ব্রেকিং:
তিন বছর ধরে ছাত্রীকে ধর্ষণ-ভিডিও ধারণ, নিখোঁজ ২ মাস বিকালে সংবাদ সম্মেলন আসছেন প্রধানমন্ত্রী মার্চে ৩৮, এপ্রিলে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়াতে পারে তাপমাত্রা মুশতাক আহমেদের স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে তাসনিম-পিনাকী গংয়ের অপপ্রচার বনানীতে বিএনপির হঠাৎ মশাল মিছিল, দুর্ভোগে নগরবাসী মার্চেই কালবৈশাখীর আশঙ্কা খাশোগিকে হত্যার অনুমতি দেন সৌদি যুবরাজ: মার্কিন রিপোর্ট পরিসংখ্যান উন্নয়ন ও অগ্রগতির পরিমাপক: প্রধানমন্ত্রী রায়পুরে অস্ত্রসহ ৭ জলদস্যু আটক করোনায় আরো ১১ মৃত্যু, শনাক্ত ৪৭০ চার কেজি চাল চুরি, তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি ব্যবসায়ীর ঘরে দুর্ধর্ষ ডাকাতি, প্রবাসীর স্ত্রী‌কে কুপিয়ে জখম শনিবার সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী ফেরারি আসামির নেতৃত্বে বিএনপি গভীর গর্তে ২০৯ কোটি টাকার প্রকল্পে লাখো যুবকের কর্মসংস্থান ফেনীতে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় কনস্টেবল গ্রেফতার ভাবিকে নিয়ে পালালেন নাছির, অবশেষে গ্রেফতার মেয়েকে ধর্ষণের পর মাকেও রাত কাটানোর প্রস্তাব বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাচ্ছে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীরা সুখবরের অপেক্ষায় বাংলাদেশ
  • শনিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭

  • || ১৪ রজব ১৪৪২

কবিরহাটে দুই সন্তানের জননীর সাথে প্রাইভেট শিক্ষকের পরকীয়া!

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

কবিরহাট পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড পূর্ব ফতেপুরের জাফর উল্লাহ মাস্টারের ছেলে মোঃ কামাল হোসেন (৪২)। কামাল হোসেন কবিরহাট কেজি স্কুলে শিক্ষতা করেন। একই উপজেলার মাঝির হাটের রবি দুবাই বাড়ির দুই সন্তানের জননী হানিফ মুক্তারের মেয়ে মোছাম্মদ সালমা আক্তার (৩০) এবং শিক্ষক কামালের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়ার সম্পর্ক চলছে।

ঘটনার সুত্রে এবং সালমা আক্তারের ঘনিষ্ঠদের সুত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে কামাল হোসেন এবং সালমা’র মধ্যে পরকীয়ার সম্পর্ক চলছে। সালমা স্কুলে পড়া অবস্থায় কবিরহাট কেজি স্কুলের শিক্ষক কামাল হোসেন এর কাছে প্রাইভেট পড়তো। তখন থেকে তাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতার সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে মেয়েটির অন্যত্রে বিয়ে হয়ে যায়। কিন্তু বিয়ের পরও মেয়েটির স্বামীর অজান্তে স্কুল শিক্ষক কামালের সাথে মোবাইলে কথা-বার্তা বলতো বলে জানা যায়। তারা দুজনে গোপনে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন স্থানে দেখা করতো বলেও কয়েকজন জানিয়েছে। এরইমধ্যে বিগত ২৭ জানুয়ারী মেয়েটি তার স্বামীর বাড়ি ছেড়ে মোঃ কামাল হোসেন এর কাছে চলে আসে।

বিষয়টি মেয়েটির স্বামী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন জানতে পেরে পৌরসভার বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধিদের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে সমাধানের চেষ্টা চালায়। কিন্তু সালমা তার স্বামী সালাউদ্দিনের কাছে যেতে অস্বীকৃতি জানায়। পরবর্তীতে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য শিক্ষক কামাল হোসেন কোন উপায় না পেয়ে সালমাকে জোরপূর্বক তার বাপের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। তাদের দু’জনের পরকীয়ার বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে এলাকায় আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।