ব্রেকিং:
দেশে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ২৪২৩, মৃত্যু ৩৫ সমুদ্র সম্পদের টেকসই ব্যবহারে প্রধানমন্ত্রীর ৩ দফা প্রস্তাব পেশ প্রধানমন্ত্রীর ৫ নির্দেশনা গার্ডিয়ানে শেখ হাসিনার নিবন্ধ বিজিবিতে যুক্ত হলো অত্যাধুনিক জলযান ৮ জুন ঢাকায় আসবে চীনের করোনা বিশেষজ্ঞ দল পছন্দের শিক্ষকের পাঠদান এখন মোবাইলে অতীতের সব রেকর্ড ছাপিয়ে সর্বোচ্চ রিজার্ভ করোনা ভাইরাসের মধ্যেও থেমে নেই মেগা প্রকল্প ঘরে বসে ২ মিনিটেই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ৭ উন্নয়ন সহযোগীর কাছ থেকে সহায়তা পাচ্ছে বাংলাদেশ আ. লীগ সর্বাত্মক শক্তি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে করোনা যোদ্ধাদের স্যালুট জানিয়ে দেয়ালচিত্র জীবাণু শঙ্কা-প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধে সদা সচেষ্ট প্রধানমন্ত্রী অতিরিক্ত ভাড়া আদায়কারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা জীবনবাজি রেখে মাঠ পযায়ে কাজ করছে পরিবার পরিকল্পনা কর্মীরা করোনায় ফেনীর কাস্টমস কর্মকর্তার মৃত্যু নোয়াখালীতে ৪ নার্সসহ আরও ৫৯ জনের করোনা সেনবাগে পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু দেশে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ২৬৯৫, মৃত্যু ৩৭
  • শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪১

৭৫৪৮

‘জামায়াত স্বাধীনতার শত্রু’ ভিডিও বার্তায় বললেন দলটিরই শীর্ষ নেতা

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮  

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝিনাইদহ- ৩ (মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর) আসনে ধানের শীষ প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য পদে লড়বেন জামায়াতের নেতা অধ্যপাক ডা. মতিয়ার রহমান। নির্বাচনে ঠিক আগ মুহূর্তে এসে তিনি নিজের এতোদিনের নৈতিক সমর্থিত জামায়াতের করা অপরাধগুলো স্বীকার করেছেন। বলেছেন, ‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী হলো দেশ, জাতি ও স্বাধীনতার শত্রু’। একইসাথে জামায়াতকে বর্জন করার জন্য দেশবাসীকে আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের ওপর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সেই নৃশংস হত্যা, লুণ্ঠন, নির্যাতন ও ধর্ষণের মূল সহায়ক ছিল বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর প্রতিষ্ঠাতা সদস্যরা। স্বাধীনতার পর দেশদ্রোহী এই দলটি নিজেদের অস্তিত্ব হারালেও স্বীকার করেনি তাদের অপরাধ।

দেশ বিরোধীদের চক্রান্তে ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা পর পাকিস্তানপন্থিদের গড়া আরেক রাজনৈতিক দল বিএনপি পুনরায় জামায়াতকে খাদের কিনারা থেকে তুলে আনে। ’৭১ এর সেই চিহ্নিত রাজাকারদেরই দেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমাতার আসনে বসায় বিএনপি।

স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরও নিজেদের নিকৃষ্ট অপরাধের কথাগুলো মানতে নারাজ সেই জামায়াত ও তাদের অনুসারীরা। দলটির মায়ের পেটের ভাই বলে পরিচয় দেয়া বিএনপিও কখনো স্বীকার করেনি মুক্তিযুদ্ধে জামায়াতের স্রষ্টাদের অপরাধ। তবে এতো যুগ পর অন্তত একজন জামায়াতের শীর্ষ নেতা স্বীকার করেছেন নিজেদের সেই অপরাধের কথা।

স্থানীয়দের ভাষায়, রং, তুলিতে আঁকা ছবির মতো ছিমছাম গ্রাম মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর। এ আসনটি বরাবরের মতোই স্বাধীনতার স্বপক্ষের মানুষগুলো গুছিয়ে রাখতো। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ও পরে এই অংশটিতে জামায়াত কর্মীরা একের পর এক হামলার মাধ্যমে স্থানীয় জনগণকে পর্যদুস্ত করে ফেলে।

মূলত যুদ্ধাপরাধী ও বিএনপি-জামায়াতের ক্ষমতার মেয়াদে তাদের নেতাকর্মীদের করা দুর্নীতির সাজা বন্ধের দাবিতে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করে দলদুটো। যেখানে নির্বাচনটি বানচালের জন্য ২০১২, ২০১৩ ও ২০১৪ সালে পর এখানে ব্যাপক অগ্নিসন্ত্রাস ও সহিংসতা চালায় বিএনপি-জামায়াত কর্মীরা।

জামায়াত রাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে অযোগ্য হলেও আসনটিতে জামায়াত নেতা মতিয়ারের অনুসারীরা দমেনি এতটুকুনও। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোঁখের আড়ালে থেকে নিজেদের কার্যক্রম চালিয়ে গেছে পুরোদমে।

ধারাবাহিকভাবে নাশকতা, পুলিশের ওপর হামলা ও বিস্ফোরকের সাতটি মামলা হয়েছে মতিয়ারের বিরুদ্ধে। তবে তা সত্তেও আসনটিতে বিএনপিকে ছাপিয়ে ধানের শীষ প্রতীকে জোটের টিকিট পেয়েছে মতিয়ার। তবে ভোটের ঠিক আগ মুহূর্তে এসে তিনি স্বীকার করেই নিলেন যে জামায়াত দেশের স্বাধীনতার শত্রু। যাদের সমর্থন করা জনগণের উচিত হবে না বলে ইঙ্গিত দেন তিনি।

মতিয়ার বলেন, ‘আমি ঝিনাইদহ- ৩ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামির মনোনিত সংসদ সদস্য পদ প্রার্থী। আমি আমার অতীতের সকল প্রকার কর্মকাণ্ডের জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামি; দেশ, জাতি ও স্বাধীনতার শত্রু’ আসুন আমরা সবাই মিলে দলটিকে বর্জন করি।’

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর