ব্রেকিং:
আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণ ৪ অক্টোবর থেকে ১২ দিন চলবে ভিটামিন "এ" প্লাস ক্যাম্পেইন রামগঞ্জে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী নুরুল আলম লক্ষ্মীপুরে ১০ টাকা কেজি চাল না পেয়ে কার্ডধারীদের বিক্ষোভ লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে কেন্দ্রীয় হাইফ্লো অক্সিজেন স্থাপন ছাগলনাইয়ায় অপহৃত শিশু ১৮ ঘন্টা পর সোনাগাজীতে উদ্ধার ফেনী জেলা পরিষদে আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন তপন ডব্লিওএইচও’র ভ্যাকসিন পরিকল্পনায় ৬০টিরও বেশি ধনী দেশের যোগদান দেশে করোনায় মৃত্যু ৫ হাজার ছাড়ালো, আক্রান্ত কমেছে ২০২১ সালে ৪৯.৮ লাখ মেট্রিক টন জ্বালানি আমদানির পরিকল্পনা সাবেক ডিআইজি বজলুরের জামিন নামঞ্জুর, সম্পদ ক্রোকের নির্দেশ একনেকে ১২৬৬ কোটি টাকার পাঁচ প্রকল্প অনুমোদন ধাক্কা কাটিয়ে চাঙ্গা হচ্ছে কাঁকড়া শিল্প নুরের বিরুদ্ধে আরো একটি মামলা সোনার দাম কমেছে ৮৯০ টাকা করোনার দৈনিক সংক্রমণ কমেছে, মৃত্যু ৪১৩৩ ফেসবুকে ‘ভাইয়া’ থেকে প্রেমিক, বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার দুই পরিবারের ২০ জনকে অচেতন করে মালামাল লুট লক্ষ্মীপুরে মালখানায় নষ্ট হচ্ছে গাড়ি : রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার নোয়াখালীতে অস্ত্রধারীদের হামলায় অতিষ্ঠ ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন
  • বুধবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৮ ১৪২৭

  • || ০৪ সফর ১৪৪২

৫৩৮

গ্রাহক নিজেই জানে না তার নামে ৩০ সিম!

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

চট্টগ্রাম নগরের বাকলিয়ার বলিরহাটের মুদি দোকানদার মুহাম্মদ ইসমাইল। গত মার্চে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করে মোবাইল অপারেটর রবির একটি সিম নিয়েছিলেন। বুধবার বিকেলে আরেকটি সিম কিনতে গিয়ে জানতে পারেন, তার নামে আরও ৩০টি সিম নিবন্ধিত আছে!

এ ঘটনায় গ্রাহকের গোপন তথ্য ব্যবহার করে জালিয়াতির মাধ্যমে মোবাইল অপারেটরের সিম নিবন্ধনের অভিযোগে একটি চক্রের চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে বাকলিয়া থানা পুলিশ।

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, পরিবেশক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যোগসাজশে এমন জালিয়াতি হচ্ছে। গ্রেফতার চারজন হলেন- ফেরদৌস সরোয়ার রবিন (১৮), মিনহাজুল ইসলাম (২৩), মিশু আহমেদ (৩০) ও জাবেদ ইকবাল (৩০)। এদের মধ্যে ফেরদৌস মোবাইল অপারেটর কোম্পানি রবির লোকাল এজেন্ট।

তাদের কাছ থেকে দেড়শ সক্রিয় সিম, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট গ্রহণের একটি ক্যাবল ও তিনটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে।

বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, গ্রেফতার ফেরদৌস মোবাইল অপারেটর রবির পরিবেশক এ কে খান টেলিকম লিমিটেডের বিক্রয় প্রতিনিধি। বাকলিয়ার বলিরহাট এলাকার মুদি দোকানদার মুহাম্মদ ইসমাইল গত মার্চে তার কাছ থেকে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করে একটি সিম নিয়েছিলেন। এরপর বিভিন্ন অজুহাতে রবিন আরও কয়েকবার ইসমাইলের হাতের আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করে।

বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ফেরদৌসের কাছ থেকে আরেকটি সিম কিনতে গিয়ে ইসমাইল জানতে পারেন, তার নামে আরও ৩০টি সিম নিবন্ধিত আছে। ইসমাইল বিষয়টি পুলিশকে জানালে ফেরদৌসকে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে, ফেরদৌস ইসমাইলের মতো আরও সাত ব্যক্তির জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে সিম রেজিস্ট্রেশন করেছে বলে স্বীকার করেন, বলেন ওসি নেজাম উদ্দিন।

তিনি জানান, রবিনের দেয়া তথ্যে বুধবার রাতে কালামিয়া বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে মিনহাজুল ইসলাম ও মিশু আহমেদকে গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে রেয়াজউদ্দিন বাজার থেকে জাবেদ ইকবাল নামে আরেকজনকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় বাকলিয়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নগর পুলিশের উপকমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মেহেদী হাসান বলেন, জালিয়াতির মাধ্যমে রবি মোবাইল অপারেটরের সিম রেজিস্ট্রেশন করে বাজারে সক্রিয় সিম বিক্রি করে আসছিল একটি সংঘবদ্ধচক্র। তারা গ্রাহকের আঙুলের ছাপ ও তথ্য সংরক্ষণ করে। তারপর সেগুলো দিয়ে সিম নিবন্ধন করে। প্রকৃত গ্রাহক জানতেও পারেন না, তার নামে সিম নিবন্ধিত হয়েছে। সেই সিম প্রতারকচক্রের সদস্যরা চড়া দামে বিক্রি করে। এসব সিম হাত ঘুরে রোহিঙ্গাদের কাছে পৌঁছাচ্ছে কি না, সেটাও আমরা তদন্ত করে দেখছি। আমাদের ধারণা, পরিবেশক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যোগসাজশে এই জালিয়াতি হচ্ছে।

অপরাধ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর