্পের নথি বাংলায় তৈরি করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ কোভিড-১৯ মোকাবিলায় জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর ৬ দফা প্রস্তাব স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন
  • বুধবার   ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১৬ ১৪২৭

  • || ১২ সফর ১৪৪২

৮৭

বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণা করলো ভারত

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  

পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বেনাপোলসহ দেশের বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে ভারতের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ছিলো। সোমবার রাতে পেঁয়াজ রফতানি আনুষ্ঠানিকভাবেই বন্ধ ঘোষণা করলো দেশটি।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের এই নির্দেশনা দেয়। এতে বলা হয়েছে, অনতিবিলম্বে এই নির্দেশ কার্যকর হবে। রাতেই ভারত সরকারের রফতানি বন্ধের নির্দেশনা দেশটির আমদানিকারকদের হাতে পৌঁছেছে বলে জানা গেছে।

ভারত থেকে মূলত সাতক্ষীরার ভোমরা, দিনাজপুরের হিলি ও যশোরের বেনাপোল দিয়ে বেশি পেঁয়াজ আমদানি হয়।

হিলি স্থলবন্দরের কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার সাইদুল আলম বিকেলে বলেন, গতকাল রোববার পর্যন্ত ভারত থেকে ১২৯টি পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। যা পরিমাণে প্রায় ৮০০ টন। সোমবার সারা দিন পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ ছিলো। 

তিনি বলেন, দুপুরের পরে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তারা (ভারতীয় কর্তৃপক্ষ) তাদের সংকটের কথা জানিয়েছেন। তারা নিজ দেশেও (ভারত) পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির কথা বলছেন।

বাংলাদেশে যতটুকু পেঁয়াজ আমদানি হয়, তার সিংহভাগ আসে ভারত থেকে। ভারতে দুই সপ্তাহ আগে দাম বাড়তে থাকে। সঙ্গে বাংলাদেশেও পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায়।

ঢাকার বাজারে এখন প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ জাত ও আকারভেদে ৬০ থেকে ৭০ টাকা এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক মাস আগেও দেশি পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৩০-৩৫ টাকার মধ্যে ছিল। দেশে গত বছর নভেম্বরে পেঁয়াজের কেজিপ্রতি দাম ৩০০ টাকা পর্যন্ত উঠেছিলো। 

মূল্যবৃদ্ধির শুরুটা হয়েছিলো ভারত থেকে সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায়। ভারত নিজেদের বাজার সামাল দিতে গত বছর ১৩ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রফতানিতে ন্যূনতম মূল্য টনপ্রতি ৮৫০ ডলার বেঁধে দেয়। ৩০ সেপ্টেম্বর রফতানিই নিষিদ্ধ করে দেয় দেশটি। এরপর দেশের বাজারে পেঁয়াজের দামে তিনশ’ টাকা পর্যন্ত ওঠে। তখন আকাশ পথেও পেঁয়াজ আমদানি করা হয়।

অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর