ব্রেকিং:
পুলিশের সফলতা, এক বিরাট চালান জব্দ অবশেষে ধরা খেলেন সেই আসামি এবার পুলিশের জালে আটক এক ভয়ঙ্কর ব্যক্তি গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে যতবার নাম লেখালেন কনক নোয়াখালীতে মাসিক কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে জনস্বার্থে নোয়াখালীতে চলছে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ বিএনপি’র পকেট কমিটি বাতিলের দাবীতে বিক্ষোভ ও ঝাঁড়ু মিছিল নয় বছর পর বাবা-মাকে খুঁজে পেলেন শিরীন বাচ্চাকে মারার প্রতিবাদে হনুমান দলের থানা ঘেরাও ‘চা’ নাসিরের পর এবার শাবি ভিসির দুর্নীতির শ্বেতপত্র ফতুল্লায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ কোম্পানীগঞ্জ আওয়ামীলীগ যার জন্যে বিশাল ডিনার পার্টির আয়োজন করলো হঠাৎ এক বিস্ময়কর শিশুর জন্ম, এমন শিশু আগে দেখেননি শাহজালালে যাত্রীর পায়ুপথে এ কি? জানলে আঁতকে উঠবেন হতে যাচ্ছে ‘বৃহত্তর নোয়াখালী বিতর্ক উৎসব’ দেখেন নিন কোথায় কখন হবে কোম্পানীগঞ্জে দূর্গাপূজা উপলক্ষ্যে প্রশাসন যেসকল ব্যবস্থা নিবে বরের জায়গায় কনে, কিন্তু কেন ? জানলে হাসি থামাতে পারবেন না নোয়াখালীতে কি সরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ হচ্ছে !! নোয়াখালী জেলা পুলিশ লাইন্স মাঠে আজ যা অনুষ্ঠিত হলো এবার নোয়াখালীর গর্ব শিবলী যে কাজ করে প্রসংশিত হয়েছেন

মঙ্গলবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৮ ১৪২৬   ২৪ মুহররম ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৩০০

প্রাথমিকে শিক্ষক উপস্থিতি নিশ্চিতে নতুন পরিকল্পনা

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০১৯  

শিক্ষকদের শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত করতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চালু করা হচ্ছে 'বায়োমেট্রিক হাজিরা'। যন্ত্রে আঙুলের ছাপের মাধ্যমে শিক্ষকদের হাজিরা নিশ্চিত করা হবে। বিষয়টি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা মনিটরিং করবেন। চলতি মাসের মধ্যে বিষয়টি নিশ্চিত করতে দেশের প্রতিটি বিদ্যালয়ে হাজিরা যন্ত্র বসানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দেশে ৬৫ হাজার ৬০১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩ লাখ ২২ হাজার ৭৬৬ জন শিক্ষক রয়েছেন। সবাইকে এই ডিজিটাল হাজিরার আওতায় আনা হচ্ছে। প্রাথমিক শিক্ষকদের সকাল ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত বিদ্যালয়ে বাধ্যতামূলকভাবে উপস্থিত থাকতে হয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম আল হোসেন জানান, শিক্ষকদের জবাবদিহির মধ্যে এনে বিদ্যালয়ে শতভাগ পাঠদান নিশ্চিত করতে চাই। সেজন্য এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। স্লিপের (School Level Improvement Plan- বিদ্যালয় পর্যায়ে উন্নয়ন পরিকল্পনা) টাকা থেকে স্কুল কর্তৃপক্ষই হাজিরা যন্ত্র (ডিভাইস) কিনবে। উপজেলা পর্যায়ের শিক্ষা কর্মকর্তারা এটি দেখভাল করবেন।


 
তিনি জানান, অনেক উপজেলায় এরই মধ্যে ডিভাইসটি কেনা হয়েছে, অনেক উপজেলায় কেনা হচ্ছে। এটি বসানোর মাধ্যমে নিশ্চিত হবে যে কবে কোন শিক্ষক বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত ছিলেন। কোন শিক্ষক বিলম্বে বিদ্যালয়ে হাজির হন, সেটিও জানা যাবে। সামগ্রিকভাবে প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে এ সিদ্ধান্ত ইতিবাচক ফল বয়ে আনবে।

জানা যায়, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মৌসুমভেদে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিদ্যালয়ে উপস্থিতি নিয়ে নানা প্রশ্ন ওঠে। হাওর অঞ্চলে ধান কাটার সময় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষক বিদ্যালয়ে গরহাজির থাকেন। আবার পার্বত্য অঞ্চলে জুমচাষের সিজনে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কমে যায় বিদ্যালয়ে। এর বাইরে সামগ্রিকভাবে সারাদেশে অনেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা বিদ্যালয়ে এসে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে চলে যান। অনেকে দপ্তরির মাধ্যমে হাজিরা খাতা বাড়িতে এনে সই করেন। অনেকে আবার দিনের পর দিন বিদ্যালয়ে না গিয়ে ভাড়া করা শিক্ষকদের মাধ্যমে প্রক্সি দিয়ে   ক্লাস করিয়ে থাকেন। এসব অনিয়ম বন্ধ করতেই মূলত বায়োমেট্রিক হাজিরা চালুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। 

সূত্র জানায়, গত মার্চে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এর পর ২৮ এপ্রিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে চিঠি দিয়ে সব জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের তা জানিয়ে দেয়া হয়। অধিদপ্তরের পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মো. এনামুল কাদের খান স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে সব প্রাথমিক বিদ্যালয়কে তাদের স্লিপ ফান্ড থেকে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের মধ্যে এই বায়োমেট্রিক হাজিরা মেশিন কেনার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়। বিদ্যালয়গুলো নিজ নিজ দায়িত্বে এই মেশিন জুনের মধ্যেই কিনবে।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর