ব্রেকিং:
পদ্মার সোয়া দুই কিলোমিটার দৃশ্যমান মাদক রোধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান খালেদা-তারেকের রাজনীতি করার অধিকার নেই বাসচাপায় নির্মাণ শ্রমিকের করুন মৃত্যু ভিকটিমের সাক্ষ্যে কাঁদলো সবাই চৌমুহনী বাজারের ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন তৃতীয় বারের মতো শ্রেষ্ঠ নোয়াখালী ডিবি ইউনিট নোয়াখালীর নতুন থানা ভাষানচর মা ইলিশ রক্ষায় প্রশাসনের সাঁড়াশি অভিযান অটোরিকশা কেড়ে নিল হাজারো স্বপ্ন চুরির ১২ ঘন্টার মধ্যেই পুলিশের অ্যাকশন ‘ভোলার ঘটনায় কেউ কর্তব্যে অবহেলা করলে ব্যবস্থা’ ২০ নভেম্বরের মধ্যে ছাপা হবে প্রাথমিকের সব বই জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস আজ শপথ নিলেন নতুন ৯ বিচারপতি বিএনপির এমপি হারুন অর রশীদের ৫ বছরের কারাদণ্ড আট ট্রাভেল এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদের দাবি মেনে নিল প্রশাসন ডোবা থেকে যুবকের গলিত লাশ উদ্ধার নোয়াখালী পুলিশ ৬ ক্যাটাগরিতে পুষ্কার অর্জন

বুধবার   ২৩ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৭ ১৪২৬   ২৩ সফর ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৩৬৩

ইঞ্জিনিয়ারিং ফেলে গাড়ির স্টিয়ারিং ধরলেন এই তরুণী!

প্রকাশিত: ১২ জুলাই ২০১৯  

বৃত্তের জীবন তার পছন্দ নয়। সব সময় চেয়েছিলেন জীবনটা হোক চমকে ভরা। এর প্রতি মোড়ে থাকুক রোমাঞ্চ। এই ভাবনা থেকেই ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সনদ পেয়েও বাস চালানোকে পেশা হিসেবে বেছে নিলেন প্রতীক্ষা দাস।

ভারতের মুম্বাইয়ের ২৪ বছর বয়সী এই তরুণী এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। দেশটির বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাইয়ের প্রথম নারী বাসচালক হিসেবে নাম লিখিয়েছেন। এরই মধ্যে বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

মুম্বাইয়ে বেড়ে উঠা প্রতীক্ষা ছোটবেলা থেকেই ভিন্ন স্বভাবের। তথাকথিত সমাজের চোখে মোটেও লক্ষ্মী নন তিনি, বরং দুষ্টুমিতে ভরপুর। পড়াশোনায় বরাবরের মতো ভালো প্রতীক্ষার ছোট বেলা থেকেই গাড়ির প্রতি প্রেমে মজেছিলেন। তার বাবা-মা চেয়েছিলেন, মেয়ে ইঞ্জিনিয়ার হবে। তাই মালাডেক ঠাকুর কলেজে ভর্তি করানো হয় প্রতীক্ষাকে। সেখান থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক করেন তিনি।

 

 

তবে পেশা হিসেবে কেন গাড়ি চালানোকে বেছে নিলেন। এমন প্রশ্নে প্রতীক্ষার যুক্তি, ছোটবেলা থেকেই গাড়ির প্রতি ভালোবাসা ছিল। বাইক, স্কুটি সবই চালিয়েছেন। ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করার পর আরটিও অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন তিনি। সেজন্য প্রয়োজন ছিল ভারী গাড়ি চালানোর লাইসেন্স।

আর স্বপ্নপূরণের জন্য বড় ভারী গাড়ি চালানো শেখেন প্রতীক্ষা। এরপর থেকে বাস চালানোর ইচ্ছাই যেন তাড়া করে বেড়ায় তাকে।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর