ব্রেকিং:
জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় শেখ হাসিনার পদক্ষেপ তিস্তায়ও আগ্রহী চীন আপনজনদের জীবনকে হুমকির মুখে ঠেলে দেবেন না : প্রধানমন্ত্রী বর্ডার এলাকার সব মানুষের দ্রুত করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক ফেনীর ৪ থানায় নতুন ওসি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় গ্রেফতার ৪৬২ ফেনীতে ৪শ’ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিল রেড ক্রিসেন্ট বাসায় ডেকে ফ্রিজ ম্যাকারের অশ্লীল ভিডিও ধারণ, নারীসহ আটক ৬ কনস্টেবলকে সততার পুরস্কার দিলেন এসপি কুমিল্লা ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে পানিতে ডুবে মা-ছেলের মৃত্যু কোভিড কেয়ার সেন্টারে খাওয়ানো হচ্ছে গোমূত্র লকডাউন আরো সাতদিন বাড়তে পারে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ক্ষুরা রোগের ৩৫ লাখ টিকা আমদানি করেছে সরকার করোনা টেস্টের নতুন ফি জানাল সরকার ঈদুল ফিতর সিয়াম সাধনার সাফল্য করোনায় মৃত্যু ১২ হাজার ছাড়ালো, একদিনে শনাক্ত ১২৩০ ঈদের তারিখ যেভাবে চূড়ান্ত করে চাঁদ দেখা কমিটি বৃহস্পতিবার থেকে ঈদের ছুটি শুরু, বুধবার শেষ কর্মদিবস নেপালকে করোনা চিকিৎসাসামগ্রী দিল বাংলাদেশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায়
  • বুধবার   ১২ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৯ ১৪২৮

  • || ২৯ রমজান ১৪৪২

গ্রাহকদের দেড় কোটি টাকা নিয়ে ইটভাটা মালিক উধাও

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৩ মে ২০২১  

ফুলগাজীতে গ্রাহকদের ইট দেয়ার কথা বলে দেড় কোটি টাকা অগ্রীম নিয়ে উধাও হয়েছেন ইটভাটা মালিক মাহমুদুল হাছান। শুধু তাই নয়, ওই ভাটায় কর্মরত শ্রমিকরাও মজুরি না পেয়ে বিপাকে পড়েছেন।সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সদর ইউনিয়নের বৈরাগপুর এলাকার নিউ পরফুল ব্রিকস থেকে ইট কিনতে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদুল হাছানকে ৬১ জন ব্যক্তি অগ্রীম টাকা দিয়েছেন। তাদের কাছ থেকে সংগৃহীত প্রায় দেড় কোটি টাকা নিয়ে রাতের আঁধারে পালিয়ে যান তিনি। এরপর থেকে ইটভাটা করে দেন তার স্ত্রী। ইট পাওয়ার আশায় প্রায়ই ভাটার সামনে ভীড় করেও কিনারা না পেয়ে অনেকে থানা—পুলিশ এমনকি আদালতে শরনাপন্ন হচ্ছেন।সদর ইউনিয়নের শ্রীপুর এলাকার বাসিন্দা জসিম উদ্দিন একটি ইনসিওরেন্স কোম্পানীতে কর্মরত।

তিনি জানান, শশুরের ঘর করার জন্য ২ লাখ ও স্থানীয় একটি সমিতির জন্য ২ লাখ ৬৮ হাজার ইট কেনার জন্য মাহমুদুল হাছানকে প্রায় ২৮ লাখ টাকা অগ্রীম জমা দেন। এর মধ্যে তিনি শুধুমাত্র ৬৫ হাজার ইট নিয়েছেন। বাকি ইট দেয়ার আগেই তার আর কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছেনা।পরশুরাম বাজারের ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম মজুমদার মোমিন জানান, ২ লাখ ৯৩ হাজার ইট কেনার জন্য সহ বিভিন্ন কিস্তিতে ধার হিসেবে ৪৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা দিয়েছি। এরমধ্যে শুধুমাত্র ৩৩ হাজার ৫শ ইট দিয়ে মাহমুদুল হাছান পালিয়েছেন।

ব্রিকফিল্ডের বন্ধের খবর পেয়ে তাকে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছি। আদালতের কার্যক্রম স্বাভাবিক হলে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।সদর ইউনিয়নের উত্তর দৌলতপুর সাহাপাড়া এলাকার বাসিন্দা মদন সাহা নামের এক ব্যবসায়ী জানান, ২ লাখ ইটের জন্য ওই ব্রিকস ফিল্ডের ম্যানেজারের মাধ্যমে ১২ লাখ টাকা অগ্রীম দিয়েছি। ইট বুঝিয়ে দেয়ার আগেই মাহমুদুল হাছান উধাও হয়ে গেছেন।নবী নামে এক ঠিকাদার জানান, ইট কিনতে সাড়ে ৪ লাখ টাকা অগ্রিম দিয়েছেন। দেড় লাখ টাকার মালামাল পেলেও ২ লাখ ৫০ টাকার ইট এখনো পাননি।পরশুরাম উপজেলার বসন্তপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমি গত বছরের আগস্ট মাসে ২০ হাজার ইটের জন্য অগ্রিম এক লাখ দিয়েছি। আমাকে ইট বুঝিয়ে দেয়ার আগেই মাহমুদুল হাছান পালিয়ে গেছেন।লালমনিরহাট জেলার মাটি কাটার শ্রমিক মো. আপেল, শিমুল, আশিক, মিঠু, ফারুক ও সুমন ইসলাম বকেয়া টাকা পাওয়ার আশায় এখনও ইটভাটায় অপেক্ষা করছেন। তাদের প্রত্যেকে ২০-২৫ হাজার টাকা করে পাওনা।শ্রমিক সর্দার ছাদেক মাঝি বলেন, আমরা সবাই নিম্নআয়ের শ্রমিক। কেউ মাটি কাটে, কেউ মাটি টানে। মজুরি না দিয়ে ঈদের আগে মালিক পালিয়ে যাওয়ায় সবার পরিবার নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।

নিউ পরফুল ব্রিকস ফিল্ডের ম্যানেজার সপ্তম সাহা জানান, প্রায় দেড় কোটি টাকা নিয়ে মালিক মাহমুদুল হাছান পালিয়ে গেছে। এখন সব মানুষ আমাকে ধরছে। আমিওতো এখানে টাকার জন্য চাকরি করছি। আমারও ৪ মাসের বেতন বাকি। এমডির নম্বরে ফোন করলে তার স্ত্রী ফোন ধরে তার কোনো খোঁজ জানেন না।ফুলগাজী থানার ওসি মো: কুতুব উদ্দিন জানান, মৌখিকভাবে অনেকেই জানিয়েছেন। কিন্তু লিখিতভাবে কেউ অভিযোগ দেননি।