ব্রেকিং:
ঢাকার চারপাশে হচ্ছে ৬ স্যাটেলাইট সিটি ৬ কোটির বেশি মানুষ পেয়েছে সরকারি ত্রাণ আফ্রিকায় শ্রমবাজারের নতুন সম্ভাবনা দেখছে বাংলাদেশ প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা ঘরে বসেই পরীক্ষা দেবে, এমন চিন্তা সরকারের ‘ডাকযোগে’ আম লিচু পৌঁছে যাবে বিভিন্ন বাজারে ‘ইভেরা টুয়েলভ’ সেবনে ১১ পুলিশ সদস্যের পাঁচদিনেই করোনা নেগেটিভ! সাত হাজার পরিবারকে উপহার দিচ্ছে বেজা শুরু হয়েছে প্রশাসনে শেখ হাসিনার শুদ্ধি অভিযান আমলাদের ভুল শুধরে দিলেন প্রধানমন্ত্রী দেশে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ২ হাজার ছাড়ালো, মৃত্যু ১৫ ‘স্বল্প সংখ্যক’ যাত্রী নিয়ে ৩১ মে থেকে চলবে বাস-ট্রেন-লঞ্চ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফ্লাইট চালুর প্রস্তুতি করোনা ও অন্য রোগীদের আলাদা চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শিল্পপ্রতিষ্ঠানসমূহকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে আরও ২ হাজার চিকিৎসক নেওয়ার পরিকল্পনা সংক্রমণ ঝুঁকিমুক্ত বিশেষ চিকিৎসা বুথ তৈরি ছুটি আর বাড়ছে না, ৩১ মে থেকে অফিস শুরু দুর্গম খাসিয়া পুঞ্জিতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানালেন শেখ হাসিনা করোনায় সংক্রমিত পৌরসভার পিয়ন ফকির
  • শুক্রবার   ২৯ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৭

  • || ০৫ শাওয়াল ১৪৪১

১৯০৬

‘পিপিপির মাধ্যমে বিটিএমসির বন্ধ মিলগুলো চালু হবে’

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী জানিয়েছেন, বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস করপোরেশনের (বিটিএমসি) বন্ধ টেক্সটাইল মিলগুলো সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব বা ‘পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি)’ এর মাধ্যমে আবার চালু করা হবে।মঙ্গলবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বিটিএমসি ভবনে এক আলোচনা সভায় এ কথা জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার বিটিএমসির টেক্সটাইল মিলগুলো সরকারি সহায়তায় বা পিপিপির মাধ্যমে চালু করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এর আওতায় টেক্সটাইল পল্লী গড়ে তোলা হবে। এতে নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরির হওয়ার ফলে দেশে বেকার সমস্যার সমাধান হবে।

তিনি আরো বলেন, জোট সরকারের সময়ে দেশে বিদ্যুতের ব্যাপক ঘাটতি ছিল। কিন্তু এখন বিদ্যুতের কোনো অভাব নেই। অর্থাৎ নতুন শিল্পাঞ্চল চালু করতে হলে যে বিদ্যুতের দরকার, দেশে তার কোনো ঘাটতি নেই। সর্বোপরি বন্ধ মিলগুলো পুনরায় চালু করে শিল্পায়নের ধারাকে ত্বরান্বিত করা হবে।

অব্যবহৃত কোনো জমি ফেলে রাখা চলবে না উল্লেখ করে দস্তগীর গাজী বলেন, যত বেশি জমি ব্যবহৃত হবে, দেশ তত বেশি উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাবে। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, নতুন নতুন শিল্প কারখানা হচ্ছে। গার্মেন্টস খাত অনেক এগিয়েছে, সামনে আরো এগিয়ে যাবে।এর পরিপ্রেক্ষিতে পিপিপির মাধ্যমে নতুন টেক্সটাইলগুলো কীভাবে আরো দ্রুততম সময়ের মধ্যে চালু করার ব্যবস্থা করা যায়, তার ব্যবস্থা করা হবে। এজন্য সরকার  ও বেসরকারি উদ্যোক্তাদের পরিকল্পনা এবং সহযোগিতা দরকার বলেও মন্তব্য করেন পাটমন্ত্রী।

এ পর্যন্ত বিটিএমসির ১৬ মিলকে পিপিপির মাধ্যমে চালু করার জন্য তালিকাবদ্ধ করা হয়েছে। এর মধ্যে ২টি মিল পিপিপির মাধ্যমে চালু করার প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়েছে। বাকি মিলগুলো পর্যায়ক্রমে চালু করার প্রক্রিয়ায় রয়েছে।

আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মিজানুর রহমান, বিটিএমসির চেয়ারম্যান বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মুহাম্মদ কামরুজ্জামানসহ প্রমুখ।

অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর