ব্রেকিং:
দেশে করোনা বিষয়ে সচেতনতা ও টিকাদানে সহায়তা করবে ফেসবুক সরকারি বিধি-নিষেধ মেনে চলতে বিশিষ্ট নাগরিকদের আহ্বান পর্যায়ক্রমে দেশের সবাইকে টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে: প্রধানমন্ত্রী চাঁদ দেখা গেছে, কাল থেকে রোজা করোনায় আক্রান্ত হলে কতদিন পর টিকা নিতে পারবেন নিত্যপণ্য পরিবহনে সহায়তায় মন্ত্রণালয়ের হটলাইন চালু লকডাউনে বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংক খুলতে নির্দেশ জেলেদের জন্য ৩১ হাজার মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ আগামীকাল থেকে সর্বাত্মক লকডাউনে যাচ্ছে দেশ দেশে একদিনে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু কমেছে রমজানে বেঁধে দেওয়া হলো ৬ পণ্যের দাম এলপিজি সিলিন্ডারের দাম নির্ধারণ টিকা কিনতে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে ৪৩৩০ কোটি টাকার ঋণচুক্তি সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী থানাসহ গুরুত্বপূর্ণ সরকারি স্থাপনায় নিরাপত্তা জোরদার লকডাউনে চলাচল করতে ‘মুভমেন্ট পাস’ নেবেন যেভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড গড়ল দেশ এটিএম বুথ থেকে তোলা যাবে এক লাখ টাকা লকডাউনে খাদ্য সহায়তা পাবে সোয়া কোটি দরিদ্র পরিবার মিরাজের মেডিকেলে ভর্তির দায়িত্ব নিলেন নোয়াখালীর ডিসি
  • মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ১ ১৪২৮

  • || ০১ রমজান ১৪৪২

জামায়াতের পর, এবার হেফাজতকে ব্যবহার করছে বিএনপি

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৩ এপ্রিল ২০২১  

২০০১ সালের সূক্ষ্ম কারচুপির নির্বাচনে জামায়াতের ওপর ভর করে ক্ষমতায় আসে বিএনপি। এরপর বিভিন্ন ইস্যুতে তারা মাঠ গরম করতে লেলিয়ে দিতো জামায়াত-শিবিরের কর্মীদের। যার ভয়াবহতা বাংলাদেশের দেখেছিলো ২০১৩-১৪ সালে বিএনপির ইন্ধনে জামায়াতের পেট্রোল বোমার সহিংসতা। বর্তমানে জামায়াত পরিত্যক্ত হয়ে যাবার কারণে এবার বিএনপির টার্গেট হেফাজতে ইসলাম।

মূলত ২০১৫ সালের ইসলামের দোহাই দিতে হেফাজতকে ব্যবহার করার পর সিটি নির্বাচনে জয়ী হয় বিএনপি। এরপর থেকেই লাগাতার হেফাজতকে ব্যবহার করে আসছে বিএনপি। আর এ কারণে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে হেফাজতে ইসলামের আমির আহমদ শফী মারা গেলে বিএনপি রাজনীতি করে নিজেদের কমিটি বসিয়ে নতুন আমির হিসেবে জুনায়েদ বাবুনগরি এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মামুনুল হককে নিয়োগ দেয়। যাদের কাজ হচ্ছে ধর্মীয় ইস্যু উস্কে দিয়ে মাদ্রাসা ছাত্রদের মাঠে নামানো। আর সেই সুযোগে বিএনপি-জামায়াতের কাজ হচ্ছে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করা।

যার প্রমাণ হিসেবে আমরা দেখি স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে মোদির আগমনকে ঘিরে ২৬শে মার্চ জুমার নামাজের পর পরই জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম প্রাঙ্গণে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে মুসল্লিরা। এ সময় মুসল্লিদের বেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লক্ষ্য করে হাজার হাজার ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। এ বিষয়ে তদন্ত করলে পরে জানা যায়, সাধারণ মুসল্লিদের বেশ ধরে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করে নিজেদের দলীয় ফায়দা লুটতে মূলত হেফাজতের বেশ ধরে পুলিশের ওপর হামলা চালায় বিএনপি-জামায়াতের পেইড এজেন্টরা।

আর এর প্রমাণ স্বরূপ সে দিন সন্ধ্যায় বিএনপি নেত্রী নিপুণ রায়ের ফোনালাপ ফাঁস হয়। যেখানে তাকে স্পষ্ট দেশের জনগণের বাস পুড়িয়ে দেবার নির্দেশনা দিতে শোনা যায়।

বিষয়গুলো বিবেচনা করে হেফাজতে ইসলামকে সরাসরি ব্যবহার করছে বিএনপি। ফলে হেফাজতের উচিত হবে, যেনে শুনে ফাঁদে পা না দেয়া।