ব্রেকিং:
সোনাপুর-চেয়ারম্যান ঘাট সড়ক ফোরলেন একনেকে অনুমোদন লবণ ও পেঁয়াজের অতিরিক্ত মূল্য রোধে ২লক্ষ ১৮হাজার ৫শত টাকা জরিমানা নোবিপ্রবির ভর্তি শুরু ২৪ নভেম্বর সেনবাগে ইঁদুর মারার ফাঁদে পা দিয়ে মারা গেলেন কৃষক হাতিয়ায় হতদরিদ্র প্রতিবন্ধিদের বনভোজন হেলিকপ্টারে পূর্ণিমা আসলেন নোয়াখালী প্রস্তুত জাহাজ; শীঘ্রই রোহিঙ্গারা যাচ্ছে ভাসানচরে সড়ক পরিবহন আইন নিয়েও ষড়যন্ত্র শুরু করেছে বিএনপি কোম্পানীগঞ্জে অতিরিক্ত দামে লবন বিক্রি করায় জরিমানা সশস্ত্র বাহিনী দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নোয়াখালী আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সেলিম-একরাম সশস্ত্র বাহিনী দিবস আজ নোয়াখালীতে লবণের দাম বেশি চাইলে ইউএনও কে জানান-ডিসি কোম্পানীগঞ্জে শিক্ষার্থীদের নুরানী শিক্ষা ও নামাজ প্রদর্শনী নোয়াখালীতে অতিরিক্ত দামে লবন বিক্রি করায় ব্যবসায়ী আটক নোয়াখালী আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা সরকারি রাস্তা কেটে ইটভাটা নির্মাণ গ্রাহকের ৩০ লাখ টাকা আত্মসাত করে দুদকের জালে সাবেক পোষ্ট মাষ্টার আজ নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন গুজবে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে: কাদের

শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৩৬২

পান বিক্রি করে ছেলেকে কনস্টেবল বানালেন মা

প্রকাশিত: ১২ জুলাই ২০১৯  

আট বছর আগে স্বামীকে হারিয়েছেন যশোরের মনিরামপুরের কদমবাড়িয়া গ্রামের শিউলি বেগম। একমাত্র ছেলেকে নিয়েই স্বপ্ন দেখছিলেন তিনি। এবার স্বি স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। ১০৩ টাকায় কনস্টেবল হয়ে বিধবা মায়ের মুখে হাসি ফোটালেন মনিরুল ইসলাম।

যশোরে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে নিয়োগ পাওয়া ১৯৩ জনের মধ্যে মনিরুল একজন। ২৬ জুন এসপি মঈনুল হক চূড়ান্ত নাম ঘোষণা করেন। সে তালিকায় ৮৬ নাম্বার নামটি মনিরুল ইসলামের।

শিউলি বেগম বলেন, আট বছর আগে গাছ কাটতে গিয়ে তার স্বামী রফিকুল ইসলাম মারা যান। তখন মনিরুল চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। অনেক কষ্টে ছেলেকে মানুষ করেছি। গ্রামবাসী ও ভাইয়েরা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে। স্বামীর ছোট একটা পান দোকান ছিলো। সেই দোকানের আয় দিয়েই মনিরুলকে এইচএসসি পাস করিয়েছি। স্বপ্ন ছিলো, ছেলের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ দেখবো। আমার সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

 

 

মনিরুল ইসলাম বলেন, পড়াসোনার ফাঁকে মায়ের সঙ্গে দোকানে বসতাম। মাঝেমধ্যে মাছ ধরে বিক্রি করতাম, রাজমিস্ত্রীর হেলপার হিসেবেও কাজ করেছি। তবুও হাল ছাড়িনি। আজ মায়ের মুখে হাসি ফোঁটাতে পেরে আমি অনেক খুশি।
 
শিউলি বেগম আরো বলেন, আমার ছেলেটা বিনা টাকায় পুলিশে চাকরি পাইছে তাতে আমি মহা খুশি। এসপি স্যার ছেলেটারে চাকরি দেছে। তার জন্নি আমি প্রাণ ভরে দোয়া করি। তার হাত দিয়ে যেন আমার মত দুঃখিনী মায়েদের আশা পূরণ হয়।

ইউপি সদস্য তাইজুল ইসলাম মিলন বলেন, মনিরুল ভালো ছেলে, ছাত্র হিসেবেও মেধাবী। তার পড়াশোনার জন্য আমরা সাধ্যমতো সহযোগিতা করেছি। সে চাকরি পাওয়ায় গ্রামের সবাই খুশি।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর