ব্রেকিং:
নোয়াখালীতে ঢাবির সাবেক শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা নোয়াখালী সদরে মণপ্রতি ১০৪০ টাকা দরে ধান কেনা শুরু গোপনে শেয়ার বিক্রি, তালিকা করবে ডিএসই ঈদকে ঘিরে নতুন টাকা বিনিময় শুরু যদিও চ্যালেঞ্জিং,তবু পারবে বাংলাদেশ গতি বেড়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সুন্দরবনে বেড়েছে বাঘের সংখ্যা জার্মানি পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি ফের শীর্ষ অলরাউন্ডার সাকিব! ধানক্ষেতে আগুনের ঘটনা খতিয়ে দেখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর চাল আমদানি কমাতে শুল্ক বাড়ল দ্বিগুণ স্থগিত ৫ উপজেলায় ভোট ১৮ জুন থেমে গেল খা‌লিদ হো‌সেনের সুর সাধনা নিজের ‘দ্বিতীয় বাবা’ শাহরুখ, জানালেন অভিনেত্রী নিজেই! আর্জেন্টিনার কোপা আমেরিকার দল ঘোষণা জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় সক্ষম হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব কোরআন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের সংবর্ধনা জানাবে ছাত্রলীগ গণতন্ত্র বিকাশে গণমাধ্যম কার্যকর ভূমিকা রাখছে: স্পিকার দেশে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড ‘জাল’ প্রতিরোধে ১০০০ টাকার নতুন নোট

শুক্রবার   ২৪ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৬   ১৯ রমজান ১৪৪০

সর্বশেষ:
আন্ত-অভিযানে স্থলবাহিনীর সক্ষমতা বৃদ্ধি মোদি ম্যাজিকে বাজিমাত বিজেপির সঙ্গীতশিল্পী খালিদ হোসেনের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক ১৬ জনকে আসামি করে নুসরাত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগপত্র প্রস্তুত অনলাইনে পণ্য বিক্রির নামে প্রতারণা চক্রের সাত সদস্য আটক পাঁচ বছরের মধ্যে দেশে শতভাগ ইন্টারনেট: পলক
৪৫৬

ফণীতে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫৬ পরিবার পাচ্ছে নতুন ঘর

প্রকাশিত: ১২ মে ২০১৯  

নোয়াখালীতে ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫৬ পরিবারকে সরকারিভাবে নতুন ঘর করে দেয়া হচ্ছে। সেই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মাঝে এক হাজার বান্ডিল টেউটিন, ৩০ লক্ষ টাকা গৃহমঞ্জুরি, ১৭ লক্ষ টাকা জিআর ক্যাশ এবং ৫৬০ মেট্রিক টন জিআর চাল ও সাড়ে চার হাজার প্যাকেট শুকনা খাবার বিতরণ করা হবে।

শনিবার বিকেলে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ফণীদুর্গত এলাকায় পুনর্বাসন কার্যক্রমের অগ্রগতি নিয়ে আয়োজিত প্রেসব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, রোববার থেকে দুর্গত এলাকায় ঘর তৈরির কাজ শুরু হবে। ঈদের আগেই নির্মাণকাজ শেষ করে ঘরগুলো গৃহহারা পরিবারগুলোর মাঝে হস্তান্তর করা হবে। পুনর্বাসন কার্যক্রমে স্বচ্ছতা বজায় রাখা হবে। এক্ষেত্রে কোনো প্রকার অনিয়ম অব্যবস্থাপনা ধরা পড়লে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

এ সময় জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস বলেন, ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয়ের, ‘যার জমি আছে ঘর নেই, তার নিজ জমিতে গৃহনির্মাণ’ প্রকল্প থেকে প্রতিটি ঘরের জন্য এক লক্ষ টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় জেলা সদরে ১২১টি এবং সুবর্ণচরে ২৪৩টি নতুন ঘর তৈরি করা হবে। ঘরগুলো তৈরির কাজ তদারকির জন্য মন্ত্রণালয় থেকে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের কমিটিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকতাকে। এছাড়া সহকারী কমিশনার (ভূমি), উপজেলা প্রকৌশলী ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের সদস্য করা হয়েছে।

এতে আরও বক্তব্য রাখেন- সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল আনম সেলিম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়য়ারম্যান অ্যাডভেকেট শিহাব উদ্দিন শাহিন, সুবর্ণচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু ওয়াদুদ ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম সরদার প্রমুখ।

জেলা ত্রাণ পুনর্বাসন কর্মকর্তা হামিদুল হক বলেন, ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাতে নোয়াখালী সদর, সুবর্ণচর ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ৬৮৯টি বাড়ি সম্পূর্ণরূপে এবং ৩৩৩টি বাড়ি আংশিক বিধ্বস্ত হয়। এতে ৬৮৯টি পরিবার খুব বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এবং ৭০টি পরিবার বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এবং ২৬৩টি পরিবার আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর