ব্রেকিং:
হাতিয়ায় নদীর পাড়ে মিললো লাশ মৃত ব্যক্তির লাশ রেখে পালালো স্বজনরা, দাফন করলেন ইউপি চেয়ারম্যান পরশুরামের আরও এক পুলিশ সদস্যের মৃত্যু জমির বিরোধ নিয়ে যুবককে কুপিয়ে আহত কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতাসহ আরও ১৬ জনের করোনা প্রধানমন্ত্রীর অনুদানে পৌনে ৪১ লক্ষ টাকা পাচ্ছে ফেনীর ৫ পৌরসভা দেশে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের নতুন রেকর্ড, মৃত্যু ৩৭ নিজেরা আক্রান্ত হয়েও সেবায় পিছিয়ে নেই চিকিৎসাকর্মীরা করোনা সঙ্কটেও মে মাসে দেড় বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনে আরও কঠোর হবে সরকার সংক্রমণ বিবেচনায় তিনটি জোনে ভাগ হবে দেশের বিভিন্ন এলাকা বাংলাদেশী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বিচারের প্রতিশ্রুতি লিবিয়ার চলমান ক্ষুদ্র ও বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ছে ১০ হাজার কোটি টাকার জরুরী তহবিল এটিএম বুথ এখন গ্রামেও করোনা-উত্তর অর্থনীতি পুনরুদ্ধার মূল লক্ষ্য গণপরিবহনে উঠার সময় এখন যেসব বিষয় না মানলেই বিপদ! রামগঞ্জে শিশু সন্তান নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী উধাও ফেনীতে কাউন্সিলরসহ আক্রান্ত আরো ১৬ কোম্পানীগঞ্জে ৪৯টি মসজিদ পেল সরকারি প্রণোদনা
  • বুধবার   ০৩ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২০ ১৪২৭

  • || ১০ শাওয়াল ১৪৪১

৮১২

দুর্ধর্ষ অভিজানে শ্রমিক লীগ নেতাকে উদ্ধার

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০১৯  

সুধারাম থানার দাদপুর ইউনিয়নের কামাল মেম্বারের মেইল ঘর এলাকায় জহির বাহিনী সালিশ বৈঠকে হামলা চালিয়ে ইউনিয়ন শ্রমিক লীগ সভাপতি সোলেমান মাঝিকে মারধর করেছে। এসময় তাকে দিগম্বর করে ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় কসাই বাহিনী। এ ব্যাপারে সুধারাম মডেল থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, শনিবার সকাল ১০টায় দাদপুর ইউনিয়নের কামাল মেম্বারের মিল এলাকায় স্থানীয় সমস্যা নিয়ে এক সালিস বৈঠক চলছিল। এ সময় হঠাৎ করে এলাকার সন্ত্রাসী জহির মেম্বারের নেতৃত্বে এলাকার কিশোর গ্যাং এর ২০/২২ জন সন্ত্রাসী বৈঠকে হামলা চালিয়ে লোকজনদের এলোপাতাড়ি মারধর করে তাড়িয়ে দিয়ে ইউনিয়ন শ্রমিক লীগ সভাপতি সোলেমান মাঝিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর তাহে জহির মেম্বারের টর্চার সেলে নিয়ে গিয়ে দিগম্বর করে পিটিয়ে আহত করে। তার সাথে থাকা ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে তাকে আটক করে রাখে। খবর পেয়ে রাত ৯টায় সুধারাম থানা পুলিশ আহত অবস্থায় সোলেমান মাঝিকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ব্যাপারে শ্রমিক লীগ সভাপতি সোলেমান মাঝি বাদী হয়ে জহির মেম্বারকে প্রধান আসামি করে তার কিশোর গ্যাং ও কসাই বাহিনীর ফারুখ (২৪), রায়হান (২৫), রাসেল (২২), আকবর কসাই (২২) সহ ১২ জনের নাম দিয়ে আরো অজ্ঞাতনামা ৮/১০ জনকে আসামি করে সুধারাম মডেল থানায় মামলা দায়ের করে। গতকাল এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন আসামি গ্রেপ্তার হয়নি। সুধারাম মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আবদুল বাতেন মৃধা জানান, সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর