ব্রেকিং:
দিনাজপুরে দেশের প্রথম লোহার খনি আবিষ্কার শেখ হাসিনা এখন আওয়ামী লীগের চেয়েও বড় নোয়াখালীতে অস্ত্রসহ শীর্ষ জলদস্যু গ্রেফতার সপ্তাহের ব্যবধানে কমলো স্বর্ণের দাম ইবতেদায়ি শিক্ষকদের জন্য আসছে এমপিওভুক্তির সুখবর সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সব প্রস্তুতি নিয়েছে ইসি: সচিব সাকিব-মাশরাফীদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন এখন শুধু শচীন-পন্টিং-সাঙ্গাকারাকে টপকানোর অপেক্ষা ১৫ হাজার কোটি টাকার সম্পূরক বাজেট পাস শেষ ধাপে ২০ উপজেলায় ভোট চলছে বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড় সাকিব আজ বনভোজন দিবস ব্যাংকে টাকা আছে, লুটে খাওয়ার মতো নেই: প্রধানমন্ত্রী বুয়েট ছাত্রদলের ভিপি ছিলেন বালিশ মাসুদুল হেসে খেলে প্রত্যাশিত জয় টাইগারদের নোয়াখালী সদরে ইভিএমের ক্যাম্পেইন-মাইকিং বিশ্বের সবচেয়ে বড় ব্যাট উন্মোচন আজ উইন্ডিজের বিপক্ষে জয় চান মাশরাফী সমালোচনার মধ্যেও ভদ্রতা থাকতে হয়: তথ্যমন্ত্রী যে কৌশলে আটক হলেন ওসি মোয়াজ্জেম

বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৬ ১৪২৬   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

সর্বশেষ:
তিস্তা চুক্তি ও সীমান্তে হত্যা বন্ধে সহযোগিতার আশ্বাস ভারতের অস্বাভাবিক ক্ষমতাসম্পন্ন শিশুর জন্ম দিলেন কোয়েল মল্লিক! সমৃদ্ধির সোপানে বাংলাদেশের উন্নয়নে কি কি থাকছে প্রস্তাবিত বাজেটে কারাবন্দিদের নাস্তায় যুক্ত হলো উন্নতমানের খাবার যোগ্য সেনা কর্মকর্তাদের পদোন্নতি দিন: প্রধানমন্ত্রী
৬৩

নোয়াখালীতে ফণীর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত ৪৮ পরিবারকে নতুন ঘর প্রদান

প্রকাশিত: ৬ জুন ২০১৯  

নোয়াখালী সদর, সুবর্ণচর ও কোম্পানীগঞ্জে ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নে ৪৮ পরিবারকে নতুন ঘর তৈরি করে দিয়েছে সরকার।  ঘূর্ণিঝড়ে এ উপজেলায় ৩৫৬টি পরিবারের ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বুধবার (৬ জুন) দুপুরে নোয়াখালী-৪ (সদর ও সুবর্ণচর) আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরগুলো বুঝিয়ে দেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন– নোয়াখালীর জেলা প্রসাশক তন্ময় দাস, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক একেএম সামছুদ্দিন জেহান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুল ইসলাম সরদার ও ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সিদ্দিকুর রহমান সাবু প্রমুখ।
এ সময় একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, ‘সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ঘর করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি আমরা দিয়েছিলাম এবং আমরা তা রেখেছি। তারা মানসম্মত নতুন ঘর পেয়েছে। এছাড়া সরকারের পক্ষ থেকে অন্যান্য সব সুবিধা ক্ষতিগ্রস্তদের দেওয়া হবে।’
জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস বলেন, আজ সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নে ৪৮ পরিবারকে নতুন ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। আগামী ২০ জুনের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত বাকি পরিবারকে ঘরগুলো বুঝিয়ে দেওয়া হবে।
উল্লেখ্য, গত ৩ মে রাতে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’র আঘাতে নোয়াখালীর সদর, সুবর্ণচর ও কোম্পানীগঞ্জে ৩৫৬ টি পরিবারের ঘর সম্পূর্ণরুপে বিধ্বস্ত হয়। এর মধ্যে সদরে ১২১, সুবর্ণচরে ২২৮ এবং কোম্পানীগঞ্জে ১৭ টি ঘর বিধ্বস্ত হয়। এরপর ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর ঘর নির্মাণের দায়িত্ব নেয় সরকার।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর