ব্রেকিং:
মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদ তামিমার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার !!! করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আরো ৮ মৃত্যু পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ চা উৎপাদনে বৃহত্তর চট্টগ্রামকে ছাড়িয়ে গেছে পঞ্চগড় আলোর ফেরিওয়ালা পলান সরকারের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ আধুনিক পুলিশ মোতায়েন হবে তিন পার্বত্য জেলায় জট খুলেছে ড্রাইভিং লাইসেন্সের ঋণ নিয়ে নয়ছয় করলে কঠোর শাস্তি আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে অপরাধী শনাক্তে র‌্যাব এনেছে ওয়াইভিএস বেসরকারি ভবে বন্ধ পাটকল চালুর নীতিতে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি জেলাপর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয় করে দিচ্ছে সরকার :প্রধানমন্ত্রী ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের দেয়া সুযোগ-সুবিধায় ওআইসি’র সন্তোষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটির আদেশ জারি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সতর্কতার সঙ্গে কাজ করতে বলেছে সংসদীয় কমিটি আজ থেকে দুই মাস ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ শুরু হলো অগ্নিঝরা মার্চ ২৭ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জয়, বিএনপি একটিতে ৩১ লাখ ছাড়াল দেশে করোনা টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা ই-নামজারি অটোমেশন ও ভূমি উন্নয়ন কর ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা
  • মঙ্গলবার   ০২ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৮ ১৪২৭

  • || ১৭ রজব ১৪৪২

ঢাকার চারপাশে বৃত্তাকার রেলপথ নির্মাণের পরিকল্পনা

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ঢাকাকে ঘিরে বৃত্তাকার অত্যাধুনিক রেলপথ নির্মাণের প্রকল্প হাতে নিয়েছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। এর আওতায় নির্মাণ করা হবে ৭০ কিলোমিটার উড়াল ও ১০ কিলোমিটার পাতাল রেললাইন, এর মাধ্যমে পাতাল রেলের যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে সম্ভাব্যতা যাচাই সমীক্ষা। বাস্তবায়ন হলে ঢাকা শহরের যানজট নিরসনের প্রত্যাশা রেলমন্ত্রীর।

যানজটে নাকাল রাজধানীবাসী। দীর্ঘদিনের এই সমস্যা সমাধানে নানামুখী প্রচেষ্টার শেষ নেই। তার সঙ্গে এবার যুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

ঢাকার চারপাশে বৃত্তাকারে উড়াল রেলপথ নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ইতিমধ্যে প্রাথমিক কাজও শেষ করেছে তারা। সম্ভাব্যতা যাচাই ও বিশদ নকশা অনুযায়ী ঢাকার চারপাশকে বেষ্টন করে বৃত্তাকারে ৭০ কিলোমিটার উড়াল রেলপথ নির্মাণ করা হবে। রেলপথটি টঙ্গি থেকে গাবতলী হয়ে কামরাঙ্গীর চর, নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়া পূর্বাচল সড়ক হয়ে পুনরায় টঙ্গিকে সংযুক্ত করবে। নির্মাণ করা হবে ২১টি উড়াল স্টেশন। জমি সংকটের কারণে প্রায় ১০ কিলোমিটার লাইন হবে মাটির নিচে, থাকবে তিনটি পাতাল স্টেশনও।

বৃত্তাকার রেলপথ নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাই প্রকল্পের পরিচালক মনিরুল ইসলাম ফিরোজী বলেন, এ প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকার শহরের চতুর্দিকে প্রত্যেকটা রুটের সঙ্গে সমন্বিত যাতায়াত ব্যবস্থার নিশ্চিত করা হবে।

স্টেশনগুলো নৌপথ, মেট্রোরেল ও সড়কপথকে সংযুক্ত করবে। এর ডিপো হবে ডেমরায়। উত্তরা আর কামরাঙ্গীর চরে হবে বৈদ্যুতিক সাব স্টেশন। ডুয়েল গেজ ডবল লাইনের এই পথে ট্রেন চলবে বিদ্যুতে, যার গতি হবে ১২০ কিলোমিটার। প্রকল্পের সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৭০ হাজার কোটি টাকা।

রেলমন্ত্রী নরুল ইসলাম সুজন বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে ইতিমধ্যে এমএমও হয়েছে। এটা বাস্তাবায়নে চার থেকে পাঁচ বছর সময় লাগবে।

আগামী বছর পুরোদমে কাজ শুরুর লক্ষ্যে এগোচ্ছেন জানিয়ে মন্ত্রী আরো বলেন, এই প্রকল্পের মাধ্যমে দূর হবে ঢাকা শহরের যানজট। একই সঙ্গে যাতায়াত সহজ এবং সময় বাঁচবে।

২০২২ সালে কাজ শুরু হলে ২০২৮ সালে প্রকল্পটি সমাপ্ত হবে বলে আশা রেলমন্ত্রীর।