ব্রেকিং:
দেশে একদিনে আরো ৩৪ মৃত্যু, আক্রান্ত ২৬৪৪ আরেকটি নতুন মাইলফলকের পথে রিজার্ভ মহামারির মধ্যেও এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী জাতির পিতার স্বপ্নপূরণে সাধ্যের সবটুকু উজাড় করে দেব বঙ্গবন্ধু আগামী প্রজন্মের অনুপ্রেরণার উৎস ‘সোনার বাংলা’ প্রতিষ্ঠাই ছিল বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বঙ্গবন্ধুকে দেখিনি, বাংলাদেশকে দেখেছি মহামানবের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি ইতিহাসের জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড বঙ্গবন্ধুর বাঙালি জাতীয়তাবাদের সীমানা ৮ মাসে আটবার সোনার দামের পরিবর্তন, থমকে আছে রূপা জাতীয় শোক দিবসে জাতির পিতার স্মৃতির প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা পর্যটকদের অসচেতনতায় সৌন্দর্য হারাতে পারে খোয়া সাগর দিঘী ছাগলনাইয়ায় ২ হাজার পিস ভারতীয় টার্গেট ট্যাবলেট উদ্ধার শশুর বাড়ির লোকজনের নির্যাতনে নিরুদ্ধেশ গৃহবধু শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী আজ দেশে একদিনে আরো ৩৪ মৃত্যু, আক্রান্ত ২৭৬৬ প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলতে ১২৮ কোটি টাকা খরচ করবে সরকার অগ্নাশয় ক্যান্সার গবেষণায় বাঙালি বিজ্ঞানীর সাফল্য সপ্তাহে ৮ হাজার টাকা আয়ের সুযোগ পাচ্ছেন ৫ লাখ তরুণ
  • শনিবার   ১৫ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৭

  • || ২৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

১০৬

গণপরিবহনে উঠার সময় এখন যেসব বিষয় না মানলেই বিপদ!

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২ জুন ২০২০  

দীর্ঘ লকডাউনে ঘরে থাকার পর এখন কর্মস্থলে যাওয়ার পালা! অনেকেই আগের মতোই ব্যস্ত জীবনে ছুটছেন। তবে কার শরীরে করোনাভাইরাস রয়েছে তা কারো পক্ষেই জানা সম্ভব নয়। 

এভাবেই জীবন হাতের মুঠোয় নিয়ে জীবিকার তাগিদে রাস্তায় বের হচ্ছেন কর্মজীবীরা। অন্যদিকে লকডাউনের পর চালু হয়েছে গণপরিবহন ব্যবস্থা। আর সবার তো সামর্থ্য নেই যে, ব্যক্তিগত গাড়িতে চড়ে চলাফেরা করবে। তাই যদি গণপরিবহন ব্যবহার করতেই হয় তবে বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলা জরুরি।

বিশ্ব জুড়ে মহামারি সৃষ্টিকারী করোনাভাইরাস প্রতিরোধের একমাত্র উপায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। বাস, অটোসহ যে কোনো গণপরিবহনে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখাও খুব মুশকিল। রোগ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি খুব বেশি। 

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ঘেঁষাঘেঁষি করে গণপরিবহনে যাতায়াতের ফলে ড্রপলেটের মাধ্যমে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা অন্যান্য জায়গার তুলনায় ঘণ্টায় ২০ থেকে ৩০ গুণ বেশি। তাই সাবধান হতে হবে অনেক বেশি। তবে কী কী নিয়ম মেনে চললে কিছুটা নিরাপদে থাকা সম্ভব? জানালেন বিশেষজ্ঞরা।

> খুব ভিড় বাসে উঠবেন না। নির্দিষ্ট দূরত্বে দাঁড়িয়ে লাইন দিয়ে বাসে উঠবেন। চেষ্টা করবেন জানলার কাছে থাকতে যাতে বাইরের বাতাসে শ্বাস নেয়া যায়।

> তিন স্তরীয় মাস্ক পরার চেষ্টা করুন। হাতে বানানো কাপড়ের মাস্ক হলে তা যেন তিন স্তরবিশিষ্ট হয়। যদি ভিড়ের মধ্যে সাধারণ মাস্ক কার্যকর নয়। সার্জিকাল মাস্ক পরলে ড্রপলেট থেকে সহজে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে না।

> বাস বা ট্রেনে যাওয়ার সময় ফেস শিল্ড ব্যবহার করতে পারলে ভালো হয়।

> যতই কষ্ট হোক কোনোভাবেই নাকে, মুখে বা চোখে হাত দেবেন না। একান্ত দিতেই হলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে তার পর হাত দিন। কাজ শেষে আবারো সাবান ব্যবহার করুন।

> বাইরে থেকে বাড়ি ফিরে ভালো করে অবশ্যই গোসল করুন।

> ব্যাগে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সাবান নিতে ভুলবেন না।

> কোনো অবস্থাতেই রাস্তার আশেপাশের দোকান থেকে পানি বা খাবার খাবেন না।

> বাড়ি থেকে কর্মস্থল অল্প দূরত্বের হলে হেঁটে যাওয়ার চেষ্টা করুন।

> ট্যাক্সি বা উবারচালিত গাড়িতে গেলে চালকের পাশে বসবেন না, পিছনে বসুন।

> বাস বা ট্রেন থেকে নেমে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে টুপি, গ্লাভস, মাস্ক ও ফেস শিল্ড খুলে হাত মুখ সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
গণপরিবহন ব্যবহার করলে সার্জিকাল অথবা কাপড়ের ত্রি স্তরীয় মাস্ক ব্যবহার করুন।

> গণপরিবহনে উঠে মোবাইল ফোন প্রয়োজন ছাড়া ব্যবহার করবেন না। মোবাইল থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর ঝুঁকি থাকে।

> এই সময় সঙ্গে সবসময় আদার টুকরা রাখুন। আদা মুখে রাখলে গলার সংক্রমণ কিছুটা আটকানো যায়।

> খাবার খাওয়ার পূর্বে লবণ পানিতে গার্গল করে নিতে পারলে ভালো হয়।