ব্রেকিং:
রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলার শুনানি আজ নোয়াখালীর নামকরণের ইতিহাস ফেনী-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়ক চার লেন হচ্ছে নোবিপ্রবিতে শূন্য আসনের ভর্তির সাক্ষাৎকার ১৫ ডিসেম্বর কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তায় শ্রেষ্ঠ নোবিপ্রবির কাওছার বসুরহাট পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতির ইন্তেকাল উগান্ডায় ভূমিধসে ১৬ জনের মৃত্যু ২৫৭ টাকা নিয়ে ঢাকায় আসা সেই ছেলেটি আজ শ্রেষ্ঠ অভিনেতা গণপরিবহনে মেয়েদের একা ভ্রমণে পুলিশের পরামর্শ ঢাবি’র ৫২তম সমাবর্তন আজ দুই বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী জমকালো আয়োজনে শেষ হলো বিপিএলের উদ্বোধন নোয়াখালী থেকে আনসারুল্লাহর চার জঙ্গি গ্রেফতার সুপারির পাতায় মামুনের সাত পণ্য নোয়াখালীর গর্ব জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী ঐশীর জন্মদিন নোয়াখালী সরকারি মহিলা কলেজের ২ ছাত্রীর যৌনতার ফাঁদ ৪৫ টাকা দরে টিসিবি`র মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে নোয়াখালীতে বাড়ি ফেরা হলো না বাবার সোনাইমুড়ীতে জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধে দুইজনকে কুপিয়ে জখম সেনাবাহিনী প্রধান মিয়ানমার যাচ্ছেন আজ

মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৬   ১২ রবিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
১০৪৩

নোয়াখালীর মেয়ে জুয়েনা আজিজের জ্যেষ্ঠ সচিব হওয়ার গল্প

প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০১৯  

নোয়াখালীর মেয়ে জুয়েনা আজিজ, ৩৩ বছরের কর্মজীবনে ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করেছেন। কখনো বা থানা নির্বাহী কর্মকর্তা (বর্তমানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা) হিসেবে উপজেলা প্রশাসন চালিয়েছেন। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও দপ্তরে নীতিনির্ধারণী পদে বসে নিজেই নিয়েছেন সিদ্ধান্ত। 

জুয়েনা আজিজ এখন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব। বর্তমানে সরকারের যে কয়জন জ্যেষ্ঠ সচিব আছেন,  তাঁদের মধ্যে তিনিই একমাত্র নারী। নিজের কাজ, মেধা ও প্রজ্ঞা দিয়ে এতগুলো স্তর পেরিয়ে আজ জনপ্রশাসনের সর্বোচ্চ পর্যায়ের একটি পদে এসেছেন।

নোয়াখালীতে স্কুল-কলেজজীবন শেষ করে উচ্চতর পড়াশোনার জন্য ঢাকায় আসেন। ইডেন মহিলা কলেজ থেকে বাংলা সাহিত্যে স্নাতক (সম্মান) ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর করেন।
তিনি চাকরিটা পেয়ে যান স্নাতকোত্তর শেষ করার আগেই। জুয়েনা আজিজ বললেন, ‘যখন স্নাতকোত্তর পড়ছি,  তখনই বিসিএস (১৯৮৪ সালের বিজ্ঞাপন) পরীক্ষায় অংশ নিই। প্রথমবারই প্রশাসন ক্যাডারে চাকরি পেয়ে যাই।’ নিয়োগপ্রক্রিয়া শেষে ১৯৮৬ সালে চাকরিতে যোগ দেন তিনি। প্রথমে নারায়ণগঞ্জে সহকারী কমিশনার হিসেবে কাজ শুরু করেন। ওদিকে পড়াশোনাটা থেমে যায়নি। চাকরিতে থেকেই স্নাতকোত্তর পাস করেন। চাকরিজীবনে বিদেশেও উচ্চশিক্ষা নিয়েছেন। 

গত জানুয়ারিতে তিনি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব হন। একই মাসে জ্যেষ্ঠ সচিব পদে পদোন্নতি পান তিনি। বর্তমানে ৭৮ জন সচিবের মধ্যে নারী সচিব আছেন ৭ জন। আর নারী সচিবদের মধ্যে জুয়েনা আজিজই একমাত্র জ্যেষ্ঠ সচিব।
তিনি বলেন, পড়াশোনা করার সময় চাকরি ও বিয়ে হলেও কখনো বড় সমস্যায় পড়তে হয়নি। এ জন্য বাবার বাড়ির সহযোগিতা যেমন ছিল, তেমনি স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ি থেকেও সহযোগিতা পেয়েছেন। কর্মজীবী মা হওয়ায় দুই পরিবারের সহযোগিতা ছাড়া এত দূর আসা সম্ভব হতো না।

বর্তমানে নারীদের চাকরি ও শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে আসার বিষয়টিকে খুবই ইতিবাচক উল্লেখ করে বললেন, ‘এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। কারণ, নারীদের এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে তাঁর অসামান্য ভূমিকা রয়েছে।’ এখন যে নারীরা চাকরিতে আসছেন, তাঁদের প্রতি জুয়েনা আজিজের পরামর্শ হলো, কাজে যত্নশীল হওয়ার বিকল্প নেই। ভালো কাজ ও নিষ্ঠাবান হতে হবে। তাহলে পুরুষ হোক আর নারী হোক, ভালো করবেই।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর