ব্রেকিং:
শনিবার শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে ১০ জনের বাংলাদেশ দল কৃষকের কাছ থেকে ধান কিনতে নীতিমালা হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী আওয়ামী লীগ আগের চেয়ে বেশি ঐক্যবদ্ধ: হানিফ আদালতের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান রাষ্ট্রপতির রিফাত হত্যাকাণ্ডে মিন্নি জড়িত: তদন্ত কর্মকর্তা চালু হলো এনআইডি যাচাইয়ের গেটওয়ে ‘পরিচয়’ বাংলাদেশে খাদ্য-নিরাপত্তা বেড়েছে লন্ডন যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ইবোলা সংক্রমণ: ‘বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা সর্বোচ্চ আত্মত্যাগের বিনিময়ে দায়িত্ব পালনের আহ্বান পুরান ঢাকায় ভবন ধস: বাবা-ছেলের মৃতদেহ উদ্ধার ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে করণীয় এমপি’র সাঁড়াশি অভিযান: ইভটিজিং এবং স্কুল কলেজ ফাঁকিবাজি চলবে না দেশীয় অস্ত্রসহ তিনজন আটক নোয়াখালীতে সেনাবাহিনী-বিজিবির চেষ্টায় বান্দরবানের সঙ্গে যোগাযোগ স্বাভাবিক কোরবানির ঈদ পর্যন্ত বিদেশি গরু প্রবেশ নিষিদ্ধ আজ এনআইডি যাচাইয়ে ‘পরিচয়’ উদ্বোধন করবেন জয় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে বাণিজ্যিকভাবে সম্প্রচার চালাবে বিটিভি যেভাবে পাবেন এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল এরশাদের আসন শূন্য ঘোষণা, তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন

বৃহস্পতিবার   ১৮ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ২ ১৪২৬   ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪০

সর্বশেষ:
পদ্মা সেতু নিয়ে গুজবে গ্রেফতার ১ জন অপপ্রচারই বিএনপির পুঁজি: ওবায়দুল কাদের ‘মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা হবে ১৫ হাজার টাকা’ জেলা প্রশাসক সম্মেলন ১৪ জুলাই বাংলাদেশের আর্থিক অন্তর্ভুক্তির প্রশংসায় রানী ম্যাক্সিমা নতুন দুই মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর শপথ ১৩ জুলাই
৩৮২

আর ঋণ নেব না, বিশ্বের মানুষকে ঋণ দেব

প্রকাশিত: ৩০ জুন ২০১৯  

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, ২০৩০ সাল নাগাদ আমরা আর ঋণ নেব না, ঋণ দেব ইনশআল্লাহ। সারা বিশ্বের মানুষকে ঋণ দেব আমরা।তিনি বলেন, আমাদের ঋণের পরিমাণ জিডিপির ৫ শতাংশ। মালয়েশিয়ার এর চেয়ে বেশি। ঋণের পরিমাণ হিসাব করা হয় জিডিপি দিয়ে। আমরা ঋণ নেই চায়নার কাছ থেকে। চায়নার ঋণের পরিমাণ জিডিপির ২৮৪ শতাংশ। শনিবার জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটের সমাপনী বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রস্তাবিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটের সুফল ২০২৪ সাল পর্যন্ত পাওয়া যাবে দাবি করে অর্থমন্ত্রী বলেন, এ বাজেটটি শুধু একটি বছরের জন্য নয়। এ বাজেটের ফাউন্ডেশন এ বছর। কিন্তু এ বাজেট থেকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত অর্জন করতে পারব। সেভাবে আমরা বাজেটটি প্রণয়ন করেছি। আমি বিশ্বাস করি, ২০২৪ সালে আমরা ডাবল ডিজিট গ্রোথে পা রাখব। ২০২৪ সাল থেকে শুরু করে ২০৩০ সাল পর্যন্ত এ বাজেটের ফলাফল পাব।

তিনি বলেন, একটা দেশ এবং জাতির সঙ্গে অনেক মিল আছে। মানুষের জীবনে যেমনিভাবে সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়, ঠিক তেমনিভাবে দেশের ক্ষেত্রেও সেটা সম্ভব হয়। দেশের ক্ষেত্রে সম্ভব হয় বলেই আমরা আমাদের এ বাজেটে টাইটেল রেখেছি- ‘সময় এবার আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’- এটা ইচ্ছাকৃতভাবে লেখা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা কী দেখতে পাই? আমরা যদি মালয়েশিয়ার দিকে তাকাই? ৩০ বছরের মধ্যে মালয়েশিয়া চলে গেছে তাদের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে, কাঙ্ক্ষিত জায়গায়। চায়নার অবস্থা কি ছিল? চায়না সবচেয়ে দরিদ্র দেশ ছিল। চায়নায় কোনো খাবার ছিল না। চায়না আজকে পৃথিবীর এক নম্বর দেশ।

তিনি বলেন, যদি চায়না পারে, মালয়েশিয়া পারে, সাউথ কোরিয়া পারে তাহলে বাংলাদেশ অবশ্যই পারবে। আমরা গত ১০ বছরে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে নিরলস পরিশ্রম করে সবাই মিলে বাংলাদেশকে যে জায়গায় নিয়ে এসেছি। ট্রেন একবার যখন ট্র্যাকের ওপর উঠে যায় তখন আর ট্রেন পেছনের দিকে যায় না। কোনো জাতি নেই আমাদের এখান থেকে গতিচ্যুত করতে পারবে। আমরা এগোবই, এগোবই ইনশাআল্লাহ।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর