ব্রেকিং:
সেনাবাহিনী-বিজিবির চেষ্টায় বান্দরবানের সঙ্গে যোগাযোগ স্বাভাবিক কোরবানির ঈদ পর্যন্ত বিদেশি গরু প্রবেশ নিষিদ্ধ আজ এনআইডি যাচাইয়ে ‘পরিচয়’ উদ্বোধন করবেন জয় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে বাণিজ্যিকভাবে সম্প্রচার চালাবে বিটিভি যেভাবে পাবেন এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল এরশাদের আসন শূন্য ঘোষণা, তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন ৩৬ কোটি টাকার ওষুধ ধ্বংস, জরিমানা দেড় কোটি কথাবার্তায় সন্দেহ থেকে গ্রেফতার হলো মিন্নি ‘জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৯’ শুরু এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ আজ আগামীতে নোবিপ্রবিতে ৪ লেন সড়ক হবে নোয়াখালীতে বিএমএসএফ এর ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত সাতটি আবাসন প্রকল্পের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর জন্মভিটাতে ফেরা হলো না এরশাদের নববধূ বরণের অপেক্ষায় স্বজনরা, ফিরলেন লাশ হয়ে! নোয়াখালীতে সৌখিন মাছ শিকারীর ভিড় বাংলাদেশে বাড়বে কোরিয়ান বিনিয়োগ রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সহযোগিতার আশ্বাস দক্ষিণ কোরিয়ার বিশ্বের কোন কোন দেশে কয়টি রোবট কাজ করছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে? বাংলাদেশে অফিস করতে রাজি হয়েছে ফেসবুক

বুধবার   ১৭ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ১ ১৪২৬   ১৪ জ্বিলকদ ১৪৪০

সর্বশেষ:
পদ্মা সেতু নিয়ে গুজবে গ্রেফতার ১ জন অপপ্রচারই বিএনপির পুঁজি: ওবায়দুল কাদের ‘মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা হবে ১৫ হাজার টাকা’ জেলা প্রশাসক সম্মেলন ১৪ জুলাই বাংলাদেশের আর্থিক অন্তর্ভুক্তির প্রশংসায় রানী ম্যাক্সিমা নতুন দুই মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর শপথ ১৩ জুলাই
২৭৯

পান বিক্রি করে ছেলেকে কনস্টেবল বানালেন মা

প্রকাশিত: ১২ জুলাই ২০১৯  

আট বছর আগে স্বামীকে হারিয়েছেন যশোরের মনিরামপুরের কদমবাড়িয়া গ্রামের শিউলি বেগম। একমাত্র ছেলেকে নিয়েই স্বপ্ন দেখছিলেন তিনি। এবার স্বি স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। ১০৩ টাকায় কনস্টেবল হয়ে বিধবা মায়ের মুখে হাসি ফোটালেন মনিরুল ইসলাম।

যশোরে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে নিয়োগ পাওয়া ১৯৩ জনের মধ্যে মনিরুল একজন। ২৬ জুন এসপি মঈনুল হক চূড়ান্ত নাম ঘোষণা করেন। সে তালিকায় ৮৬ নাম্বার নামটি মনিরুল ইসলামের।

শিউলি বেগম বলেন, আট বছর আগে গাছ কাটতে গিয়ে তার স্বামী রফিকুল ইসলাম মারা যান। তখন মনিরুল চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। অনেক কষ্টে ছেলেকে মানুষ করেছি। গ্রামবাসী ও ভাইয়েরা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে। স্বামীর ছোট একটা পান দোকান ছিলো। সেই দোকানের আয় দিয়েই মনিরুলকে এইচএসসি পাস করিয়েছি। স্বপ্ন ছিলো, ছেলের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ দেখবো। আমার সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

 

 

মনিরুল ইসলাম বলেন, পড়াসোনার ফাঁকে মায়ের সঙ্গে দোকানে বসতাম। মাঝেমধ্যে মাছ ধরে বিক্রি করতাম, রাজমিস্ত্রীর হেলপার হিসেবেও কাজ করেছি। তবুও হাল ছাড়িনি। আজ মায়ের মুখে হাসি ফোঁটাতে পেরে আমি অনেক খুশি।
 
শিউলি বেগম আরো বলেন, আমার ছেলেটা বিনা টাকায় পুলিশে চাকরি পাইছে তাতে আমি মহা খুশি। এসপি স্যার ছেলেটারে চাকরি দেছে। তার জন্নি আমি প্রাণ ভরে দোয়া করি। তার হাত দিয়ে যেন আমার মত দুঃখিনী মায়েদের আশা পূরণ হয়।

ইউপি সদস্য তাইজুল ইসলাম মিলন বলেন, মনিরুল ভালো ছেলে, ছাত্র হিসেবেও মেধাবী। তার পড়াশোনার জন্য আমরা সাধ্যমতো সহযোগিতা করেছি। সে চাকরি পাওয়ায় গ্রামের সবাই খুশি।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর