ব্রেকিং:
প্রতিটি সূচক অর্জনেই বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে: সেতুমন্ত্রী চীনে শুরু হচ্ছে ১০ দিনব্যাপী কুকুর খাওয়ার উৎসব বিশ্বকাপে ব্রাজিলের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ দেশব্যাপী তালগাছ রোপণ অভিযান শুরু করেছে আওয়ামী লীগ আরেকটি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রাথমিকে শূন্য পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া দ্রুত করার সুপারিশ ঢাকা বাইপাস সড়কের চার লেন প্রকল্পের কাজ শুরু পার্বত্য জেলার ১৪২ প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণের সুপারিশ এলডিসি থেকে টেকসই উত্তরণে নতুন প্ল্যাটফর্ম আওয়ামী লীগ কেবল রাজনৈতিক দল নয়, জাতির নিউক্লিয়াসও: জয় আওয়ামী লীগ হীরার টুকরো, ভাঙলে বেশি জ্বলজ্বল করে : প্রধানমন্ত্রী খালের পানিতে নেমে ডুবে গেল দুই শিশু ৩০ টাকায় মেলে ভাত মাছ সবজি ডিম গাছে গাছে পাখির নিরাপদ আশ্রয় করে দিচ্ছেন যুবকরা দুই আঙুলে নাক টিপে পথ চলতে হয় এখানে চাচার ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন কলেজছাত্রী এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ১৬ লাখ টাকা লুটের নেপথ্যে ‘ছিনতাই’ প্রতিবন্ধীদের চলাচলের রাস্তা কেটে ফেলার অভিযোগ লুঙ্গি ও গামছা পরে সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে গ্রেফতার করল এএসআই টিকা উৎপাদনে আন্তর্জাতিক সহায়তা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  • বৃহস্পতিবার   ২৪ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ১২ ১৪২৮

  • || ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪২

গ্রামে চিকিৎসক দেখেই ড্রামের পিছনে লুকালেন বৃদ্ধা!

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ৩ জুন ২০২১  

ভারতের গ্রামাঞ্চলের একাংশের মধ্যে টিকা নিয়ে ভীতি ক্রমেই বেড়ে চলেছে। টিকা নিয়ে সরকারের সচেতনতামূলক নানা পদক্ষেপের পরও অনেকেই গুজবের শিকার হচ্ছেন। ফলে গ্রামাঞ্চলের সেই মানুষগুলোই টিকাবিমুখ হচ্ছেন। উত্তরপ্রদেশের তেমনই একটি ঘটনা সম্প্রতি সামনে এসেছে যা ইন্টারনেটে বেশ ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

মঙ্গলবার ইটাওয়া জেলার গ্রামগুলোতে টিকা নিয়ে সচেতনতামূলক প্রচার চালাচ্ছিল স্বাস্থ্য দফতর। বাড়ি বাড়ি গিয়ে সেই প্রচার চালাচ্ছিলেন চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা। সঙ্গে ছিলেন বিজেপি বিধায়ক সরিতা ভাদৌরিয়া। তারা চন্দনপুরগ্রামে প্রচার চালাচ্ছিলেন।

গ্রামে চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী এসেছে এই খবর ছড়িয়ে পড়েছিলো আগেই। ফলে চিকিৎসকরা যখন হরি দেবী নামে অশীতিপর এক বৃদ্ধার বাড়িতে পৌঁছান, তাদের দেখামাত্রই ছুটে ঘরের ভিতরে ঢুকে একটা বড় ড্রামের পিছনে লুকিয়ে পড়েন তিনি।

এক চিকিৎসক ডাক দিয়ে বলেন, “আম্মা কোথায় গো? টিকা দেয়ার লোকজন এসেছে যে!” কিন্তু হরি দেবী ড্রামের পিছন থেকে বেরোতে চাইছিলেন না কিছুতেই। বিষয়টা বোধগম্য হওয়াতে চিকিৎসকরা ফের বৃদ্ধাকে বলেন, ‘বিধায়ক এসেছে আপনার সঙ্গে দেখা করতে। ইঞ্জেকশন দেয়ার জন্য আসিনি। শুধু কথা বলতে এসেছি। অন্ততপক্ষে বিধায়ক কী বলছেন সেটা এসে শুনুন।’ এ ভাবে বোঝানোর পর হরি দেবী গুটি গুটি পায়ে ড্রামের পিছন থেকে বেরিয়ে আসেন।

বিধায়ক এই ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, “গ্রামে এখনো মানুষ টিকার বিষয়টি নিয়ে কিছুটা শঙ্কায় ভুগছেন। আমরা সকলে তাদেরকে উৎসাহ এবং অভয় দেয়ার জন্য বেরিয়েছি। ওই বৃদ্ধা আমাদের দেখেই ভয়ে পালিয়ে যান।”

বিধায়ক আরো জানান, বৃদ্ধা বলেছেন, তাকে নাকি বলা হয়েছে টিকা নিলে খুব জ্বর হয় এবং আরো ভয়ানক ঘটনা ঘটে। আর সে কারণেই তিনি টিকা নিতে চান না।