ব্রেকিং:
নোয়াখালীতে বেপরোয়া কিশোর গ্যাং বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ নোয়াখালীতে ফুটবল খেলা নিয়ে দু’গ্রুপের সংঘর্ষ ‘রোহিঙ্গাদের যারা নিরুৎসাহিত করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা’ প্রেমিকাসহ আটকা পড়ে ৯৯৯-এ কল দিয়ে উল্টো ফাঁসলেন প্রেমিক মাদকেই মরণ বিএনপির তৃণমূলের, রিহ্যাবে অসংখ্য নেতাকর্মীরা বাবার জায়গা নেই ছেলের পাকা ঘরে ‘মামলা থেকে বাঁচতে’ মাথায় হেলমেটের বদলে ঝুড়ি পাকিস্তানে টেস্ট খেলবে না শ্রীলংকা ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী পাঁচ দিনের রিমান্ডে শুভ জন্মাষ্টমী আজ প্রাথমিকে নিয়োগ হবে ৬১ হাজার শিক্ষক নোয়াখালী জেলা প্রশাসন এর কল সেন্টার ৩৩৩ উদ্বোধন কোম্পানীগঞ্জে ১৪ বছরের সশ্রম দন্ড প্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেফতার! ক্রিকেট খেলা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৫ ‘ডেঙ্গু নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে একটি মহল’ শুভ জন্মদিন মোশাররফ করিম অনলাইনে কীভাবে জন্ম নিবন্ধন করাবেন? একাদশ সংসদের চতুর্থ অধিবেশন ৮ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি নির্মূলে নিরলসভাবে কাজ করছে কমিশন

শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৮ ১৪২৬   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

সর্বশেষ:
ঈদে স্বাস্থ্য বিভাগের সবার ছুটি বাতিলের সিদ্ধান্ত আলোচনার মাধ্যমেই রোহিঙ্গা সমাধান চায় বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির ব্যর্থতার দগদগে ঘা রয়েছে: ওবায়দুল কাদের জাল নোট চেনার সহজ উপায় গুজব: নায়িকা শাবনূর ‘মারা’ গেছেন!
৩১১

পান বিক্রি করে ছেলেকে কনস্টেবল বানালেন মা

প্রকাশিত: ১২ জুলাই ২০১৯  

আট বছর আগে স্বামীকে হারিয়েছেন যশোরের মনিরামপুরের কদমবাড়িয়া গ্রামের শিউলি বেগম। একমাত্র ছেলেকে নিয়েই স্বপ্ন দেখছিলেন তিনি। এবার স্বি স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। ১০৩ টাকায় কনস্টেবল হয়ে বিধবা মায়ের মুখে হাসি ফোটালেন মনিরুল ইসলাম।

যশোরে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে নিয়োগ পাওয়া ১৯৩ জনের মধ্যে মনিরুল একজন। ২৬ জুন এসপি মঈনুল হক চূড়ান্ত নাম ঘোষণা করেন। সে তালিকায় ৮৬ নাম্বার নামটি মনিরুল ইসলামের।

শিউলি বেগম বলেন, আট বছর আগে গাছ কাটতে গিয়ে তার স্বামী রফিকুল ইসলাম মারা যান। তখন মনিরুল চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। অনেক কষ্টে ছেলেকে মানুষ করেছি। গ্রামবাসী ও ভাইয়েরা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে। স্বামীর ছোট একটা পান দোকান ছিলো। সেই দোকানের আয় দিয়েই মনিরুলকে এইচএসসি পাস করিয়েছি। স্বপ্ন ছিলো, ছেলের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ দেখবো। আমার সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

 

 

মনিরুল ইসলাম বলেন, পড়াসোনার ফাঁকে মায়ের সঙ্গে দোকানে বসতাম। মাঝেমধ্যে মাছ ধরে বিক্রি করতাম, রাজমিস্ত্রীর হেলপার হিসেবেও কাজ করেছি। তবুও হাল ছাড়িনি। আজ মায়ের মুখে হাসি ফোঁটাতে পেরে আমি অনেক খুশি।
 
শিউলি বেগম আরো বলেন, আমার ছেলেটা বিনা টাকায় পুলিশে চাকরি পাইছে তাতে আমি মহা খুশি। এসপি স্যার ছেলেটারে চাকরি দেছে। তার জন্নি আমি প্রাণ ভরে দোয়া করি। তার হাত দিয়ে যেন আমার মত দুঃখিনী মায়েদের আশা পূরণ হয়।

ইউপি সদস্য তাইজুল ইসলাম মিলন বলেন, মনিরুল ভালো ছেলে, ছাত্র হিসেবেও মেধাবী। তার পড়াশোনার জন্য আমরা সাধ্যমতো সহযোগিতা করেছি। সে চাকরি পাওয়ায় গ্রামের সবাই খুশি।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর